গ্যাংস্টার ভুল্লারদের এনকাউন্টারকাণ্ডের তদন্তে শহরে পঞ্জাব পুলিশের বিশেষ দল

Newtown Shootout: সাপুরজির আবাসনের পাশাপাশি সল্টলেকের গেস্ট হাউজটিতেও যায় পঞ্জাব পুলিশের সিট।

গ্যাংস্টার ভুল্লারদের এনকাউন্টারকাণ্ডের তদন্তে শহরে পঞ্জাব পুলিশের বিশেষ দল
ফাইল ছবি

কলকাতা: নিউটাউন এনকাউন্টারের ঘটনার তদন্তে শহরে এলো পঞ্জাব পুলিশের বিশেষ তদন্তকারী দল। নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনে বেঙ্গল এসটিএফের সঙ্গে পঞ্জাবের কুখ্যাত দুই গ্যাংস্টারের গুলির লড়াই, এনকাউন্টার —সমস্ত ঘটনার তদন্তে কলকাতায় আসে তারা।

গুলি চালানোর ঘটনার তদন্তে বিধাননগর গোয়েন্দা শাখার দফতরে সোমবার পৌঁছয় পঞ্জাব পুলিশের বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট। এই ঘটনায় যারা তদন্তে রয়েছেন, সেই পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে কথাও বলে তারা। ঘুরে দেখে ঘটনাস্থল। সাপুরজির আবাসনের পাশাপাশি সল্টলেকের গেস্ট হাউজটিতেও যায় পঞ্জাব পুলিশের সিট। ভরত কুমার ও তাঁর স্ত্রী নিউটাউনের চিনারপার্কে যে গেস্ট হাউজে উঠেছিলেন সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজও সংগ্রহ করে বলে সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন: ‘জৈন হাওয়ালা মামলার চার্জশিটে আমার নাম নয়, যশবন্ত সিনহার নাম ছিল’, পাল্টা বিস্ফোরক ধনখড়

প্রসঙ্গত গত ৯ জুন নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনে বেঙ্গল এসটিএফের এনকাউন্টারে মৃত্যু হয় পঞ্জাবের দুই ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ গ্যাংস্টার জয়পাল সিং ভুল্লার ও যশপ্রীত সিংয়ের। পঞ্জাব পুলিশের কাছ থেকে তথ্য পেয়েই সেদিন তল্লাশি অভিযানে যায় বেঙ্গল পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স বা এসটিএফ। টাস্ক ফোর্সের জওয়ানদের এগোতে দেখেই আবাসনের ঘরের ভিতর থেকে গুলি চালাতে থাকে দুষ্কৃতীরা। তা সত্ত্বেও এগিয়ে যায় পুলিশ। আর তখনই দুষ্কৃতীদের গুলিতে আহত হন এসটিএফের ওসি (এক্সপ্লোসিভ) কার্তিক ঘোষ। পুলিশ চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলায় পালানোর পথ পায়নি ভুল্লাররা। মরিয়া হয়ে গুলি চালাতে থাকে তারা। পুলিশ বুঝে যায়, শুধু সাধারণ বন্দুক নয়, আরও অনেক অস্ত্র আছে তাদের কাছে। তখনই পুলিশ পাল্টা গুলি চালাতে শুরু করে। আর তাতেই মৃত্যু হয় দুই গ্যাংস্টারের।

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla