জলের তলায় গ্রামকে গ্রাম, তবু এক ঢোক জলের জন্য ভরসা বনকর্মীরা

নদীবেষ্টিত এই দ্বীপ এলাকায় তাই দেখা দিয়েছে তীব্র পানীয় জলের কষ্ট। ঘরে, বারান্দায়, উঠান জলে ভরা। অথচ খাওয়ার জলের জন্য জমা জল ঠেঙিয়ে যেতে হচ্ছে অনেকটা।

জলের তলায় গ্রামকে গ্রাম, তবু এক ঢোক জলের জন্য ভরসা বনকর্মীরা
নিজস্ব চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: ইয়াস (Cyclone Yaas) হাতে মেরেছে, ভাতেও মেরেছে গোসাবার মানুষগুলোকে। ঝড়ের দাপটে উড়েছে ঘর। তুমুল জলস্রোতে ভেসে গিয়েছে সর্বস্ব। এক ফোঁটা পানীয় জলের জন্যও হাহাকার করতে হচ্ছে। তবে বিপর্যস্ত এই মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন স্থানীয় বনকর্মীরা।

প্রকৃতির রোষানলের শিকার সুন্দরবনের মানুষ। বহু নদী বাঁধ ভেঙে গ্রামের পর গ্রাম প্লাবিত হওয়ায় সর্বহারা মানুষগুলো। সুন্দরবনের প্রত্যন্ত গোসাবা ব্লকের সেই দৃশ্য চোখে দেখা যায় না। এলাকায় পানীয় জলের জন্য যে টিউবয়েলগুলো, সবই জলের তলায়।

নদীবেষ্টিত এই দ্বীপ এলাকায় তাই দেখা দিয়েছে তীব্র পানীয় জলের কষ্ট। ঘরে, বারান্দায়, উঠান জলে ভরা। অথচ খাওয়ার জলের জন্য জমা জল ঠেঙিয়ে যেতে হচ্ছে অনেকটা। বেশি দাম দিয়ে জল কিনে খাওয়ারও অভিযোগ করছেন অনেকেই। তবে এই বিপদের দিনে যতটা সম্ভব এগিয়ে আসছেন বনকর্মীরা।

আরও পড়ুন: অতিমারিতে বন্ধ স্কুল, সেখানেই ভাড়া নিয়ে সংসার পেতেছেন ‘প্রভাবশালী’

গোসাবার পাখিরালা, রাঙাবেলিয়া, লাহিড়িপুর, কুমিরমারি-সহ বিভিন্ন গ্রামগুলিতে নদী পথে নৌকোয় করে জেটি ঘাটে পৌঁছে গিয়ে সেখানে মানুষকে পানীয় জল সরবরাহ করছেন সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের কর্মীরা। দুর্গত মানুষও দীর্ঘ লাইন দিয়ে নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে পানীয় জল সংগ্রহ করছেন।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla