The Family Man 2: ‘আমি জানতাম ও বিগ স্টার…’, সামান্থার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মনোজ বাজপেয়ী

ফ্যামিলি ম্যানের দ্বিতীয় সিজনে একেবারে ডি-গ্ল্যাম চরিত্রে দেখা গিয়েছিল সামান্থাকে। সমালোচক থেকে দর্শক তাঁর কাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ফ্যামিলি ম্যানের সাফল্য সামান্থাকে জায়গা করে দিয়েছে বলিউডেও।

The Family Man 2: 'আমি জানতাম ও বিগ স্টার...', সামান্থার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মনোজ বাজপেয়ী
সামান্থার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মনোজ বাজপেয়ী


শ্রীকান্ত তিওয়ারি ও রাজি– অনস্ক্রিন তাঁরা প্রতিপক্ষ। কিন্তু অফ স্ক্রিন রাজি ওরফে সামান্থা রুথ প্রভুর প্রশংসায় পঞ্চমুখ মনোজ তিওয়ারি। ফ্যামিলি ম্যানের দ্বিতীয় সিজনে সামান্থার অভিনয় তাঁকে মুগ্ধ করেছে, এমনটাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এসে বললেন মনোজ। একই সঙ্গে সামান্থাকে আখ্যা দিলেন ‘বিগ স্টার’ বলেও।

সামান্থা সম্পর্কে মনোজ বলেন, “দ্বিতীয় বার আমি যখন সিরিজটা দেখি আমি অনুধাবন করি, এই মেয়েটি শুধু ভাল নয়, মারাত্মক ভাল। যে ফোকাস ও মেনে চলেছে, যে পরিমাণ পড়াশোনা করেছে অভিনয়ের আগে… তার সাক্ষী আমি। আমি জানি ও রিসার্চ করেছে কারণ রাজ ও ডিকে (ছবির পরিচালক) যাবতীয় ভিডিয়ো সামান্থাকে পাঠাচ্ছিল।” মনোজ যোগ করেন, “ওঁরা আমায় দেখাচ্ছিলেন সামান্থা মার্শাল আর্ট প্র্যাক্টিস করছে ক্রমাগত। আমি জানতাম ও তৈরি। আমি জানতাম ও বিগ স্টার।” অন্যদিকে সামান্থার বক্তব্য, “অভিনেতা হিসেবে নিজের গণ্ডী অতিক্রম করাই আমার লক্ষ। রাজি আমাকে নতুন এক দিক উন্মোচনের সুযোগ করে দিয়েছে।”

ফ্যামিলি ম্যানের দ্বিতীয় সিজনে একেবারে ডি-গ্ল্যাম চরিত্রে দেখা গিয়েছিল সামান্থাকে। সমালোচক থেকে দর্শক তাঁর কাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ফ্যামিলি ম্যানের সাফল্য সামান্থাকে জায়গা করে দিয়েছে বলিউডেও। সূত্রের খবর, এই মুহূর্তে খানেদের সঙ্গে কাজের অফারও রয়েছে তাঁর কাছে। তবে ফ্যামিলি ম্যানের দ্বিতীয় সিজন মুক্তি পাওয়ার পর তাতে যোগ হয়েছিল বিতর্ক। তামিলার কতচি (NTK) সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সিমান এই ওয়েব সিরিজ ব্যান করার দাবি জানিয়েছিলেন। তাঁর মত ছিল, এই ওয়েব সিরিজে তামিলনাড়ুর ভাবাবেগে আঘাত করা হয়েছে। সিমান আরও দাবি করেন, এই ওয়েব সিরিজে লিবারেশন ফর তামিল এলামকে (LTTE) যেভাবে জঙ্গি সংগঠন হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে তা অন্যায়। বিবৃতি দিয়ে সিমান জানিয়েছিলেন ওয়েব সিরিজের ট্রেলার অত্যন্ত ‘সকিং।’

সিরিজে সামান্থার চরিত্রই ছিল বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে। এক শ্রীলঙ্কার আতঙ্কবাদীর চরিত্রে দেখানো হয়েছিল তাঁকে। সিমানের মতে, ফ্যামিলি ম্যান টু ওয়েব সিরিজে এলটিটিই সংগঠনকে ইচ্ছে করে জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। পাশাপাশি তামিলবাসীকে ক্ষতিকারক হিসেবে দেখানো হয়েছে। তামিলনাড়ুও এই ওয়েব সিরিজের জন্য ইচ্ছে করেই বেছে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিমান। ওয়েব সিরিজের গল্প তুলে ধরেও ফাঁক ফোকর খুঁজে বের করে দুষেছিল এনটিকে। ওয়েব সিরিজে এলটিটিইর সঙ্গে পাকিস্তানের আইএসআই সঙ্গে যোগসূত্র দেখানো হয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন সিমান।

ভোট পরবর্তী তামিলনাড়ুতে সিমানের ওই দাবির পর ওয়েব সিরিজটি নিয়ে সে সময় যথেষ্ট চাঞ্চল্যও ছড়িয়েছিল। কারণ গত বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল অনুযায়ী, ভোট শেয়ারে এনটিকে তৃতীয়। তাই তাদের দাবি নিয়ে যথেষ্ট আলোড়ন নেট মাধ্যমে। তবে এখানেই শেষ নয়, ট্রেলার মুক্তি পেতেই গলা চড়িয়েছিলেন রাজ্যসভার সাংসদ ভাইকো। তবে সে সব এখন অতীত, বিতর্ক হলেও প্রথম সিজনের মতো দ্বিতীয় সিজনও দর্শকমনে জায়গা করে নিয়েছিল। দর্শকমনে জায়গা করে নিয়েছিলেন রাজি ওরফে সামান্থাও।

 

 আরও পড়ুন- Box Office Clash: ইন্ডাস্ট্রির স্বার্থে একে অপরকে ‘জমি ছাড়তে’ কতটা রাজি বাংলার প্রথম সারির প্রযোজকরা?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla