কামারহাটিতে ডায়ারিয়ার মূলে কলেরাই, অবশেষে বিবৃতি স্বাস্থ্য অধিকর্তার

Kamarhati Diarrhea: ৯ জনের মধ্যে তিনজনের নমুনায় কলেরার জীবাণু ভিব্রিও কলেরার অস্তিত্ব মিলেছে।

কামারহাটিতে ডায়ারিয়ার মূলে কলেরাই, অবশেষে বিবৃতি স্বাস্থ্য অধিকর্তার
কলেরার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি একাধিক (নিজস্ব চিত্র)

কলকাতা: কামারহাটিতে ডায়ারিয়ার (Kamarhati Diarrhea) প্রকোপের মূলে কলেরাই। বৃহস্পতিবার রাতে বিবৃতি প্রকাশ করে এ কথা জানান স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী। কলেরা কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত হ‌ওয়ার জন্য নাইসেডে ন’জনের নমুনা পাঠিয়েছিল স্বাস্থ্য ভবন।

৯ জনের মধ্যে তিনজনের নমুনায় কলেরার জীবাণু ভিব্রিও কলেরার অস্তিত্ব মিলেছে। তিনি আর‌ও জানিয়েছেন, মোট ২৯৭টি কেস সাগর দত্ত হাসপাতালে এ পর্যন্ত নথিভুক্ত হয়েছে। ১৫০ জনকে ভর্তি করতে হয়েছে। দু’জনের মৃত্যু।

তবে বিতর্ক দানা বেঁধেছিল, যখন স্বাস্থ্য দফতর ঠিক দু-তিন আগেই মৌখিক বলেছিল, কামারহাটিতে দু’জনের মৃত্যু ডায়ারিয়ায় নয়। নাইসেড থেকে নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই স্বাস্থ্য দফতর বিবৃতি দিয়ে দেওয়ায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

সেপ্টেম্বরে আচমকাই ডায়ারিয়া সংক্রমণ বৃদ্ধি পায় কামারহাটির ৫ নম্বর ওয়ার্ডে। মৃত্যু হয় দুজনের। সে সময় আরও ৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। প্রায় ৬৮ জন ডায়ারিয়া আক্রান্ত হয়ে সাগর দত্ত হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন ছিলেন। এলাকাবাসীর অনুমান, বর্ষা হলেই জল জমে যায় এলাকায়। তখন প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল, প্রবল বৃষ্টিপাতে জল জমায় সেখান থেকে কোনওভাবে পানীয় জলেও ডায়ারিয়ার জীবাণু ছড়িয়ে পড়তে পারে। সেখান থেকেই এইভাবে এলাকায় এই জলবাহিত রোগের সংক্রমণ বৃদ্ধি হতে পারে বলে আশঙ্কা স্থানীয়দের।

কামারহাটি পুরসভা সূত্রে খবর, জল থেকে সংক্রমণ ছড়িয়েছে। ১,২,৩, ৪, ৫ নম্বর ওয়ার্ডে সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পুরসভার তরফে নল বাহিত জল খেতে নিষেধ করা হয়েছে। কামারহাটি পুরসভার প্রশাসক গোপাল সাহা বলেছিলেন, “কারণ খোঁজা হচ্ছে। বিকল্প পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কেমডি-এর পাইপ লাইনেও সমস্যা হতে পারে। ডায়ারিয়ায় ২ জনের মৃত্য়ু হয়েছে।”

ঘটনায় কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র বলেছিলেন, “ইতিমধ্যেই কামারহাটিতে স্বাস্থ্যদফতরের নির্দেশে বিশেষজ্ঞ দল পৌঁছেছে। আমাদের দলের স্বেচ্ছাসেবকরা তৈরি রয়েছেন। আমার বাড়ির ল্যান্ডলাইন নম্বর হেল্পলাইন হিসেবে খুলে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও আরও দুটো ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। ৩০০ টি শয্য়া বাড়ানো হয়েছে। প্রত্যেক মুহূর্তে আমাদের দলের কর্মীরা কাজ করছেন। আশা করছি দ্রুত এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করা সম্ভব হবে।”

সে সময় হেল্পলাইন নম্বরও খোলা হয়েছিল। সাগর দত্ত মেডিক্যালের এক আধিকারিক বলেছিলেন, যাঁরা ভর্তি হয়েছেন, তাঁদের প্রত্যেকেরই উপসর্গ একই। পেটের যন্ত্রণা, বমি একই উপসর্গ ছিল। বেশিরভাগই বয়স্ক ছিলেন। দূষিত জল থেকেই সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত বলে অনুমান পুরসভার। কামারহাটির সংক্রমণের ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে পানিহাটি ও বরানগর পুরসভা এলাকাতেও।

কিন্তু স্বাস্থ্য দফতর ডায়ারিয়ার তত্ত্ব মানতেই নারাজ। কামারহাটি পুরসভার তরফে বলা হচ্ছে, মূলতঃ ১ থেকে ৫ নম্বর ওয়ার্ডেই বিভিন্ন এলাকায় দেখা গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে জলের নমুনা পরীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। এলাকাবাসীর মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। বিভিন্ন সচেতনামূলক প্রচার হচ্ছে। মাইকিংও করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবরের ভিত্তিতে, সাগরদত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে একশোর বেশি রোগী একই উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আরও পড়ুন: কীভাবে কুকুরের বেল্ট দিয়ে স্ত্রীকে খুন করেন বিপ্লব? ঘটনার পুনর্নিমাণে ধৃতের ফ্ল্যাটেই গোয়েন্দারা

আরও পড়ুন: তৃণমূলের সালিশি সভায় বিজেপি কর্মীকে জমি লিখে দেওয়ার নিদান, না মানায় ভয়ঙ্কর ‘খেসারত’!

 

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla