অতিবর্ষণ থামবে কবে? আশার বাণী শোনাতে পারছে না আলিপুর আবহাওয়া দফতর

West Bengal Weather Update: আপাতত রৌদ্রজ্জ্বল সকাল দেখতে পাওয়ার কোনও আশা নেই।

অতিবর্ষণ থামবে কবে? আশার বাণী শোনাতে পারছে না আলিপুর আবহাওয়া দফতর
হাওয়া অফিস সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, সর্বাধিক বৃষ্টিপাত হবে ৬ এবং ৭ সেপ্টেম্বর। উপকূলের জেলাগুলির মধ্যে পূর্ব মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকায় হালকা থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

কলকাতা: প্রথমে নিম্নচাপ, এ বার ঘূর্ণাবর্ত। বাংলার আকাশ থেকে দুর্যোগ কাটার কোনও সম্ভাবনা এখনও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। অতিবৃষ্টির জেরে ইতিমধ্যেই রাজ্যে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে বুধবার বিকেলে আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে যে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে তাতে স্পষ্ট, আপাতত রৌদ্রজ্জ্বল সকাল দেখতে পাওয়ার কোনও আশা নেই।

হাওয়া অফিস সূত্রে জানানো হয়েছে, উত্তর বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন এলাকার উপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত আছে। এছাড়াও একটি মৌসুমী অক্ষরেখা রয়েছে যা শ্রীনিকেতন থেকে ডায়মন্ড হারবার হয়ে উত্তর পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। যার ফলে প্রচুর পরিমাণে জলীয়বাষ্প দক্ষিণবঙ্গের উপরে এসে পড়ছে। মৌসুমী অক্ষরেখা এবং ঘূর্ণাবর্ত, এই দুটির প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলাতে ৬ অগস্ট পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির বজ্রপাত অব্যাহত থাকবে। এর মধ্যে বেশকিছু জেলায় ভারী বৃষ্টির সর্তকতা জারি করা হয়েছে।

বুধবার সারারাত জুড়ে উপকূলবর্তী জেলা, অর্থাৎ ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর এবং এর লাগোয়া জেলা হাওড়া, হুগলিতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। এ বাদে বাকি জেলাগুলি যেমন কলকাতা, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম এই জেলাগুলোয় দুই এক জায়গায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আগামিকাল বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমলেও দুই মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার কিছু জায়গায় ভারী বৃষ্টি হবে। এর ফলে নদীতে জলস্তর বৃদ্ধি পেতে পারে। আরও পড়ুন: ‘২ লক্ষ কিউসেক জল ছেড়েছে ডিভিসি’, বাংলার বন্যা নিয়ে মোদীকে চিঠি মমতার

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla