TMC in Tripura: অভিষেকের সফরের আগেই নোটিস পেলেন কুণাল

Kunal Ghosh: সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে কুণাল ঘোষকে সমন পাঠি্যেছে ত্রিপুরা পুলিশ (Tripura Police)।

TMC in Tripura: অভিষেকের সফরের আগেই নোটিস পেলেন কুণাল
যুবনেতারা গ্রেফতার হওয়ার পর খোয়াই উপস্থিত হয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, কুণাল ঘোষ (ফাইল ছবি)

আগরতলা: ফের একবার ত্রিপুরা পুলিশের (Tripura Police) নোটিস এল তৃণমূল নেতৃত্বের কাছে। সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে ত্রিপুরা পুলিশ সমন পাঠাল তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষকে (Kunal Ghosh)। শুক্রবার সেই নোটিস পেয়েছেন তৃণমূল (TMC) নেতা। আগামী ১০ দিনের মধ্যে তাঁকে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২১ সেপ্টেম্বর তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) ত্রিপুরায় পদযাত্রা করার কথা। ইতিমধ্যেই সেই পদযাত্রার আবেদন জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে ত্রিপুরা পুলিশকে। তার ঠিক আগেই এই সমন ঘাসফুল শিবিরের ওপর চাপ তৈরি করার প্রচেষ্টা বলে মনে করছে একাংশ।

গত অগস্ট মাসে দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে গিয়ে আক্রান্ত হন সুদীপ রাহা, জয়া দত্ত। দেবাংশু ভট্টাভার্য, সুদীপ ও জয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খোয়াই থানায় রাখা হয়েছিল তাঁদের। সেই খবর পেয়েই ত্রিপুরায় ছুটে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের একাধিক নেতা-নেত্রী। ছিলেন কুণাল  ঘোষ, দোলা সেনও। খোয়াই থানায় তাঁদের বসে থাকতে দেখা গিয়েছিল। ওই ঘটনার জেরে আগেই নোটিস পেয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সমন পাঠানো হল কুণাল ঘোষকে। ৪১ এ ধারা অনুযায়ী, তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ। থানায় বসে পুলিশের কাজে তথা সরকারি বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কুণালের বিরুদ্ধে।

এ দিকে, পরপর দু’বার অভিষেকের সভার আবেদন নাকচ হয়ে যাওয়ার পর তৃতীয়বারের জন্য আবেদন করা হয়েছে। ১৫ সেপ্টেম্বর আগরতলার রবীন্দ্রভবন থেকে চৌমহনি পর্যন্ত পদযাত্রা করার কথা ছিল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু ত্রিপুরা পুলিশের থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এই পথে বুধবার অন্য একটি রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি রয়েছে। ফলে দু’টি দলকে এক পথে একই সঙ্গে কর্মসূচি করার অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয়। ফলে আগামী বুধবার তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক যে পদযাত্রা করতে চেয়েছিলেন তা বাতিল করতে হয়। এরপর শোনা গিয়েছিল ১৬ সেপ্টেম্বর এই কর্মসূচি হবে। কিন্তু সূত্রের খবর, সেই কর্মসূচিরও অনুমতি মেলেনি। কারণ হিসাবে সে রাজ্যের পুলিশ জানিয়েছে, বিশ্বকর্মা পুজোয় যানজটের আশঙ্কার জন্য এই সিদ্ধান্ত। পরে ২১ তারিখের জন্য আরও একবার আবেদন জানানো হয়েছে। যদিও এখনও কোনও অনুমোদন দেওয়া হয়নি।

ত্রিপুরায় মাটি তৈরি করতে লার্যত মরিয়া তৃণমূল। নিজেদের সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ঘাসফুল শিবির। দলের বর্ষীয়ান নেতা থেকে যুব-তরুণরা, নিয়মিত যাচ্ছে পড়শি রাজ্যে। সে রাজ্যে আক্রান্ত হওয়ারও অভিযোগ তুলছেন তাঁরা। ত্রিপুরায় গিয়ে অতিমারি আইন ভাঙার অভিযোগে অগস্টের ৭ তারিখ  তৃণমূলের ১৪ জন নেতাকে গ্রেফতার করে স্থানীয় খোয়াই থানার পুলিশ। এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে সকালেই বিপ্লব-রাজ্যে পৌঁছন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, দোলা সেন, ব্রাত্য বসু, কুণাল ঘোষ। থানায় গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অবস্থান করেন অভিষেক। এই ইস্যুতে তৃণমূল নেতার কাঠগড়ায় তুলেছে ত্রিপুরার পুলিশ প্রশাসন।

আরও পড়ুন: India Corona Update: দেশে ফের বাড়ছে দৈনিক করোনা সংক্রমণ, তবে মৃত্যু কমে ২৮১

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla