Partha Chatterjee: ‘ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে, সমস্যা হলে ভিতরে আলোচনা করুন’, বার্তা দিলেন পার্থ

Partha Chatterjee: গত কয়েকদিন ধরে প্রকট হয়েছে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব। শুক্রবারই দুই নেতাকে ফোন করেছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিজে।

Partha Chatterjee: 'ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে, সমস্যা হলে ভিতরে আলোচনা করুন', বার্তা দিলেন পার্থ
শুক্রবারই দুই নেতাকে ফোন করেন পার্থ (অলংকরণ- অভিজিৎ বিশ্বাস)

কলকাতা : দলের বাইরে কোনও বিবৃতি দেওয়া যাবে না, সাফ জানালেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। কলকাতা পুরভোটের সময় থেকে দেখা গিয়েছে, ভাবমূর্তি তৈরিতে কতটা তৎপর তৃণমূল। কলকাতার ভোট মিটলেও এখনও রাজ্যের প্রায় সব পুরসভা ভোট বাকি রয়েছে। সব ঠিক থাকলে ফেব্রুয়ারি মাসেই হবে ভোট। আর তার ঠিক আগে তৃণমূলের একেবার প্রথম সারির নেতাদের মধ্যেই অন্তর্দন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে। একদিকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে, সেই ইস্যুতে কল্যাণকে তোপ দেগেছেন কুণাল ঘোষ। স্বাভাবিকভাবেই এই তরজায় অস্বস্তি বেড়েছে শাসকদলের। তাই এবার শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির তরফ থেকে বার্তা দিলেন পার্থ।

শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরে অনেকেই বিবৃতি, পাল্টা বিবৃতি দিচ্ছেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও লিখছেন। এতে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। আমি নিষেধ করেছিলাম। কোনও মন্তব্য থেকে বিরত থাকতে বলেছিলাম। কিন্তু শোনেনি।’ তিনি জানান, শনিবারই শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি বৈঠকে বসেছিল। আর সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, যাঁরা এই ধরনের বিবৃতি দেবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কমিটি কঠোর সিদ্ধান্ত নেবে।

যাঁরা এত ধরে এই ধরনের বিবৃতি দিয়েছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে? পার্থ জানান, তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া যায় কি না, তা কমিটি দেখবে। একের পর এক মন্তব্য করার জন্য, দলের ভাবমূর্তির নষ্ট হচ্ছে বলেও বার্তা দিয়েছেন পার্থ। তিনি বলেন, ‘আমি আবার বলছি, কারও কোনও সমস্যা হলে, দলের ভিতরে আলোচনা করুন। গোটা বিষয়টি দলের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি দেখছে। কমিটি যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেবে।’

এ দিকে, শনিবার কলকাতার ভবানীপুরে দেখা গিয়েছে, একদল তৃণমূল সমর্থক তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। তাঁদের হাতে দেখা যায় কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি বিকৃত করে পোস্টার। তাতে লেখা ‘ধিক্কার’। কোনওটাতে আবার লেখা, ‘মাতাল তোকে জানতে হবে আগামীকে মানতে হবে’। রাস্তায় পোড়ানো হয় কল্যাণের কুশপুতুলও। তবে এই বিক্ষোভের খবর তাঁর কাছে নেই বলে জানিয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘তৃণমূলের কোনও কর্মী এই কাজ করতে পারে না।’

বিতর্ক থামাতে শুক্রবারই আসরে নামেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, শুক্রবার সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ও কুণাল ঘোষ দুজনকেই ফোন করেছিলেন তিনি। সরাসরি ফোন করে বিতর্ক থামানোর আর্জি জানান তিনি। শুক্রবার দুপুরে ফোন করে দুই নেতাকে তিনি সতর্ক করা হয়। তারপরও দুজনকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিতে দেখা যায়।

উল্লেখ্য, অভিষেকের ‘ব্যক্তিগত মত’ মন্তব্যের বিরোধিতা করে মন্তব্য করেছিলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকেই বিতর্কের সূত্রপাত।

আরও পড়ুন : Santanu Thakur: ‘আমি বম্ব ব্লাস্ট করব কোথায় সেটা সময় হলেই জানতে পারবেন’, দলের নেতার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক শান্তনু ঠাকুর

Published On - 5:43 pm, Sat, 15 January 22

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla