Assam Flood: অশনি সঙ্কেত অসমের আকাশে, দিনে-দিনে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে বন্যা পরিস্থিতি

Assam Flood: অশনি সঙ্কেত অসমের আকাশে, দিনে-দিনে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে বন্যা পরিস্থিতি
বন্যা দুর্গত এলাকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখছেন মুখ্যমন্ত্রী। ছবি:PTI

Assam Flood: চাষের জমিও ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। চলতি বছরের এই বন্যায় এখনও অবধি ৯৯ হাজার একর জমি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। কোপিলি, দিসাং, ব্রহ্মপুত্র নদী বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে একাধিক এলাকায়।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Jun 23, 2022 | 9:57 AM

গুয়াহাটি: দিন-প্রতিদিন আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে অসমের (Assam Flood) বন্যা পরিস্থিতি। গত ২৪ ঘণ্টাতেই অসমে বন্যায় মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১২ জনের। এরমধ্যে ৪ জনই শিশু। এই নিয়ে রাজ্যে বন্যা ও ধসে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০০-এ। বন্যার জল বাড়ছে প্রতিবেশী রাজ্য মেঘালয়তেও (Meghalaya)। সেখানের একাধিক জায়গায় অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের জেরে ধস নেমেছে। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। ত্রিপুরাতেও (Tripura) জলমগ্ন একাধিক এলাকা। হড়পা বান (Flash Flood) নেমেছে। চালু করা হয়েছে হেল্পলাইন নম্বর।

প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, হোজাই জেলায় চারজনের মৃত্যু হয়েছে। কামরূপ জেলাতেও বন্যায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। বরপেটা ও নালবারিতে তিনজন করে মৃত্যু হয়েছে। বিগত প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে রাজ্যে যে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, এর জেরে ৩২টি জেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রায় ৪৯৪১টি গ্রাম বন্যায় ডুবে গিয়েছে, ৫৫ লাখেরও বেশি মানুষ প্রভাবিত হয়েছেন।

লক্ষাধিক ঘরছাড়া মানুষদের আশ্রয় দিতে রাজ্য প্রশাসনের তরফে ৮৪৫ টি শরনার্থী শিবির ও ১০২৫টি ত্রাণকেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেই কেন্দ্রগুলিতে কমপক্ষে ২ লক্ষ ৭১ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। বন্যা দুর্গত এলাকা থেকে সাধারণ মানুষদের উদ্ধারের জন্য বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। রাজ্য ও কেন্দ্রীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর এবং সেনাবাহিনী উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে।

বুধবার চিরাং জেলায় বন্যা পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া বাজালি, বাকসা, বিশ্বনাথ, কাচার, দারাং, ধেমাজি, ধুবরি, ডিব্রুগড়, দিমা-হাসাও, গোয়ালপাড়া, গোলাঘাট, হোজাই, কামরূপ, কারবি, করিমগঞ্জ, তামুলপুর, উদলগিরি জেলাও বন্যার জলে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। জলের নীচেই ডুবে রয়েছে অধিকাংশ এলাকা।

চাষের জমিও ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। চলতি বছরের এই বন্যায় এখনও অবধি ৯৯ হাজার একর জমি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। কোপিলি, দিসাং, ব্রহ্মপুত্র নদী বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে একাধিক এলাকায়। গতকাল ট্রেনে চেপে নাগাঁওতে বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যান অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। নৌকায় চেপে কামপুর কলেজ ও রাহা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের ত্রাণ শিবিরেও ঘুরে দেখেন তিনি। সেখানে আশ্রয় নেওয়া সাধারণ মানুষদের সঙ্গে কথা বলেন।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA