TOKYO OLYMPICS 2020 : “আমি মরে গেলে কে দায়িত্ব নেবে?” অভিযোগ মেদভেদেভের, শুরু নতুন বিতর্ক

ফগনিনি আম্পায়ারকে বারবার এই দ্বিতীয় মেডিক্যাল ব্রেক নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করলেও, তা গ্রাহ্য হয়নি। প্রসঙ্গত, ম্যাচটা জিতেই ফিরেছেন মেদভেদেভ। ফগনিনিকে ৬-২, ৩-৬, ৬-২ সেটে হারিয়ে দিয়েছেন তিনি।

TOKYO OLYMPICS 2020 : আমি মরে গেলে কে দায়িত্ব নেবে? অভিযোগ  মেদভেদেভের, শুরু নতুন বিতর্ক
গরমে কাহিল হয়ে কোর্টেই শুয়ে পড়লেন মেদভেদেভ

টোকিওঃ তীব্র গরম। সূর্যোদয়ের দেশে এবার প্রতিযোগীদের সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষের নাম গরম। কয়েকদিন আগেই এই নিয়ে সরব হয়েছিলেন নোভাক জকোভিচ। আর এবার ম্যাচ চলাকালীন গরমে ক্লান্ত হয়ে আম্পায়ারের কাছে অভিযোগ জানালেন মেদভেদেভ। আম্পায়ার মাইকে স্পষ্ট শোনা যায়, মেদভেদেভ বলছেন, “আমি মরে গেলে কে দায়িত্ব নেবে?” আরও একবার ফের আলোচনায় টোকিও গরম।

কি ঘটেছিল এদিন? ইতালির ফগনিনির বিরুদ্ধে চলছিল ম্যাচ। টোকিও-র তাপমাত্রা তখন ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে।তবে আবহাওয়ার বিভিন্ন ওয়েবসাইট বলছিল, তাপমাত্রার অনুভূতি ছিল ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মত। তারমধ্যে আর্দ্রতা ৭৯%। শরীর যেন নিংড়ে নিচ্ছিল মেদভেদেভের।রুশ অলিম্পিক কমিটির এই টেনিস তারকা তখন খেলা তো দূর অস্ত। দাঁড়াতেই পারছিলেন না। রাশিয়ার আবহাওয়ার সঙ্গে যে বিস্তর ফারাক। একসময় যেন মেডভেদেভের মনে হচ্ছিল প্রতিপক্ষফগনিনি নন, টোকিওর দাবদাহ।

গরমে ২ বার মেডিক্যাল ব্রেক নেন মেদভেদেভ। নিয়ম একবার। সেখানে দুবার নেন মেদভেদেভ। দ্বিতীয়বার যখন মেডিকেল ব্রেকের যখন আবেদন জানাচ্ছেন, তখন আম্পায়ার জিজ্ঞাসা করেন,”আবার মেডিক্যাল ব্রেক কেন?” মেদভেদেভের উত্তর ছিল, “আমি খেলা শেষ করলবই। কিন্তু তারপর যদি আমার মৃত্যু হয়, কে দায়িত্ব নেবেন?” বলেই সাইডলাইনে শুয়ে পড়েন। ফগনিনি আম্পায়ারকে বারবার এই দ্বিতীয় মেডিক্যাল ব্রেক নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করলেও, তা গ্রাহ্য হয়নি। প্রসঙ্গত, ম্যাচটা জিতেই ফিরেছেন মেদভেদেভ। ফগনিনিকে ৬-২, ৩-৬, ৬-২ সেটে হারিয়ে দিয়েছেন তিনি।

আর এখানেই উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন, টোকিও-র এই তীব্র গরমে কিভাবে সম্ভব খেলা? যখন অসুস্থ হয়ে পড়ছে খেলোয়াড়রা। টেনিস থেকেই আয়োজকদের কাছে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার প্রচন্ড গরমে খেলার সূচি পরিবর্তন করতে বলা হল। প্রথমবার যিনি আবেদন করেছেন, তিনি নোভাক জকোভিচ। জোকারের আবেদন ছিল, এই গরমে খেলা মারাত্মক। সন্ধেরবেলায় খেলার সূচি দেওয়া হোক।    শেষপর্যন্ত কি মানা হবে আবেদন?

 

অলিম্পিকের আরও খবর পড়তে ক্লিক করুনঃ টোকিও অলিম্পিক ২০২০

 

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla