পিকে’কে তোপ, নিজেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা করলেন জটু লাহিড়ি

"প্রশান্ত কিশোরকে আমি জানি না। অন্য কারও নির্দেশে অনুষ্ঠান করি না।'' ফের বিস্ফোরক জটু লাহিড়ি (Jatu Lahiri)

  • TV9 Bangla
  • Published On - 21:05 PM, 22 Feb 2021
পিকে'কে তোপ, নিজেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা করলেন জটু লাহিড়ি
নিজস্ব চিত্র

হাওড়া: গত ১৮ জানুয়ারি নন্দীগ্রামের ভরা সভা থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ঘোষণা করেন একুশের ভোটে ওই বিধানসভা কেন্দ্র থেকে তিনিই প্রার্থী। এরপর কেটে গিয়েছে প্রায় একমাস। আর কোনও কেন্দ্রের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেনি তৃণমূল (TMC)। এবার অনেকটা তৃণমূল সুপ্রিমোর স্টাইলেই নিজেই নিজেকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করলেন হাওড়া শিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রের পাঁচ বারের বিধায়ক জটু লাহিড়ি (Jatu Lahiri)। সোমবার কার্যত বিদ্রোহী ভঙ্গিতে প্রবীণ এই তৃণমূল নেতার মন্তব্য,”আমি নিশ্চিতভাবে জানি, বিধায়ক হিসেবে আমি আবার নামব।” সেই সঙ্গে তৃণমূলের নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরকে একহাত নিয়ে জটুবাবুর ঘোষণা, তৃণমূল নেতৃত্ব ছাড়া অন্য কারও নির্দেশের পরোয়া করেন না তিনি।

‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’, তৃণমূলের নয়া স্লোগানকে সামনে রেখে এদিন একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন হাওড়া শিবপুরের বিধায়ক জটু লাহিড়ি। এখনও ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশ হয়নি, সামনে আসেনি তৃণমূলের প্রার্থী তালিকাও। কিন্তু সাংবাদিক বৈঠকে আচমকাই নিজের নাম প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে দেন জটুবাবু। সেই সঙ্গে টিম পিকে’কে ফের তোপ দেগে তাঁর মন্তব্য, “প্রশান্ত কিশোরকে আমি জানি না। আমি আমার জেলা সভাপতির নির্দেশে অনুষ্ঠান করছি। অন্য কারও নির্দেশে অনুষ্ঠান করি না।” তাঁর হুঁশিয়ারি, জেলা সভাপতি, রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি ব্যতীত কারও নির্দেশ বা অনুমতির তিনি তোয়াক্কা করেননি এবং করবেনও না।

প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে জটু লাহিড়ির ক্ষোভপ্রকাশ অবশ্য এই প্রথম নয়। মাস কয়েক আগেও তিনি অভিযোগ করেন পিকে আসায় দলের অনেকে ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। পিকে’কে ভাড়াটে বলেও কটাক্ষ করেন তিনি। সে সময় তৃণমূলের ভোটকুশলীকে নিয়ে দলত্যাগী শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্যের সঙ্গে জটুবাবুর কথার মিল পেয়েছিলেন অনেকে। তাঁর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। যদিও এদিন নিজেই নিজেকে ফের হাওড়া শিবপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে দিলেন তিনি।

আরও পড়ুন: কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে টলি তারকারা, কথা হল ‘সোনার বাংলা’ নিয়ে

তৃণমূলের প্রবীণ বিধায়ক জটুবাবুর দাবি ছিল হাওড়ার মেয়র পদের দাবিদার থাকলেও ২০১৩ সালে দলের কিছু নেতার জন্য তা সম্ভব হয়নি। সেই আক্ষেপ এখনও শোনা যায় তাঁর গলায়। গত দু’বছর ধরে ভোট হয়নি হাওড়া পুরনিগমে। মানুষ পরিষেবা পাচ্ছে না বলেও তোপ দেগেছিলেন তিনি। তাছাড়া নির্বাচনের কয়েকমাস আগে হাওড়া সদরে সাংগঠনিক রদবদল নিয়েও মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছে জটু লাহিড়িকে। এবার প্রায় চ্যালেঞ্জের সুরে জটুবাবু যেভাবে নিজেকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে দিলেন তা তৃণমূলের ইতিহাসে নজিরবিহীন বলা চলে।