কীভাবে অভিষেকের সঙ্গে পরিচয় রুজিরা নারুলার, কয়লা কাণ্ডে নাম জড়াল কোন সূত্রে?

কে রুজিরা নেরুলা? কয়লা মামলায় কীভাবে উঠে এল তাঁর নাম?

  • TV9 Bangla
  • Published On - 22:40 PM, 22 Feb 2021
who is rujira narula and how her name attached with coal scam
গ্রাফিক্স- অভীক দেবনাথ

কলকাতা: রুজিরা নারুলা (Rujira Narula)। ভোটমুখী বাংলায় রবিবার বিকেল থেকে আচমকাই এই নামটি নিয়ে শুরু হয়েছে জোর চর্চা। ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক-জায়ার দোরগোড়ায় এখন সিবিআই। কয়লা দুর্নীতি (Coal Scam) মামলায় তাঁকে নোটিস দিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু রাজনীতির পরিসর ও প্রচারের আলো থেকে দূরে থাকা রুজিরার নাম কীভাবে জড়াল এই কয়লা কাণ্ডে? কীভাবেই বা যুব তৃণমূল সভাপতির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তৈরি হয়?

কয়লা কাণ্ডে যখন অভিষেক পত্নীর নাম ঘিরে রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় শুরু হয়েছে, তখন ইন্টারনেট বারবার ঘেঁটেও পঞ্জাবি পরিবারের বেড়ে ওঠা রুজিরা সম্পর্কে তেমন কোনও তথ্য মেলেনি। কীভাবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে পরিচয় হল রুজিরার? কবে বিয়ে হয় তাঁদের? বিয়ের আগে রুজিলার পরিবার কেমন ছিল? সেসব তথ্য দিতেই এই প্রতিবেদন।

রুজিরা নারুলার পরিচয়

সরকারি নথি বলছে, রুজিরা আদতে থাইল্যান্ডের নাগরিক। বাবার নাম গুরশরন সিং আহুজা। তবে সেটা ওসিআই কার্ডে। তাতে তাঁর ঠিকানা দিল্লির রাজৌরি গার্ডেন। ২০০৯ সেলের ১৪ নভেম্বর প্যানকার্ড পান রুজিরা। বিয়ের পর ওভারসিজ সিটিজেন অফ ইন্ডিয়া কার্ডের (ওসিআই) জন্য আবেদন করেন তিনি। তবে ২০১০ সালের ৮ জানুয়ারি রুজিরার পিআইও কার্ড দিয়েছিল তাইল্যান্ডের ভারতীয় দূতাবাস। সেখানে তাঁর বাবার নামের জায়গায় লেখা আছে নিফন নারুলা! বিভিন্ন সূত্র মারফত জানা গিয়েছে নারুলা পরিবারের ব্যাংককে হোটেল ব্যবসা ছিল। পরে আমদান-রফতানি-সহ অন্য আরও ব্যবসায় যুক্ত নারুলা পরিবার। সেই সঙ্গে অলঙ্কার ও সোনার ব্যবসাও রয়েছে তাঁদের।

অভিষেকের সঙ্গে পরিচয়

দিল্লিতে পড়াশোনার সময় সম্ভবত অভিষেকের সঙ্গে পরিচয় হয় নারুলার। তখন যুব তৃণমূলের সভাপতি প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে যুক্ত নন। ২০১৩ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিয়ে হয় তাঁদের। মমতা ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতারা বলেন, অভিষেক-রুজিরা সম্পর্ক নিয়ে শুরুতে কিছুটা আপত্তিই ছিল তৃণমূল নেত্রীর। পরে অবশ্য অভিষেকের সিদ্ধান্তই মেনে নেন। অভিষেক ঘনিষ্ঠদের দাবি, রুজিরার সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্ক মধুর। সেটার প্রমাণও মেলে এক সভায় মমতার মন্তব্য থেকেই। ‘১৯ এর লোকসভা ভোটের সময় এক সভায় বিজেপির বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য ছিল,‘অভিষেক যাকে বিয়ে করেছে, ও বাচ্চা মেয়ে। দিল্লিতে প্রেম করত ওরা। ও পাঞ্জাবি মেয়ে। ও (অভিষেক) তো আপনাদের এ সব বলবে না। প্রেম করেছে, বিয়ে দিয়েছি আমরা। ওই মেয়েটার পিছনেও পড়েছে।’ তারপরেই কেন্দ্রের সিএএ-এনআরসির বিরুদ্ধে তোপ দেগে তৃণমূল নেত্রী নিজের পরিবারের উদাহরণ টেনেছিলেন। বলেছিলেন, “প্রেম করতে গিয়ে কেউ জিজ্ঞেস করবে, তোমার বাবার নাম কী? তুমি কবে জন্মেছো? কোথায় থাকো? প্রেম করেছে, বিয়ে করেছে, আমরা নেমন্তন্ন খেয়েছি।”

বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে অভিষেক পত্নী

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপোর স্ত্রী। তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পত্নী। রাজ্য রাজনীতির হেভিওয়েট পরিবারের সদস্য। তবে, প্রচারের আলো থেকে বরাবর দূরেই থেকেছেন রুজিরা। এমনকি বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারের পুজোআচ্চা বা সামাজিক অনুষ্ঠানেও সেভাবে দেখা যায়না। এহেন রুজিরার নাম প্রথমবার শিরোনামে আসে ২০১৯-এর মার্চে, লোকসভা ভোটের আবহে। রুজিরার বিরুদ্ধে মামলা করে শুল্ক দফতর। ঠিক কী অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে?

আরও পড়ুন: অভিষেকের শ্যালিকাকে তিন ঘণ্টার ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদ, কী বলছে সিবিআই

২০১৯ সালের ১৫-১৬ মার্চের মধ্যরাতে এয়ারওয়েজের বিমানে কলকাতায় নামেন রুজিরা। সঙ্গে ছিলেন বোন মেনকা গম্ভীর। শুল্ক অফিসাররা তাঁদের মালপত্র তল্লাশি করতে চাইলে বাধার অভিযোগ ওঠে। বিরোধীরা অভিযোগ করেন নিয়ম বহির্ভূতাবে তাঁর কাছে সোনা পেয়েছিলেন কাস্টমসের অফিসাররা। বিরোধীদের আরও অভিযোগ, পুলিশ গিয়ে রুজিরাদের ছাড়িয়ে আনে। এদিকে বিমানবন্দর থানায় শুল্ক দফতরের বিরুদ্ধে পাল্টা হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করেন রুজিরা। তাতে আবার পাল্টা অভিযোগ করে শুল্ক দফতর। সে বছরের মার্চ মাসেই সরকারকে দেওয়া তথ্যে অসঙ্গতির অভিযোগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে নোটিস দেওয়া হয় রুজিরাকে। হাইকোর্টে রুজিরা বনাম কাস্টমসের মামলা এখনও জারি থাকলেও আবার প্রচারের অন্তরালে চলে যান তিনি। কিন্তু দুয়ারে একুশের বিধানসভা ভোট। সেই হাই ভোল্টেজ যুদ্ধের আবহে ফের একবার খবরের শিরোনামে উঠে এলেন অভিষেক পত্নী।

কয়লা মামলা ও নারুলা

এবারের ভোটের প্রচার যুদ্ধ জুড়ে অনেকটাই রয়েছেন তৃণমূলত্যাগী শুভেন্দু অধিকারী বনাম যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কিছুদিন আগে এমনই এক রাজনৈতিক সভা থেকে ‘ম্যাডাম নারুলা’র নাম করে তোপ দাগেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু। এরমধ্যে রবিবার বিকেলে অভিষেকের বাড়িতে সিবিআই হানার পর ফের শিরোনামে উঠে এলেন রুজিরা নেরুলা। কয়লাকাণ্ডে রবিবারই রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় নারুলা ও তাঁর বোন মেনকা গম্ভীরকে নোটিস পাঠায় কেন্দ্রীয় সংস্থা। তদন্তকারীদের নজর দু’জনের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেনে। এদিকে মঙ্গলবারই সিবিআইয়ের মুখোমুখি হবেন অভিষেকের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় মেল করেছেন সিবিআইকে। তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর, দুই বোনের বয়ানে কতটা সঙ্গতি রয়েছে তার উপর ভিত্তি করে এগোবে কয়লাকাণ্ডের তদন্ত।