আর থাকছে না লোকসভা-রাজ্যসভা চ্যানেল! পরিবর্তে ‘সংসদ টিভি’-র উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

Lok Sabha: লোকসভা ও রাজ্যসভা টেলিভিশনকে একত্রিত করে আত্মপ্রকাশ করবে সংসদ টিভি নামের এই নতুন সরকারি টেলিভিশন চ্যানেল

আর থাকছে না লোকসভা-রাজ্যসভা চ্যানেল! পরিবর্তে 'সংসদ টিভি'-র উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর
সংসদ টিভির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবি: ফাইল চিত্র

নয়া দিল্লি: বুধবার ‘সংসদ টিভি’র (Sansad TV) উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। এ দিন সন্ধেয় ৬টায় প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও রাজ্যসভার চেয়ারম্যান তথা উপ রাষ্ট্রপতি (Vice President of India)  বেঙ্কাইয়া নাইডু (M Venkaiah Naidu) ও লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা (Om Birla) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। লোকসভা (Lok Sabha) ও রাজ্যসভা (Rajya Sabha) টেলিভিশনকে একত্রিত করে আত্মপ্রকাশ করবে সংসদ টিভি নামের এই নতুন সরকারি টেলিভিশন চ্যানেল। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে খরচে কাটছাঁট করার জন্য ছয় সদস্যের কমিটি এই আগের দুটি চ্য়ানেলকে নিয়ে ‘সংসদ টিভি’ গঠনের সিন্ধান্ত নেন। প্রাক্তন আমলা রবি কপুরকে (Ravi Capoor) চ্যানেলের সিইও হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর দফতর (Prime Minister’s Office) সূত্রে খবর লোকসভা ও রাজ্যসভার কার্যবিবরণী, সরকারি প্রকল্পগুলির রূপায়ন ও বাস্তবায়ন, সরকারের যাবতীয় নীতি, দেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতির বিভিন্ন আঙ্গিক মূলত এই বিষয়গুলি নিয়েই টেলিভিশন চ্য়ানেলটির (Television Channel)অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হবে। প্রধানমন্ত্রীর দফতর আরও উল্লেখ করেছে ,কাকতালীয় ভাবে আজ আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস, সেই দিনে এই চ্যানেলের আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

 

আরও পড়ুন জলের তলায় রেল লাইন, বাতিল একাধিক ট্রেন

জণগণের দ্বারা নির্বাচিত সাংসদরা (Member of Parliament)সংসদে গিয়ে কী বলছেন তা সকলের জানা উচিৎ, এই ধারণা থেকেই ২০০৬ সালের জুলাই মাসে লোকসভা টিভির (LS Tv) প্রথম আত্মপ্রকাশ ঘটে। লোকসভার অধিবেশেন সম্প্রচারের জন্য় পৃথক টেলিভিশন চ্য়ানেল তৈরির পরিকল্পনা প্রাক্তন অধ্য়ক্ষ সোমনাথ চট্টোপাধ্য়ায়ের (Somnath Chatterjee) মস্তিস্কপ্রসূত ছিল। তিনি সংসদের (Parliament) যাবতীয় কার্যকারিতা জনগণের কাছে তুলে ধরার জন্য ২৪ ঘন্টা সম্প্রচারের জন্য একটি চ্যানেল গঠনের পক্ষে জোরালো সওয়াল করেন। একইভাবে সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার অধিবেশন সম্প্রচারের জন্য রাজ্যসভা টিভির (RS tv) তৈরি হয়। উভয় চ্য়ানেল দুটিতেই অধিবেশন ছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান প্রচারিত হত।

লোকসভা ও রাজ্যসভা টিভি একত্রিত হওয়ার ফলে রাজ্যসভা টিভির কার্যালয়-সহ যাবতীয় সামগ্রী লোকসভার সচিবালয়ে স্থানান্তরিত করা হবে। মনে কার হচ্ছে যে নব নির্মিত সংসদ টিভির যাবতীয় পরিচালন ক্ষমতা সচিবালয়ের মাধ্যমে লোকসভার অধ্যক্ষের (Speaker of Lok Sabha) হাতেই থাকবে।

এর পাশাপাশি জানতে পারা যাচ্ছে, এই সংযুক্তিকরণের ফলে বেশকিছু কর্মী ছাঁটাই হতে পারে। ছয় সদস্যের কমিটির সুপারিশ অনুসারে ২২৫ জন থেকে ২৫০ জনের বেশী কর্মী থাকার কথা নয়। কিন্তু বর্তমানে রাজ্যসভা টিভিতে ২৫০ জন ও লোকসভা টিভিতে ১১০ জন কর্মরত। মনে করা হচ্ছে এই একত্রীকরণের ফলে ৫০ জন চুক্তিভিত্তিক কর্মী কাজ হারেতে পারেন।

 

আরও পড়ুন আফগানিস্তান দখলে কার ভূমিকা বেশি? শাসন শুরুর আগেই ক্ষমতা নিয়ে কাড়াকাড়ি তালিবানের অন্দরে

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla