Neelakurinji: প্রকৃতির বিরল সাক্ষী! এক যুগ পর নীলকুরুঞ্জি দর্শন মিলল কেরালায়!

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: dipta das

Updated on: Aug 03, 2021 | 8:13 AM

কোভিড অতিমারির কারণে পর্যটকদের পাহাড়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে নীলকুরুঞ্জি ফুলকে ইডুক্কির বাসিন্দারা শুভ বলে মনে করেন।

Neelakurinji: প্রকৃতির বিরল সাক্ষী! এক যুগ পর নীলকুরুঞ্জি দর্শন মিলল কেরালায়!
কেরালার ইডুক্কি জেলার শালোম পাহাড়ে একধরনের বিরল প্রজাতির ফুল ফোটে

কতই রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়…। প্রকৃতির রঙ্গের কথা বলছি। সারা ভারতে কতই যে অপূর্ব ও নৈসর্গিক শোভা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, তা সারা বিশ্বের আর কোথাও খুঁজলে পাওয়া যাবে না। বিরল ঘটনার নজির রয়েছে এই ভূভারতেও। এক যুগ অন্তর এমন প্রাকৃতিক শোভা দেখার ভাগ্য হয় কেরালাবাসীদের। মুন্নারের এরাভিকুলাম জাতীয় উদ্যানে নীল-সাদা নীলকুরুঞ্জি ফুলে ভরে উঠেছে। সম্প্রতি সেই সেই ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। কেরালার ইডুক্কি জেলার শালোম পাহাড়ে একধরনের বিরল প্রজাতির ফুল ফোটে। দূর থেকে মনে হবে, বেগুনি-নীল-সাদা কুরুঞ্জি ফুলের চাদর গোটা শালোমকুন্নুতে ঢাকা পড়ে গিয়েছে। কোভিডের কারণে এই উদ্যান বন্ধ থাকায় আপাতত সেই বিরল দৃশ্য দেখার সুযোগ পাবেন না পর্যটকরা। তবে এই বিরল প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে দেশ-বিদেশ থেকে বহু পর্যটকের আগমন ঘটে এখানে।

ঈশ্বরের আপন দেশে বেগুনি-নীল ফুলের রঙের ছটা দেখে মনে হতে পারেব কোনও শিল্পী তাঁর তুলির ছোঁয়ায় সুন্দর ও যত্ন করে ক্যানভাসে ফুটিয়ে তুলেছে। Strobilanthes Kunthiana, মালায়লাম ও তামিল ভাষায় নীলকুরুঞ্জি ও কুরুঞ্জি নামেও পরিচিত।তামিলনাড়ু ও কেরালার পশ্চিমঘাট পাহাড়ের শোলা জঙ্গলে এই বিরল ফুলের ঝোপ দেখতে পাওয়া যায়। নীলগিরি পাহাড়ে এই বিরল ফুল দেখতে পাওয়া যায় বলেই এর নাম হয়েছে নীলকুরুঞ্জি।

কোভিড অতিমারির কারণে পর্যটকদের পাহাড়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে নীলকুরুঞ্জি ফুলকে ইডুক্কির বাসিন্দারা শুভ বলে মনে করেন। কোভিড পরিস্থিতির আগে, পাহাড়ের যেখানে যেখানে এই বিরল ফোটে, সেখানে যাওয়ার জন্য পর্যটকদের অনুমতি দিয়েছিল বনদপ্তর।

গত মাসে, কিঝাককেথিল ও পুতত্তাদি পাহাড়ে কুরুঞ্জির বিচ্ছিন্নভাবে ফুল ফোটার দৃশ্য দেখা গিয়েছিল। গত বছর, পশ্চিমঘাটের পুষ্পকান্দাম আনাক্কারা মেট্টু পাহাড়, তামিলনাড়ু ও মুন্নারের কাছে পুট্টাদির সীমান্ত নীলকুরুঞ্জি ফুলের শোভার সাক্ষী থেকেছিল।বিশেষজ্ঞদের মতে, আসলে এই ফুলগুলি নীলকুরুঞ্জি হলেও তা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। সাধারণত পশ্চিমঘাট পাহাড়ের গায়ে বিভিন্ন ঋতুতে এই বিরল প্রজাতির ফুলের চাদর দেখতে পাওয়া যায়।

তথ্য অনুযায়ী, ভারতে প্রায় ৪৬টি প্রজাতির নীলকুরুঞ্জি ফুল দেখতে পাওয়া যায়। আর প্রত্যেক প্রজাতিই পশ্চিমঘাট পাহাড়ের শোলা বনে দেখতে পাওয়া যায়। পশ্চিমঘাট পাহাড়ের প্রায় ৩০টি স্পটে এই বিরল ফুলের বাসস্থান। সাধারণত এই বিরল ফুল ১২ বছর অন্তর ফোটে। এবছর যেখানে যেখানে ফুলের শোভা দেখতে পাওয়া যাচ্ছে, ১২ বছর আগে সেই সব জায়গাতেই কুরুঞ্জি ফুল ফুটেছিল। জানা গিয়েছে, স্ট্রোবিল্যান্থেস কুন্থিয়ানা নামক প্রজাতির ফুল ফোটার জন্য ১২ বছর সময়ের প্রয়োজন। ২০২১ সালের পর ফের ২০৩৩ সালে শোলা জঙ্গলে দেখা যাবে এই রঙিন নীলকুরুঞ্জি ফুল।

২০০৬ সালে, তামিলনাড়ু ও কেরালায় প্রথম নীলকুরুঞ্জি ফুল দেখা গিয়েছিল। পরে ২০১৬ সালে ফের এই অভূতপূর্ব ফুলের শোভা নজরে এসেছিল। ১২ বছর পর এই ফুল দেখতে পাওয়ায় জুলাই-অগস্ট মাসে বেশ সতর্ক থাকে রাজ্য সরকার। ফুলের শোভা দেখতে বহু পর্যটকের ভিড় হলেও বনদপ্তরের পক্ষ থেকে সুরক্ষিতও সতর্কভাবে পুরোটা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। বিরল ফুলের স্মরণে রাজ্য সরকার একটি ডাকটিকিট প্রকাশ করেছে ও এই বছরটি কুরুঞ্জির বছর হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, মুন্নারেও সর্বশেষ কুরুঞ্জি ফুল ফুটেছিল ২০০৬ সালে ঠিক ১২ বছর পর ২০১৮ সালে একই জায়গায় এই বিরল ফুল ফুটতে দেখা যায়। সুতরাং পরবর্তী ফুলের মরসুম অনুযায়ী ২০৩৯ সালে ফের মুন্নারে এই স্বর্গীয় ফুল দেখার সাক্ষী থাকবে পর্যটক ও স্থানীয়রা।

আরও পড়ুন: বর্ষাতেও ট্রেকিং! দেশের সেরা মনসুন ট্রেকের সন্ধান রইল এখানে…

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla