Ira Basu: বুদ্ধবাবুর শ্যালিকা ইরা বসুর পেনশনের বিজ্ঞপ্তি জারি নবান্নের, মিলবে গ্রাচুইটিও

Ira Basu Buddhadeb Bhattacharjee: গত ১১ বছরের বকেয়া পেনশনও একেবারে পাবেন ইরাদেবী।

Ira Basu: বুদ্ধবাবুর শ্যালিকা ইরা বসুর পেনশনের বিজ্ঞপ্তি জারি নবান্নের, মিলবে গ্রাচুইটিও
গ্রাচুইটির অর্থও ইরাদেবী দ্রুত পেয়ে যাবে বলে জানা গিয়েছে নবান্নর অর্থ দফতর সূত্রে

কলকাতা: তাঁর দুর্দশার ছবি খবরে আসার পর থেকেই নজর ছিল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। খুঁটিনাটি সব বিষয়ের উপর দৃষ্টিও রেখেছিলেন তিনি। মাস ঘুরতে না ঘুরতেই বরাহনগরের সেই ভবঘুরে প্রৌঢ়ার পেনশন চালু করার বিজ্ঞপ্তি জারি করল রাজ্যের অর্থ দফতর। যে প্রৌঢ়া খোদ রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শ্যালিকা, ইরা বসু।

মঙ্গলবার নবান্নের অর্থ দফতরের তরফে এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পেনশন চালুর এই নির্দেশিকায় নমিনি করা হয়েছে বুদ্ধবাবুর মেয়ে সুচেতনা ভট্টাচার্যকে। এই নির্দেশিকায় দেখা যাচ্ছে, আপাতত প্রতি মাসে ১৩ হাজার ৯৮৫ টাকা পেনশন পাবেন ইরা বসু। নবান্ন সূত্রে খবর, ২০০৯ সালের ১ মে থেকে এই নির্দেশিকা কার্যকর করা হয়েছে। অর্থাৎ গত ১১ বছরের বকেয়া পেনশনও একেবারে পাবেন ইরাদেবী।

ইরা বসুর পরিস্থিতির কথা নজরে আসার পর থেকেই গোটা বিষয়টির উপর তীক্ষ্ণ নজর রেখেছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এক সময়ে পেশায় শিক্ষিকা ইরাদেবী যাতে তাঁর প্রাপ্য ফিরে পান, সেই দিকটি নিশ্চিত করতে ব্যক্তিগতভাবে উদ্যোগ নেন তৃণমূলের যুবরাজ। সেই মতো যেমন পেনশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে, সেই সঙ্গে গ্রাচুইটির অর্থও ইরাদেবী দ্রুত পেয়ে যাবে বলে জানা গিয়েছে নবান্নর অর্থ দফতর সূত্রে।

চলতি মাসের শুরুর দিকেই বরাহনগরের ফুটপাথ থেকে অবিন্যস্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় ইরা বসুকে। এর পরই সংবাদ মাধ্য়ম সূত্র মারফৎ জানতে পারা যায়, তিনি আর কেউ নন, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শ্যালিকা। তাঁর ভবঘুরে দশা দেশে হতবাক হন নেটিজেনরা। জানাজানি হওয়ার পরও ইরাদেবীকে লুম্বিনি পার্ক মানসিক হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু তিনি সেখানে থাকতে রাজি হননি। কারোর থেকে কোনও সাহায্যও নিতে চাননি। অগত্যা খড়দহের বাড়িতে তাঁকে ফিরিয়ে আনা হয়।

আরও পড়ুন: BJP West Bengal: কেন্দ্রীয় প্রকল্প ‘হাইজ্যাক’ না করে তৃণমূল! বিধায়কদের ‘হোমওয়ার্ক’ দিল বিজেপি, সময় দু’দিন

জানা যায়, খড়দহের একটি হাইস্কুলের শিক্ষিকা ছিলেন ইরা বসু। অবসর নেন ২০০৯ সালে। তার পরই জীবনের জোয়ার ভাটা তাঁকে এই করুণ পরিস্থিতিতে এনে ফেলে দেয়। কিন্তু তা সত্ত্বেও কারোর কাছে হাত পাতেননি ইরাদেবী। এই ঘটনা জানতে পারার পরই দ্রুত লোক পাঠিয়ে তাঁর খোঁজ নেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে পুরনায় তাঁর পেনশন চালু করার বিষয়ে আশ্বাসও দেওয়া হয়।

যেমন কথা, তেমনই কাজও হল। প্রতিশ্রুতি দেওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই ইরাদেবীর পেনশন চালু হওয়ার নির্দেশিকা জারি করল নবান্ন। এ বার তিনি সুস্থ, স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারবেন। এমনটাই আশা করছেন তাঁর শুভাকাঙ্খিরা।

আরও পড়ুন: Sukanta Majumdar: দায়িত্ব নিয়েই মাঠে সুকান্ত! বুধের সকালে মমতার ওয়ার্ডে শুরু প্রচার

 

 

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla