শমীকের দাবি সত্যি হলে ফের ২০১৬ সালেই ফিরে যাবে বিজেপি!

অন্তত ৩৩ জন বিজেপির বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বলে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। বিষয়টি নিয়ে আজ জানতে চাওয়া হলে সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্য বিজেপি সহ-সভাপতি

শমীকের দাবি সত্যি হলে ফের ২০১৬ সালেই ফিরে যাবে বিজেপি!
ফাইল ছবি
ঋদ্ধীশ দত্ত

|

Jun 05, 2021 | 11:53 PM

কলকাতা: রাজ্যে বর্তমানে বিজেপি বিধায়দের সংখ্যা ৭৫। ভোটে জয়লাভ করার পরও দুই বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ায় কমেছে গেরুয়া শিবিরের বিধায়ক সংখ্যা। বিরোধী শিবিরের দলনেতা নির্বাচিত হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এই অবস্থায় অন্তত ৩৩ জন বিজেপির বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বলে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। বিষয়টি নিয়ে আজ জানতে চাওয়া হলে সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্য বিজেপি সহ-সভাপতি শমীক ভট্টাচার্য।

বিজেপি নেতার কাছে শনিবার বিষয়টি নিয়ে জানতে চাওয়া হলে কিছুটা গুরুগম্ভীর হয়ে পড়েন তিনি। সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে কিছুটা রুষ্ট কণ্ঠে বলে ওঠেন, “আমাদের কাছে তো খবর আছে ৭২ জন বিধায়ক তৃণমূলে চলে যাচ্ছে।” স্পষ্টত কিছুটা খোঁচা মারার কায়দায় কথাটা বলেন তিনি। অর্থাৎ তর্কের খাতিরে যদি ধরে নেওয়া যায় তিনি সত্যিই বলছেন, তবে বাংলায় বিজেপির বিধায়ক থাকবে ৩ জন। যা গত বিধানসভায় বিজেপির আসন সংখ্যা ছিল।

পালটা শমীকের দাবি, এখনও তৃণমূলের বহু নেতা বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। এই প্রসঙ্গে শমীককে বলতে শোনা যায়, “লটারি পেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক উত্তরণ হয়নি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানে পৌঁছেছেন সেটা তাঁর কষ্টার্জিত জায়গা। ফলে কে কোথায় আছেন, কার সঙ্গে কার যোগাযোগ রয়েছে, সেটা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিলক্ষণ জানেন।”

অন্যদিকে ভোটের পর আজ বাঁকুড়া সফরে গিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কিন্তু সেই সফরের আগেই রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য ফেলে দিয়েছেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। বাঁকুড়ার বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ত্যাগ করেছেন তিনি। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, দিলীপের আগমনবার্তা আসার পরই ওই গ্রুপ ত্যাগ করেন সৌমিত্র। ফলে জল্পনা জাল বোনা শুরু হয়েছে তাঁকে নিয়েও। যদিও সৌমিত্রর প্রসঙ্গে শমীক সাফ করে দেন, তাঁকে নিয়ে বিতর্কের কোনও অবকাশ নেই।

আরও পড়ুন: তৃণমূলে ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ চালু, মন্ত্রীদের ছাড়তে হবে লালবাতি গাড়ি, কড়া নির্দেশ মমতার

তবে কেবল সৌমিত্র নয়। ‘বেসুরো’ প্রবীর ঘোষাল-সহ জল্পনার কেন্দ্রে থাকা মুকুল রায়ের প্রসঙ্গেও মুখ খোলেন শমীক। মুকুল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “রায় পরিবারকে এই পরিস্থিতির মধ্যে রাজনীতিতে টেনে আনা ঠিক না।” অন্যদিকে প্রবীর ঘোষাল সম্পর্কে তাঁর বক্তব্য, “ওনার আবেগতাড়িত বক্তব্য নিয়ে কিছু বলব না। আমরা তাঁর পরিবারের পাশে আছি।” যদিও শেষে শমীক যোগ করেছেন, “বিজেপি কাউকে জোর করে দলের আনেনি। বিজেপি তার আর্দশ থেকে সরেনি।”

আরও পড়ুন: নতুন মুখ থেকে পোড় খাওয়া রাজনীতিক: তৃণমূলের ‘টিম লিডার’ কারা একনজরে

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla