‘অসাংবিধানিক’! চাকরি-শিক্ষায় মারাঠা সংরক্ষণ বাতিল করল সুপ্রিম কোর্ট

সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, কোনও রাজ্যেই সংরক্ষণ ৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে যেতে পারে না।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 12:36 PM, 5 May 2021
'অসাংবিধানিক'! চাকরি-শিক্ষায় মারাঠা সংরক্ষণ বাতিল করল সুপ্রিম কোর্ট
ফাইল চিত্র

নয়া দিল্লি: সংরক্ষণ নিয়ে এর আগে তাৎপর্যপূর্ণ পর্যেক্ষণ জানিয়েছিল সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) বিচারপতি অশোক ভূষণের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ। মারাঠা সংরক্ষণের বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে বেঞ্চ প্রশ্ন করেছিল, “স্বাধীনতার ৭০ বছর পরেও কি আমাদের মানতে হবে কোনও অনগ্রসর শ্রেণিই অগ্রসর হয়নি?” এ বার সেই সরংক্ষণ বাতিল করে দিল দেশের সর্বোচ্চ আদালত। যার ফলে চাকরি বা শিক্ষার ক্ষেত্রে মহারাষ্ট্রে মারাঠা সংরক্ষণ সম্ভব নয়। কারণ হিসেবে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, কোনও রাজ্যেই সংরক্ষণ ৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে যেতে পারে না।

চাকরি ও শিক্ষায় মারাঠাদের ১৬ শতাংশ সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে বিল পাশ করেছিল ঠাকরে সরকার। সেই বিল নিয়ে মামলা গড়িয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। তার শুনানি চলাকালীন সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চ পর্যবেক্ষণে আগেই জানিয়েছিল, যদি সংরক্ষণের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ বা কোনও উর্ধ্বসীমা না থাকে তাহলে সকলের সমান অধিকার কীভাবে ব্যক্ত হবে? ১৯৯৩ সালে ইন্দিরা সহায় মামলায় সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছিল, যেন কোনও সংরক্ষণই ৫০ শতাংশ না পেরিয়ে যায়। কিন্তু মারাঠাদের সংরক্ষণ সংক্রান্ত বিল অনুযায়ী, ১৬ শতাংশ সংরক্ষণ হলে সেই অঙ্কটা ৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। তাই সেই সংরক্ষণ বাতিল করে দিল দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

মারাঠা বিচারপতি অশোক ভূষণ, বিচারপতি নাগেশ্বর রাও, বিচারপতি এস আবদুল নাজ়ির, বিচারপতি হেমন্ত গুপ্ত ও বিচারপতি এল রবীন্দ্র ভট্টের বেঞ্চের পর্যবেক্ষণ, রাজ্যের কোনও অধিকার নেই অনগ্রসর কোনও শ্রেণিকে স্বীকৃতি দেওয়ার। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, রাজ্য স্রেফ অনগ্রসর শ্রেণিকে চিহ্নিত করে কেন্দ্রকে সে বিষয়ে জানাতে পারে। স্বীকৃতি দেওয়া কেন্দ্রের কাজ।

ভারতীয় সংবিধানে রাজ্যের যেহেতু সংরক্ষণে সিলমোহর দেওয়ার এক্তিয়ার নেই, তাই মারাঠা সংরক্ষণকে অসাংবিধানিক জানিয়ে তা বাতিল করেছে সুপ্রিম কোর্ট। উল্লেখ্য, এর আগে সাম্যের অধিকারের প্রশ্নে মহারাষ্ট্র সরকারের আইনজীবী কুল রোহতগি জানিয়েছিলেন, আদালত ১৯৯৩ সালে ইন্দিরা সহায় মামলায় যে রায়টি দিয়েছিল ১৯৩১ সালের জনগণনার ভিত্তিতে। এখন জনসংখ্যা ১৩৫ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে। তাই পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা উচিত। পাশাপাশি তিনি সংরক্ষণের বিষয়টি রাজ্য সরকারের হাতে ছাড়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। কার্যত সেই আবেদন উড়িয়ে দিয়ে মারাঠা সংরক্ষণ বাতিল করল সুপ্রিম কোর্ট।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট বন্ধের আবেদন শুনবে সুপ্রিম কোর্ট