Shashi Tharoor: ব্রিটেনের বিতর্ক অনুষ্ঠান থেকে বের করে দেওয়া হল শশী থারুরকে

Shashi Tharoor News: কিন্তু ব্রিটেনের করোনার টিকা নিয়ে নির্দেশাবলী জারি থাকায় সেই অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি সাংসদকে। এমনকি অনুষ্ঠান চলাকালীন তাঁকে বের করে দেওয়া হয়ছে বলেও অভিযোগ করেন কংগ্রেস নেতা ।

Shashi Tharoor: ব্রিটেনের বিতর্ক অনুষ্ঠান থেকে বের করে দেওয়া হল শশী থারুরকে
ফাইল ছবি

নিউ দিল্লি: অনুষ্ঠান থেকে বের করে দেওয়া হল কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরকে(Shashi Tharoor)। ব্রিটিশ সরকারের ‘টিকা নীতি’-র কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছিল?
সূত্রের খবর, কেমব্রিজ ইউনিয়নের একটি বিতর্ক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ব্রিটেন উড়ে গিয়েছিলেন থারুর। সেই অনুষ্ঠানে তাঁর লেখা একটি বইয়ে ব্রিটেন সংস্করণ প্রকাশ হওয়ার কথা ছিল। যা সেই দেশে প্রকাশিত হচ্ছে ‘দ্য স্ট্রাগল ফর ইন্ডিয়াস সোল’ নামে। কিন্তু ব্রিটেনের করোনার টিকা নিয়ে নির্দেশাবলী জারি থাকায় সেই অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি সাংসদকে। এমনকি অনুষ্ঠান চলাকালীন তাঁকে বের করে দেওয়া হয়ছে বলেও অভিযোগ করেন কংগ্রেস নেতা । নিজের টুইট্যর হ্যান্ডেলে একথা লেখেন থারুর। পাশাপাশি সেদেশের টিকানীতির নিন্দাও করেন তিনি।

কী সেই টিকানীতি?
জানা গিয়েছে, সম্প্রতি ব্রিটিশ সরকার টিকা নেওয়া হয়ে গিয়েছে এমন পর্যটকদের জন্য করোনা বিধিনিষেধ বেশ কিছুটা শিথিল করেছে। অর্থাৎ টিকার দু’টি ডোজ় নেওয়া থাকলেও ব্রিটিশ মুলুকে যাওয়া এবং সেখান থেকে অন্যত্র যাওয়ার ক্ষেত্রে পুরোনো নিয়ম বা কোয়ারেন্টাইন নীতি কার্যকর হবে না।

যদিও ভারতীয়দের কার্যকর করা হয়নি সেই নিয়ম। নতুন টিকা নীতি অনুযায়ী ভারত সহ আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, জর্ডন, তুর্কি, থাইল্যান্ড, রাশিয়ার এবং আরও কিছু দেশের নাগরিকরা ভ্যাকসিনের সব ডোজ নেওয়া থাকলেও তাদের ১০ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এবিষয়ে ব্রিটিশ সরকারের সাফ দাবি, এই সমস্ত দেশগুলি থেকে ভ্যাকসিন নিয়ে আসা মানুষদের ‘আনভ্যাক্সিনেটেড’ বা টিকা না নেওয়া নাগরিকের তালিকায় গণ্য করা হবে।

সেই সঙ্গে ইংল্যান্ডে প্রবেশের ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে আরটিপিসিআর কোভিড টেস্ট ও অন্যান্য একগুচ্ছ নিয়মনীতি। তবে জাপান, সিঙ্গাপুর মালোয়েশিয়া সহ মোট ১৭টি দেশের ক্ষেত্রে ইংল্যান্ড আসার জন্য টেস্টের প্রয়োজন নেই বলেই সেই নীতিতে জানানো হয়েছে। এক্ষেত্রে তাদের দেশে টিকাকরণের সার্টিফিকেট গণ্য করা হচ্ছে। ব্রিটেন সরকারের এই নীতি অনুযায়ী, ভারতের তিন প্রতিবেশী পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ সহ বিশ্বের মোট আটটি দেশকে বুধবার ভ্রমণের রেড লিস্ট থেকে সরানো হচ্ছে।পাশাপাশি মলদ্বীপ, তুর্কি, কেনিয়া, মিশরকেও এই রেড লিস্ট থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ইয়োরোপ সহ একাধিক দেশে সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ডের দু’টি ডোজ় নিয়ে সেখানে যাওয়ার অনুমোদন মিললেও ভারত বায়োটেকের তৈরি কো-ভ্যাকসিন নিয়ে সেই সকল দেশগুলিতে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা আগেই জারি করা হয়েছে। গত জানুয়ারিতে কোভ্যাকসিনকে জরুরি অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্র। এর পরে ট্রায়ালের রিপোর্ট আসে। ৭৮ শতাংশ প্রতিরোধ ক্ষমতা পাওয়া গিয়েছে কোভ্যাক্সিনের। তবে, বিশ্বের মাত্র ৯টি দেশ ছাড়া এর অনুমোদন কেউ স্বীকার করেনি। ইউরোপের দেশগুলিও এখনও কোভ্যাকসিনের অনুমতি মেলেনি। যার জেরে অসুবিধায় পড়ছেন এই ভ্যাকসিন নেওয়া মানুষজন। দেশের বাইরে যেতে গেলে সমস্যায় পড়ছেন তাঁরা। সেই কারণে হু-র তরফে অনুমোদন পেলে বিদেশেও যেতে পারবেন তাঁরা। তবে কোভ্যাকসিনের স্বীকৃতি না মিললেও কোভিশিল্ডের অনুমতি দিয়েছে হু।

এরপর খবরে আসে শীঘ্রই বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থা (WHO)এর অনুমোদন পেতে পারে ভারত বায়োটেকের কোভ্যাকসিন।দল অধিবেশনে সংসদে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল, জুলাই মাসে হু-এর কাছে অনুমোদন পাওয়ার জন্য সমস্ত প্রয়োজনীয় নথি পাঠানো হয়েছিল। সেই অনুমোদন পাওয়ার জন্য ভারত বায়োটেক ও কেন্দ্র কয়েক মাস ধরে অপেক্ষা করছিল। কয়েকদিন আগে ভারত বায়োটেকের তরফে জানানো হয়, হু-র জরুরি ভিত্তিক তালিকায় গৃহীত হয়েছে কোভ্যাক্সিন। আশা করা যাচ্ছে, শীঘ্রই কোভ্যাক্সিন হু-র অনুমোদন পেতে পারে।

আরও পড়ুন: RajyaSabha By-Election: ‘হারা মুখ্যমন্ত্রীকে হারানোই লক্ষ্য, রাজ্যসভায় প্রার্থী দেবে না বিজেপি’, টুইট শুভেন্দুর

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla