ASEAN Meet: ‘ভারত ঘনিষ্ঠ বন্ধু’, তাইওয়ান নিয়ে সংঘাতের মাঝেই তাৎপর্যপূর্ণ বার্তা আমেরিকার

Antony Blinken,: বিবৃতিতে প্রকাশ করে ব্লিঙ্কেন বলেন, "আসিয়ান বৈঠকে যোগ দিয়ে আমাদের অন্যতম ঘনিষ্ঠ সঙ্গী এবং আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

ASEAN Meet: 'ভারত ঘনিষ্ঠ বন্ধু', তাইওয়ান নিয়ে সংঘাতের মাঝেই তাৎপর্যপূর্ণ বার্তা আমেরিকার
ছবি: টুইটার
TV9 Bangla Digital

| Edited By: অরিজিৎ দে

Aug 04, 2022 | 5:03 PM

নম পেন: বৃহস্পতিবার কম্বোডিয়াতে আসিয়ান সম্মেলনে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠকের পর তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করলেন মার্কিন সেক্রেটারি অব স্টেট অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। নিজের মন্তব্যে ওয়াশিংটনের ‘অন্যতম ঘনিষ্ঠ বন্ধু’ হিসেবে নয়া দিল্লিকে আখ্যা দিয়েছেন তিনি। আসিয়ান মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে যোগ দিতে ব্লিঙ্কেন ও জয়শঙ্কর দু’জনেই কম্বোডিয়াতে রয়েছেন। মার্কিন ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের পক্ষ থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন জানিয়েছেন, এই সুযোগে দুই নেতার মধ্যে যৌথ স্বার্থ রক্ষায় প্রয়োজনীয় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিবৃতি থেকে জানা গিয়েছে, জয়শঙ্কর ও ব্লিঙ্কেনের মধ্যে ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল এবং শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক সংকট পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

বিবৃতিতে প্রকাশ করে ব্লিঙ্কেন বলেন, “আসিয়ান বৈঠকে যোগ দিয়ে আমাদের অন্যতম ঘনিষ্ঠ সঙ্গী এবং আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আসিয়ান বৈঠকে বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। আমরা দু’পক্ষই আসিয়ান কেন্দ্রীকতার পক্ষে। উভয়ই চাই ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল যেন মুক্ত থাকে। সেই কারণে আমরা প্রত্যেকদিন বিভিন্নভাবে কাজ করে চলেছি।” তাইওয়ান নিয়ে চিনের সঙ্গে উত্তাপের মধ্যে, আমেরিকার এই বার্তা নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ বলে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় লালফৌজের আগ্রাসন মোটেও ভালভাবে নেয়নি নয়া দিল্লি। বিভিন্ন স্তরে চিনা আগ্রাসনের নিন্দা করা হয়েছিল। আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, তাইওয়ান ইস্যুতে চিনের বিরুদ্ধে ভারতকে পাশে পেতে চাইছে আমেরিকা।

ব্লিঙ্কেনের বিবৃতিতে শ্রীলঙ্কা ও বার্মার প্রসঙ্গও উঠে এসেছে। “শ্রীলঙ্কা, বার্মা ও অন্যান্য বেশকিছু হটস্পটের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন। সেই কারণে আমার বন্ধুর সঙ্গে বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করেছি।” অন্যদিকে ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর বলেন, “ব্লিঙ্কেনের সঙ্গে দেখা করা সব সময়ই আনন্দের। পরস্পরের মধ্যে অনেক কথা হওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। কিন্তু উভয়পক্ষের ব্যস্ততার কারণে তা সম্ভব হয়নি। কোয়াড বৈঠকের পর গোটা বিশ্বে বেশ কিছু ইতিবাচক বদল হয়েছে।” উল্লেখ্য, দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশন অথবা আসিয়ানের মধ্যে ব্রুনাই, কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, লাওস, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড এবং ভিয়েতনামের মতো দেশ গুলি রয়েছে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla