ফের মাথা ফাটল নেতার, টিএমসিপির প্রতিষ্ঠা দিবসে উত্তপ্ত ত্রিপুরা

প্রাক্তন মন্ত্রীর বাড়িতে হামলার অভিযোগও তুলেছে তৃণমূল।

ফের মাথা ফাটল নেতার, টিএমসিপির প্রতিষ্ঠা দিবসে উত্তপ্ত ত্রিপুরা
ত্রিপুরায় শান্তনু সেন

আগরতলা: ফের ত্রিপুরায় হামলার অভিযোগ তুলল তৃণমূল। গত কয়েকদিনে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষের অভিযোগে বারবার উত্তপ্ত হয়েছে ত্রিপুরার রাজনীতি। বারবার প্রতিবেশী সেই রাজ্যে ছুটে গিয়েছেন ঘাসফুল শিবিরের নেতারা। আজ শনিবার, ফের বিজেপির বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তুলল তৃণমূল। গতকাল থেকেই তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ও বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপির সংঘর্ষের ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। আজ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসে দুই কর্মীর আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূলের দাবি যোগদান সভা হওয়ার কথা ছিল, তার আগেই এই হামলা।

আগরতলায় বাঁধারঘাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে সূত্রের খবর। তৃণমূলের অভিযোগ, এই ঘটনায় শুভঙ্কর দে নামে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের এক নেতার মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামিকাল সকালে তাঁকে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হবে বলে জানা গিয়েছে। মুজিবর রহমান নামে আরও এক তৃণমূল নেতা তথা ত্রিপুরার প্রাক্তন মন্ত্রীর হাত ভেঙে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ।

তৃণমূলের রাজ্য সাধার সম্পাদক কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, শনিবার সকালে মুজিবর রহমান নামে ওই তৃণমূল নেতার বাড়িতে যোগদান পর্ব হওয়ার কথা ছিল। অন্যান্য দলের বহু নেতা এ দিন তৃণমূলে যোগ দিতে চেয়েছিলেন বলে তাঁর দাবি। এ ছাড়া,  তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানও চলছিল। তার মাঝেই এই হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ। এবিভিপির বিরুদ্ধেই এই অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। ঘাসফুল শিবিরের দাবি, তৃণমূলের সব পতাকা ছিঁড়ে তছনছ করে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার খবর পেয়েই এ দিন ছুটে যান কুণাল ঘোষ ও শান্তনু সেন। তাঁরা জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে এলেও দোষীদের পাওয়া যায়নি। এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী নেমেছে বলেও জানিয়েছে তৃণমূল।

এ দিকে, আজই  ত্রিপুরা নিয়েও সরব হয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘মানবাধিকার কমিশন শুধু বাংলার জন্য। ত্রিপুরার জন্য নয় কেন? সেখানে আমাদের মহিলারা রোজ মার খাচ্ছে। মাথায় আঘাত করে রক্তপাত ঘটানো হচ্ছে।’ অন্যদিকে, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের অধিকাংশ জুড়েই সেই ত্রিপুরা প্রসঙ্গই তুলে আনেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের কথায়, ‘এখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ত্রিপুরায় পা রাখেননি। মমতা ত্রিপুরায় পা রাখলে ভূমিকম্প হবে।’

শুক্রবারই আগরতলায় দলের নেত্রী সোলাঙ্কি সেনগুপ্তকে মারধর করে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে এভিবিপি’‌র বিরুদ্ধে। পুলিশের সামনেই তাঁদের মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে প্রচার চালাচ্ছিল আগরতলার মহারাজা বীর বিক্রম কলেজে। সেখানেই এবিভিপি’‌র সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। হামলার অভিযোগ অবশ্য প্রথম নয়। এর আগে জয়া দত্ত, দেবাংশু ভট্টাচার্য ও সুদীপ দে নামে তিন তৃণমূলের যুব নেতার ওপরও হামলার অভিযোগ উঠেছিল। আরও পড়ুন: ‘মমতা ত্রিপুরায় পা রাখলে ভূমিকম্প হবে’, হুঁশিয়ারি অভিষেকের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla