Arjun Singh: অর্জুনের বড় জয়? দিল্লির বৈঠকে কী আদৌও বেরলো কোনও রফাসূত্র? কী বলছেন ব্যারকপুরের সাংসদ?

Arjun Singh: অর্জুনের বড় জয়? দিল্লির বৈঠকে কী আদৌও বেরলো কোনও রফাসূত্র? কী বলছেন ব্যারকপুরের সাংসদ?
ছবি - অবশেষে কী তবে অর্জুনের জয়?

Arjun Singh: বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর তলব পেয়ে তড়িঘড়ি দিল্লি ছুটে গিয়েছিলেন ব্যারকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং। কিন্তু, বাংলার পাট শিল্পের দুরাবস্থা ঠেকাতে আদৌও কী কোনও ব্যবস্থা নিতে চলেছে কেন্দ্র সরকার?

TV9 Bangla Digital

| Edited By: জয়দীপ দাস

May 12, 2022 | 9:39 PM

নয়া দিল্লি: অর্জুন (Arjun Singh) ‘কাঁটায়’ বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরেই অস্বস্তি বেড়েছে পদ্ম শিবিরের। বুধবার জগদ্দলে শিব মন্দিরের উদ্বোধনে তৃণমূল (Trinamool) বিধায়ক সোমনাথ শ্যামের সঙ্গে দেখতে পাওয়া গিয়েছিল অর্জুনকে। তারপর থেকেই তাঁর তৃণমূলে যোগদানের বিষয়ে জল্পনা আরও বাড়ে। এরইমধ্যে, বৃহস্পতিবার ফের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের ডাক এসে পৌঁছয় অর্জুনের কাছে। যে পাটশিল্পের দুরাবস্থা নিয়ে অর্জুন এতদিন সুর চড়াচ্ছিলেন তা নিয়েই বৈঠক হওয়ার কথা শোনা যায়। ডাক আসা মাত্রই তড়িঘড়ি দিল্লি ছুটে যান তিনি। যা নিয়েই এদিন দিনভার রাজ্য-রাজনীতির অন্দরে চলে জোর চর্চা। কিন্তু, তিন ঘণ্টা ধরে চলা বৈঠকের শেষে কী বেরিয়েছে কোনও রফা সূত্র? 

প্রশ্নের উত্তরে অর্জুন বলেন, “চার ডিপার্টমেন্টের সেক্রেটারিয়েটদের নিয়ে এদিনের বৈঠক হয়। ফুড, ইড্রাস্ট্রি, এগ্রিকালচার আর টেক্সটাইল ডিপার্টমেন্টের আধিকারিকেরা ছিলেন এদিনের মিটিংয়ে। এই চার বিভাগের আধিকারিকদের নিয়ে একটি নজরদারি কমিটি তৈরি করা হয়েছে। এই কমিটিই আগামীতে বাংলার পাট শিল্পের সমস্যার বিষয়ে নিজেদের পর্যবেক্ষণের কথা কেন্দ্রকে জানাবেন। দ্রুত তাদের বাংলায় আসার কথা রয়েছে। ঘুরে দেখার কথা রয়েছে জুট মিলগুলিও। তবে আমার মনে হয়, আগামী সোমবার থেকে মঙ্গলবারের মধ্যে পাটের যে সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারিত আগেই হয়েছিল তা তুলে নেওয়া হতে পারে। এটা হলে পাট নিয়ে আপাত ভাবে যে সমস্য চলছে তা মিটে যেতে পারে”।

প্রসঙ্গত, এর আগেও পাট শিল্পের দুরাবস্থা নিয়ে বস্ত্র মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসতে দেখা গিয়েছিল অর্জুনকে। যদিও সেইবার দিল্লি থেকে ফিরে এসে বিশেষ সুর নরম করতে দেখা যায়নি ব্যারাকপুরের সাংসদকে। উল্টে ৯ মে-র মধ্যে তাঁর দাবি মানা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনেল নামারও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। একইসঙ্গে, প্রয়োজনে মমতার আন্দোলনে যোগ দেবেন বলেও সুর চড়াতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। তবে এদিন দিল্লি রওনা দেবার আগে কেন্দ্রী মন্ত্রীর তড়িঘড়ি তলব নিয়ে অর্জুন বলেন, “দেখুন আন্দোলনের পথ তো খোলাই আছে। তবে আমি এও বিশ্বাস করি আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করা যেতে পারে। সেই পথও খোলা রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে লড়াই হচ্ছে কিন্তু কোনও সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। কোর্ট অর্ডার আমাদের পক্ষে আছে, সে ক্ষেত্রে দাবি না মানার তো কোন প্রশ্নই আসে না”।

এই খবরটিও পড়ুন

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA