PM Narendra Modi: ‘বিজ্ঞান ও উদ্ভাবনী শক্তির উপর ভরসাতেই মিলেছে সাফল্য’, ১০০ কোটি টিকাকরণের কৃতিত্ব দেশবাসীকেই দিলেন প্রধানমন্ত্রী

PM Narendra Modi: প্রধানমন্ত্রী বলেন, "১০০ কোটি টিকাকরণের এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ কারোর একার প্রচেষ্টায় নয়, ১৩০ কোটি জনগণের মিলিত উদ্যোগেই সম্ভব হয়েছে।"

PM Narendra Modi: 'বিজ্ঞান ও উদ্ভাবনী শক্তির উপর ভরসাতেই মিলেছে সাফল্য', ১০০ কোটি টিকাকরণের কৃতিত্ব দেশবাসীকেই দিলেন প্রধানমন্ত্রী
কোন গোপন কথা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী? ফাইল ছবি।

নয়া দিল্লি: টিকাকরণে সেঞ্চুরি করেছে দেশ। ১০০ কোটি টিকাকরণের এই সাফল্যকে দেশবাসীর সঙ্গে ভাগ করে নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। এ দিন জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ১০০ কোটি টিকাকরণের (100 Crore COVID Vaccination) লক্ষ্যপূরণের জন্য দেশের ১৩০ কোটি জনগণকেই ধন্যবাদ জানালেন।

এ দিনের বক্তব্যের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী বলেন, “১০০ কোটি টিকাকরণের এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ কারোর একার প্রচেষ্টায় নয়, ১৩০ কোটি জনগণের মিলিত উদ্যোগেই সম্ভব হয়েছে। এই সাফল্য গোটা দেশের, দেশের ১৩০ কোটি জনগণের। এটা কেবল একটি সংখ্যা নয়। এটি এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা, এক নতুন ভারতের সূচনা হল গতকাল। এটা সেই নতুন ভারত, যা নিজেদের সংকল্পকে পূরণ করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আজ ভারতের টিকাকরণ কর্মসূচিকে গোটা বিশ্বের টিকাকরণ কর্মসূচির সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে। যেভাবে আমাদের দেশে দ্রুতগতিতে ১০০ কোটি করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে, তার প্রশংসাও করা হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। কিন্তু এই বিশ্লেষণে একটা কথা অনেক সময়ই ভুলে যাওয়া হয় যে এর সূচনা কোথা থেকে হল। বিশ্বের অধিকাংশ দেশেই দীর্ঘ সময় ধরেই টিকা উৎপাদন, গবেষণা চলছে। ভারতও এতদিন এই দেশগুলির উপরই নির্ভরশীল ছিল। সেই কারণেই করোনা সংক্রমণ যখন মহামারীর রূপ নিল, তখন ভারতের উপর একাধিক প্রশ্ন উঠেছিল যে ভারত কী এই মহামারীর সঙ্গে লড়তে পারবে? এই বিপুল জনসংখ্যার মানুষের জন্য টিকা কেনার টাকা কোথা থেকে আসবে, ভারত আদৌই করোনা টিকা পাবে কিনা, পেলেও এত সংখ্যক জনগণকে টিকা দিতে পারবে কিনা ইত্যাদি। আজ ভারত ১০০ কোটি টিকাকরণের মাধ্যমে সেই সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছে। দেশেই টিকা উৎপাদন করা হয়েছে এবং তা দেশবাসীকে বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে।”

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “১০০ কোটি টিকাকরণের আরও একটি ওষুধ প্রস্তুতির পীঠস্থান হিসাবে ভারত যে স্বীকৃতি পেয়েছে, সেই পরিচয় আরও মজবুত হবে। গোটা বিশ্বই বর্তমানে ভারতের এই শক্তিকে দেখছে এবং উপলব্ধি করছে।” তিনি জানান, ভারতের টিকাকরণ কর্মসূচি সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা প্রয়াসের উপর ভিত্তি করেই পরিচালিত হচ্ছে।

করোনা সংক্রমণের শুরুতে ভারতকে ঘিরে যে নানা সংশয়, প্রশ্ন তৈরি হয়েছিল, সেই বিষয়টি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “করোনা সংক্রমণের শুরুতে বিধিনিষেধ নিয়েও অনেকে নানা প্রশ্ন তুলেছিলেন। ভারতের এই বিপুল সংখ্যক জনগণের উপর কড়া স্বাস্থ্যবিধি আরোপ করা যাবে না, একথাও বলেছিলেন অনেকে। কিন্তু গণতান্ত্রিক দেশ হিসাবে আমরা সকলের চাহিদাকেই প্রাধান্য দিই। সেই কারণই সবকা সাথ, সবকা বিকাশ- এই নীতি অনুসরণ করে চলি আমরা।”

টিকাকরণ নিয়ে যে নানা ভ্রান্ত ধারণা ও দ্বিধা রয়েছে, সেই প্রসঙ্গে নমো বলেন, “বিশ্বের বড় বড় দেশ এখনও টিকাকরণ নিয়ে জনগণের মধ্যে যে দ্বিধা রয়েছে, তার সঙ্গে লড়াই করছে। কিন্তু সেখানেই ভারত ১০০ কোটি টিকাকরণের সাফল্যের মাধ্যমে গোটা বিশ্বকে দেখিয়ে দিল যে কীভাবে টিকাকরণ নিয়ে সংকোচের সঙ্গে লড়াই করতে হয়। বিজ্ঞান ও উদ্ভাবনী শক্তির উপর ভরসা রেখেই আজ ভারত এই সাফল্যকে ছুঁতে পেরেছে।”

একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জানান, দেশের টিকাকরণ কর্মসূচিতে কোনওভাবেই ভিআইপি সংস্কৃতির প্রভাব পড়তে দেওয়া হয়নি। সকলকেই সমানভাবে গণ্য করা হয়েছে। টিকাকরণের ক্ষেত্রে কাউকে অগ্রগণ্যতা দেওয়া হয়নি তার নাম বা পরিচয়ের জন্য। মেক ইন ইন্ডিয়া কর্মসূচিকে আরও শক্তিশালী করার ডাক দিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, “একটা সময় ছিল, যখন আমরা দেখতাম মেড ইন এই দেশ, সেই দেশ। কিন্তু আজ দেশবাসী মেড ইন ইন্ডিয়ার জোর বুঝতে পেরেছেন। আমি সকল ভারতীয়ের কাছে অনুরোধ করছি, যথাসম্ভব মেড ইন ইন্ডিয়া পণ্য কিনুন, ভোকাল ফর লোকাল কর্মসূচিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যান।”

দেশের অর্থনীতি ও বিনিয়োগ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “দেশের অর্থনীতি নিয়ে সকলেই আশাবাদী। আজ কেবল রেকর্ড পরিমাণ বিনিয়োগই আসছে, তাই নয়, একইসঙ্গে দেশের যুবসম্প্রদায়ের জন্য প্রচুর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।”

ভাষণের শেষভাগে প্রধানমন্ত্রী ফের একবার সকলকে করোনা নিয়ে সতর্ক করে বলেন, “টিকাকরণে ভারত এগিয়ে গেলেও করোনার বিপদ এখনও কাটেনি। যতদিন না করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ শেষ হচ্ছে, ততদিন অস্ত্র নামালে চলবে না। সকলেই মাস্ক পরুন, উৎসবের মরসুমে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। যারা এখনও করোনা টিকা নেননি, তারাও সমস্ত ভয় দূর করে এগিয়ে আসুন এবং করোনা টিকা নিন।”

আরও পড়ুন: Corona Outbreak: মাইল ফলক ছোঁয়ার পরের দিনই আরও কমল সংক্রমণ! তবে চিন্তা বাড়াচ্ছে এই রাজ্য

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla