Parole: প্যারোলে মুক্তি পেয়েই এলাকাজুড়ে দাপাদাপি, ফের শ্রীঘরে নারকেলডাঙার রেহান শেখ

Crime News: করোনা আবহে (Corona Situation) বেশ কয়েকজন সাজাপ্রাপ্ত বন্দিকে প্যারোলে (Parole) মুক্তি দিয়েছিল রাজ্য। তাদের মধ্যে একজন ছিল খুনের আসামি রেহান শেখ।

Parole: প্যারোলে মুক্তি পেয়েই এলাকাজুড়ে দাপাদাপি, ফের শ্রীঘরে নারকেলডাঙার রেহান শেখ
নিজস্ব চিত্র।

কলকাতা: করোনা আবহে (Corona Situation) বেশ কয়েকজন সাজাপ্রাপ্ত বন্দিকে প্যারোলে (Parole) মুক্তি দিয়েছিল রাজ্য। তাদের মধ্যে একজন ছিল খুনের আসামি রেহান শেখ। কিন্তু প্যারোলে মুক্তি পেয়েই ফের সে ফিরে যায় আগের কাজকর্মে। আগ্নেয়াস্ত্র, কার্তুজ সহ তাকে ফের গ্রেফতার করল পুলিশ।

জানা গিয়েছে, দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার খুনের সাজাপ্রাপ্ত আসামি রেহান প্যারোলে মুক্তি পাওয়ার পর পুনরায় অপরাধমূলক কার্যকলাপ শুরু করে। এমন খবর বেশ কিছুদিন ধরেই পুলিশের কানে আসছিল। তার জন্য ওঁত পেতেছিল পুলিশ। বুধবার রাতে আগ্নেয়াস্ত্র কার্তুজ নিয়ে নিউ টাউন বাস স্ট্যান্ডে সঙ্গীদের সঙ্গে আড্ডায় মজেছিল সে। পুলিশকে আসতে দেখে সঙ্গীরা পালালেও যেতে পারেনি রেহান। হাতেনাতে তাকে পাকড়ও করে নিউটাউন থানার পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে দেশি বন্দুক, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও একটি মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

ধৃত রেহানকে এদিন বারাসত আদালতে পেশ করা হয়। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইন ধারা মামলা রুজু করা হয়েছে। রেহান শেখকে ফের নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানানো হবে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। জানা গিয়েছে, নারকেলডাঙার বাসিন্দা রেহান বহু দিন ধরে দুষ্কৃতীমূলক কাজকর্মে লিপ্ত। সূত্রের খবর, এক প্রোমোটার খুনে তাকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। পরে সাজা ঘোষণা হয় তার। তবে করোনা আবহে দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়। কিন্তু ছাড়া পেয়েই ফের পুরনো কাজে ফিরে যায় সে।

আগ্নেয়াস্ত্র ও দুই রাউন্ড কার্তুজ-সহ নারকেলডাঙার ওই যুবককে তার পর গ্রেফতার করে নিউটাউন থানার পুলিশ। ধৃতের মোবাইল কল লিস্ট খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহেই অস্ত্র বিক্রির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় ২ জনকে। একবালপুর এলাকা থেকে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। মোমিনপুর মোড় থেকে গ্রেফতার করা হয় শেখ সাদ্দাম হোসেন নামে এক যুবককে। তার থেকে ‍১টি ওয়ান সাটার ও ২ রাউন্ড কার্তুজ মেলে। তাকে জেরা করে জানা গিয়েছে, কলকাতায় অস্ত্র বিক্রি করার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল। তাকে জেরা করে তার এক সঙ্গী বাবলু আরিকেও গ্রেফতার করেছে একবালপুর থানা।

প্যারোল পাওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হল পুলিশের রিপোর্ট। সংশ্লিষ্ট বন্দি প্যারোলে মুক্তি পেয়ে তাঁর এলাকায় ফিরলে সেখানকার পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে পারে কিনা, অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টির আশঙ্কা আছে কি না, এমনকি বন্দির উপর হামলা হতে পারে কি না- এইসব বিষয় উঠে আসে পুলিশের রিপোর্টে। তাছাড়া সংশোধনাগারের অন্দরে সংশ্লিষ্ট বন্দির আচার-আচরণও বিচার্য। তবে ইউএপিএ বা কারেন্সি সংক্রান্ত মামলায় সাজা পাওয়া বন্দিদের প্যারোলে মুক্রির ক্ষেত্রে সেই সিদ্ধান্ত নেয় আদালত।

আরও পড়ুন: Parole: ছুটির মেয়াদ বাড়ল ‘মুক্ত’ বন্দিদের, প্রকাশিত হল নয়া প্যারোল বিধি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla