Rumana Sultana: উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়া রুমানা তাক লাগালেন সর্বভারতীয় মেডিকেল পরীক্ষাতেও, স্কোর ৯৯.৯২%

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: সৈকত দাস

Updated on: Nov 03, 2021 | 11:05 PM

NEET 2021: উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়ার পর এবার সর্বভারতীয় ডাক্তারি পরীক্ষাতেও তাক লাগালেন মুর্শিদাবাদের কান্দির রুমানা সুলতানা (Rumana Sultana)। ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এনট্রান্স টেস্ট (NEET) ইউজি পরীক্ষায় সুলতানার স্থান ১,০৫৬ ।

Rumana Sultana: উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়া রুমানা তাক লাগালেন সর্বভারতীয় মেডিকেল পরীক্ষাতেও, স্কোর ৯৯.৯২%
রুমানা সুলতানা। নিজস্ব চিত্র।

মুর্শিদাবাদ: উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়ার পর এবার সর্বভারতীয় ডাক্তারি পরীক্ষাতেও তাক লাগালেন মুর্শিদাবাদের কান্দির রুমানা সুলতানা (Rumana Sultana)। ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এনট্রান্স টেস্ট (NEET) ইউজি পরীক্ষায় সুলতানার স্থান ১,০৫৭ । তাঁর স্কোর ৯৯.৯২ শতাংশ। মেয়ের এমন সাফল্যে স্বাভাবিকভাবে খুশির হাওয়া পরিবারে। খুশি তাঁর শিক্ষকেরা।

৫০০-র মধ্যে ৪৯৯ পেয়ে ২০২১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় রাজ্যে প্রথম হয়েছিলেন মুর্শিদাবাদের কান্দির রাজা মণীন্দ্র চন্দ্র গার্লস হাই স্কুলের ছাত্রী রুমানা সুলতানা। ২০১৯ সালে রোমানা মাধ্যমিক পরীক্ষাতেও পঞ্চম স্থান অধিকার করেছিলেন। এবার উচ্চ মাধ্যমিকে একমাত্র প্রথম ছিলেন বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী রুমানা।

রুমানার বাবা রবিউল আলম এবং মা সুলতানা পারভিন, দুজনেই শিক্ষক। রবিউল সাহেব ভরতপুর গয়েশাবাদ অচলা বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক। মুর্শিদাবাদের শিক্ষক দম্পতির মেয়ে রুমানা মাধ্যমিকে পেয়েছিলেন ৬৮৭। আর উচ্চ মাধ্যমিকে তাঁর প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৯। এবার নিজের ডাক্তার হওয়ার লক্ষ্যপূরণেও এক পা এগিয়ে গেলেন তিনি। জানালেন, দিল্লির এইমসে পড়তে চান।

উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়ার পর রুমানার প্রতিক্রিয়া ছিল, “পরীক্ষা হলে খুশি হতাম। তবে পেয়েছি যখন, আমি সন্তুষ্ট।” এরপর কী ভাবছ? প্রথমার উত্তর, “বায়োলজি নিয়ে পড়ার ইচ্ছা। তবে মেডিক্যালে সুযোগ পেলে চলে যাব।” এবার সেই লক্ষ্যে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলেন তিনি।

উল্লেখ্য, সোমবার প্রকাশিত হয়েছে ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এনট্রান্স টেস্ট (NEET) ইউজি-এর ফল। সেই নিট ইউজি পরীক্ষায় রাজ্যের মধ্যে প্রথম হয়েছেন বাঁকুড়া জেলার বাসিন্দা সৌম্যদীপ হালদার। বাঁকুড়ার একটি বেসরকারি ইংরেজী মাধ্যম স্কুলের ছাত্র সৌম্যদীপ। ২০১৯ সালে মাধ্যমিক পাশ করেন তিনি। ৯৫ শতাংশ নম্বর পেয়ে ভর্তি বিজ্ঞান বিভাগে। দ্বাদশেও দারুণ ফলাফল। ১০+২-তে ৯৫.৬% নম্বর পান সৌম্যদীপ।

এই সর্বভারতীয় পরীক্ষায় সফল হওয়ার পরে দেশের প্রথম সারির মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস (MBBS) কোর্সে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পান পড়ুয়ারা। পরীক্ষার্থীরা এই পরীক্ষায় যত নম্বর পান, তার ওপর ভিত্তি করে এনপিএ অল ইন্ডিয়া কোটার ১৫ শতাংশ সিটের একটি মেধা তালিকা তৈরি করে। এর পাশাপাশি এনটিএ রাজ্য কোটার বাকি ৮৫ শতাংশ আসনের কাউন্সেলিং করে। রাজ্যের যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা বিভাগ অনুসারে প্রকাশ করা হয়। আর তার ভিত্তিতে রাজ্য নিজেদের মেধা তালিকা বানাবে।

এ বছর নিট (NEET)-এর ফল প্রকাশ একটু দেরিতে হল। গত বছর নিট-এর রেজাল্ট বেরিয়েছিল ১৮ অক্টোবর। প্রার্থীদের এই পরীক্ষা পাশ করার জন্য নূন্যতম ২০২১-এর কাট অফ পার্সেন্টাইল আর স্কোর পেতে হবে।

আরও পড়ুন: Suvendu Adhikari: ‘প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া দিওয়ালির উপহার’, রাজ্যেকেও পেট্রোপণ্যের শুল্ক কমানোর আহ্বান শুভেন্দুর

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla