ট্রাক্টর চালিয়ে বিধানসভায় তেজস্বী, বোঝালেন ‘জয় জওয়ান, জয় কিষাণ’ স্লোগানের অর্থ

তেজস্বী যাদব (Tejashwi Yadav) বলেন, “শাসক শক্তিদের মনে রাখা উচিত যে জয় জওয়ান জয় কিষাণ স্লোগান কেবল সীমান্তে দেশকে সুরক্ষা প্রদানকারী সেনা জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েই নয়, একইসঙ্গে দেশের অন্নদাতা কৃষকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েও বলা হয়। আজকের এই ট্রাক্টর অভিযান (Tractor Rally) সেই স্লোগানের মাহাত্ব্যকে বুঝিয়ে দেওয়ারই একটি প্রচেষ্টা।”

  • TV9 Bangla
  • Published On - 18:44 PM, 22 Feb 2021
RJD Leader Tejashwi Yadav reaches to Bihar Assembly riding on a tractor to protest against Fuel price hike and farm laws
বিধানসভার পথে তেজস্বী যাদব।

পটনা: কৃষক আন্দোলনে (Farmers Protest) সমর্থন জানিয়েছিলেন আগেই, পেট্রল-ডিজেলের দাম ১০০ পার করতেই প্রতিবাদ প্রদর্শনে নয়া ট্রেন্ডকেই বেছে নিলেন আরজেডি (RJD) নেতা তেজস্বী যাদব (Tejashwi Yadav)। সোমবার বিহার বিধানসভায় ট্রাক্টর চালিয়ে হাজির হন তেজস্বী, মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে ব্যাখ্যাও চাইলেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের বাংলোর ঠিক বিপরীতেই, রাস্তার ওপারে অবস্থিত তেজস্বীর বাড়ি থেকে ট্রাক্টর যাত্রা শুরু হয়। তাঁকে সঙ্গ দেন আরজেডির সাধারণ সম্পাদক তথা বিধায়ক অলোক মেহতা সহ দলের অন্যান্য কর্মীরা। পুলিশি নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝেই বিধানসভায় পৌঁছন তেজস্বী ও তাঁর সহকারীরা। তবে বিধানসভার গেটেই তাঁকে আটকে দেওয়া হয়। বিধানসভার বাকি সদস্যদের সমস্যার কথা বলে তাঁর ট্রাক্টর বিধানসভা চত্বরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।

বিধানসভায় পৌছেই মুখ্যমন্ত্রীর মৌনতা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন লালু-পুত্র। তিনি বলেন, “জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আমরা মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের কাছ থেকে স্পষ্ট বিবৃতি চাই। তিনি মূল্যবৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ে অবগত হলেও সেই বিষয়ে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছেন। বিহারে এপিএমসি তুলে নেওয়ায় কৃষকরা কীভাবে উপকৃত হয়েছেন, সেই বিষয়টিও ওনাকে বোঝাতে হবে। কারণ বহু কৃষকদেরই উৎপাদিত ফসল ৭০০-৮০০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে, যেখানে ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য(Minimum Support Price)-ই ১৮০০ টাকা।”

আরও পড়ুন: টুলকিট কাণ্ড: জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরও এক দিনের পুলিশ হেফাজতে পরিবেশকর্মী দিশা রবি

বিগত তিন মাস ধরে চলা কৃষক আন্দোলনে ২৬০ জনেরও বেশি কৃষক প্রাণ হারিয়েছেন। আন্দোলনকারী কৃষকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বিধানসভায় শোক পালনের প্রস্তাব দিলেও বিধানসভার স্পিকার সেই প্রস্তাব নাকচ করে দেন। এই ঘটনার সমালোচনা করে তেজস্বী যাদব বলেন, “শাসক শক্তিদের মনে রাখা উচিত যে জয় জওয়ান জয় কিষাণ স্লোগান কেবল সীমান্তে দেশকে সুরক্ষা প্রদানকারী সেনা জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েই নয়, একইসঙ্গে দেশের অন্নদাতা কৃষকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েও বলা হয়। আজকের এই ট্রাক্টর অভিযান সেই স্লোগানের মাহাত্ব্যকে বুঝিয়ে দেওয়ারই একটি প্রচেষ্টা।”

কৃষকদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন, “গতবছরও কৃষকদের পরামর্শ না নিয়েই কৃষি বিল পাশ করার পর আমরা ট্রাক্টর মিছিল করেছিলাম। কৃষকদের দাবি পূরণে কেন্দ্রীয় সরকার যদি কোনও পদক্ষেপ না করে তবে আমরা এই ধরনের কর্মসূচি চালিয়েই যাব।”

আরও পড়ুন: লকডাউন ভীতি ও পেট্রোপণ্যের সেঞ্চুরিতে নিম্নমুখী সেনসেক্স-নিফটি, রেকর্ড পতন শেয়ার বাজারে