COVID Vaccination: TV9 নেটওয়ার্কের অভিনব উদ্যোগ! বিনামূল্যে টিকা পেলেন সকল ট্রাকচালকরা

Highway Heros: গত ১৭ নভেম্বর বুধবার থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত চলে এই স্বাস্থ্যসচেতনতা শিবির ও টিকাকরণ। ক্যাম্পে প্রতিদিন ৫০০ ট্রাকচালক ও তাঁদের পরিবারকে ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল।

COVID Vaccination: TV9 নেটওয়ার্কের অভিনব উদ্যোগ! বিনামূল্যে টিকা পেলেন সকল ট্রাকচালকরা
হাওড়ায় আয়োজিত টিকাকরণ শিবির, নিজস্ব চিত্র


হাওড়া: TV9 নেটওয়ার্কের অভিনব উদ্যোগ। ‘হাইওয়ে হিরোদের’ কুর্নিশ জানাতে বিশেষ আয়োজন। হাওড়ায় ট্রাক চালকদের জন্য বিনামূল্যে কোভিড টিকাকরণ (COVID Vaccination) ও স্বাস্থ্য সচেতন শিবিরের আয়োজন করল শ্রীরাম ট্রান্সপোর্ট ফিনান্স কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড, টিভি নাইন নেটওয়ার্ক ও অ্যাপোলো হাসপাতাল। সেই উদ্যোগে সামিল হলেন হাজার হাজার ট্রাকচালক। তাঁদের বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার পাশাপাশি, ট্রাকচালকদের পরিবারের সদস্যদের জন্য বিনামূল্যে স্বাস্থ্যশিবিরের আয়োজনও করা হয়।

জানা গিয়েছে, গত ১৭ নভেম্বর বুধবার থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত চলে এই স্বাস্থ্যসচেতনতা শিবির ও টিকাকরণ। ক্যাম্পে প্রতিদিন ৫০০ ট্রাকচালক ও তাঁদের পরিবারকে ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। সেই মোতাবেক প্রায় হাজারের বেশি ট্রাকচালকরা করোনা টিকা পান। পাশাপাশি, তাঁদের পরিবারের জন্য বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষার সুবিধায় বহুল উপকৃত হন ট্রাকচালকরা।

টিকা নিতে আসা এক ট্রাকচালকের কথায়, “এই উদ্যোগকে স্বাগত। কোথায় কোথায় যেতাম নয়ত। একের পর এক হাসপাতালে ঘুরতে হত। কখন কোথায় যেতাম! সেদিক থেকে খুবই ভাল হল।” অন্য আরেক চালকের কথায়, “খুবই ভাল উদ্যোগ। ওঁরা যে আমাদের কথা ভেবেছেন, এবং এত বড় উদ্যোগ নিয়েছেন ওঁদের অনেক  ধন্যবাদ। আমরা কৃতজ্ঞ।”

গত বুধবার ২ নম্বর জাতীয় সড়ক সংলগ্ন বালির কুন্ডু পার্কিং লট পি ডব্লিউ ডি রোডে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ১৯ তারিখ পর্যন্ত চলে সেই ক্যাম্প। উল্লেখ্য, প্রথম বিশ্বের দেশগুলি পারেনি এখনও, তৃতীয় বিশ্বের দেশ হয়েও টিকাকরণে ১০০ কোটির (100 crore Vaccination) লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করে নজির গড়ে দেখিয়েছে ভারত।

২০২১ সালের ১৬ জানুয়ারি এক নতুন ইতিহাস গড়ার লক্ষ্যে পা দেয় ভারত। শুরু হয় গণটিকাকরণ কর্মসূচি (COVID Vaccination Drive)। মাত্র ৩৪ দিনেই অর্থাৎ ১৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে দেশে ১ কোটি টিকা দেওয়া হয়। এরপর ৮৫ দিনের মাথায় ১০ কোটি টিকাকরণের গণ্ডিতে প্রবেশ করে দেশ। ১৪৮ দিন পার করে ১২ জুন ২৫ কোটির মাইলফলক স্পর্শ করে কেন্দ্র।

১০০ কোটি টিকাকরণের লক্ষ্যে এই পথচলা অতটা সহজ ছিল না। টিকাকরণের প্রথম ধাপেই কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছিল, টিকাকরণের ক্ষেত্রে অগ্রগণ্যতা পাবেন চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও প্রথম সারির করোনা যোদ্ধারা। তবে করোনা টিকা নিয়ে সকলের মনেই নানা প্রশ্ন ও ধন্দ্ব থাকায় টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে বেশ কিছু ভ্রান্ত ধারণা তৈরি হয়। অনেকেই করোনা টিকা নিতে অস্বীকার করেন। তবে কেন্দ্রের লাগাতার প্রচার ও প্রচেষ্টায় ধীরে ধীরে সেই প্রতিবন্ধকতা অনেকটাই কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়েছে।

দেশে ৫০ কোটি টিকাকরণের লক্ষ্যমাত্রা পার হয়  টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু  হওয়ার ২০৩ দিনের মাথায়। ৬ অগস্ট এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করে দেশ। এরপর ১৩ সেপ্টেম্বর ৭৫ কোটি টিকাকরণের গণ্ডিতে প্রবেশ করে দেশ। ১৭ সেপ্টেম্বর, প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আড়াই কোটি টিকা দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ে ভারত। সেই সময়ই প্রধানমন্ত্রী দেশের সমস্ত চিকিৎসক, স্বাস্থ্য়কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছিলেন,”টিকাকরণের এই গতি ধরে রেখেই ১০০ কোটির মাইলফলক স্পর্শ করতে হবে আমাদের”।

২৬০ দিনের মাথায়, ২ অক্টোবরই ৯০ কোটি টিকাকরণের গণ্ডিতে প্রবেশ করে দেশ। এরপরই শুরু হয় কাউন্টডাউন। চলতি সপ্তাহের মঙ্গলবার ৯৯ কোটির গণ্ডিতে প্রবেশ করে দেশ। দৈনিক টিকাকরণের সংখ্যা দেখেই দেশবাসী অপেক্ষা করতে থাকে সেই মাহেন্দ্রক্ষণের, যখন ১০০ কোটির গণ্ডি পার করবে দেশের টিকাকরণ। গত ২১ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৪৭ মিনিটেই সেই সময় আসে। পূরণ হয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন, দেশে ১০০ কোটি টিকা প্রদান।

দেখুন ভিডিয়ো:

আরও পড়ুুন: Mamata Banerjee: ‘আমরা কেন ঝগড়া করব? সবটাই পলিটিক্যাল ষড়যন্ত্র’, BSF-এর ক্ষমতায়নে তোপ মমতার

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla