Intercity Electric Bus: বৈদ্যুতিন বাসে নতুন বিপ্লব, সীমিত গণ্ডি পেরিয়ে ছুটবে এক শহর থেকে অন্য শহরে

EveyTrans Bus Service: ভারতে বৈদ্যুতিন বাসে এক শহর থেকে অন্য শহরে যাত্রা এই প্রথম। ১৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীর দিন থেকে এই বৈদ্যুতিন বাসগুলি রাস্তায় দেখা যাবে।

Intercity Electric Bus: বৈদ্যুতিন বাসে নতুন বিপ্লব, সীমিত গণ্ডি পেরিয়ে ছুটবে এক শহর থেকে অন্য শহরে
এখন থেকে এক শহর থেকে অন্য শহরে ছুটবে বৈদ্যুতিন বাস

হায়দরাবাদ: ভারতীয় সড়ক পরিবহনের ইতিহাসে এ এক নতুন রেকর্ড। ভারতে বৈদ্যুতিন গাড়ির বাজার এক বিপ্লবের সাক্ষী থাকল। বৈদ্যুতিন গাড়িতে চেপে দূরপাল্লা যাত্রা যে পুরোদস্তুর সম্ভব তা আজ প্রমাণ করে দিল দেশের সবথেকে বড় বৈদ্যুতিন বাস পরিচালন সংস্থা ইভিট্রান্স প্রাইভেট লিমিটেড (EveyTrans Private Limited)।

এবার থেকে শুধু শহরের ভিতরেই নয়, এক শহর থেকে অন্য শহরে ছুটবে বৈদ্যুতিন বাস। ইভিট্রান্সের তৈরি এই বাসগুলির নাম দেওয়া হয়েছে পিউরিবাস (PuriBus)। আজ এই ‘পিউরিবাসে’র বৈদ্যুতিন বাস পুণে থেকে মুম্বই রুটে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হল। পুণে থেকে মুম্বই এবং মুম্বই থেকে পুণে যাতায়াত করবে এই বাসগুলি। ভারতে বৈদ্যুতিন বাসে এক শহর থেকে অন্য শহরে যাত্রা এই প্রথম। ১৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীর দিন থেকে এই বৈদ্যুতিন বাসগুলি রাস্তায় দেখা যাবে।

ইভিট্রান্সের তৈরি এই পিউরিবাস আক্ষরিক অর্থে এক নতুন বিপ্লব নিয়ে এসেছে বৈদ্যুতিন গাড়ির ভারতীয় বাজারে। এখন থেকে বৈদ্যুতিন বাসে দূরপাল্লার যাত্রা আর শুধু স্বপ্ন নয়, বরং পুরোদস্তুর বাস্তব। এই বাসগুলি একদিকে যেমন পরিবেশ দূষণ কমাবে তেমনই যাত্রীদের এক আরামদায়ক, শব্দবিহীন যাত্রার অভিজ্ঞতা দেবে।

কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি ফেম-১ (FAME I) এবং ফেম-২ (FAME 2) নীতির আওতায় গণপরিবহন ব্যবস্থায় বৈদ্যুতিন বাসের প্রচলনে আরও বেশি করে উৎসাহ দিচ্ছে।

ইভিট্রান্সের জেনারেল ম্যানেজার শ্রী সন্দীপ রাইজাদা নতুন চালু হওয়া পিউরিবাসের সুবিধা প্রসঙ্গে বলেন “আমরা ভারতে প্রথম এক শহর থেকে অন্য শহরে ই-বাস পরিষেবা চালু করতে পেরে গর্বিত এবং বিনীত। পিউরিবাস একবার সম্পূর্ণ চার্জ হয়ে গেলে ৩৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত কোনও সমস্যা ছাড়াই যেতে পারে। এটি এক শহর থেকে অন্য শহরে যাঁরা বাস পরিষেবা দেন, তাঁদের জন্য খুব ভাল একটি বিকল্প।”

পিউরিবাসগুলি লম্বায় ১২ মিটার। বৈদ্যুতিন বাস, সুতরাং কোনও ধোঁয়া বেরোয় না। ফলে পরিবেশ দূষণও একেবারেই হয় না এই বাসে। এই বাসগুলিতে একজন চালক, একজন হেল্পার এবং ৪৫ জন যাত্রীর বসার ক্ষমতা রয়েছে। ভিতর থেকে দেখতেও খুব সুন্দর বাসটি। আর তার সঙ্গে যাত্রীদের একটি আরামদায়ক ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দেয় এই পিউরিবাস। দূরপাল্লার ভ্রমণের জন্য বিশেষভাবে ডিজাইন করা এই বাতানুকুল ই-বাসে আরামদায়ক এবং বিলাসবহুল ‘পুশ ব্যাক সিট’ রয়েছে।

এছাড়া বাসে রয়েছে অত্যাধুনিক টিভি ও ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম। রয়েছে ওয়াই-ফাই পরিষেবাও। যাত্রাপথে আপনার বিনোদনের জন্য সবরকম ব্যবস্থা থাকছে এই পিউরিবাসে। প্রতিটি সিটের সঙ্গে একটি করে ইউএসবি চার্জার রয়েছে। প্রত্যেক আসন পিছু পাঁচ কিউবিক মিটার মালপত্র রাখার জায়গা রয়েছে বাসে।

এই বৈদ্যুতিন বাসটি আন্তঃ শহর বাস পরিবহন সংস্থাগুলিরর জন্য আর্থিকভাবেও বেশ লাভজনক হতে চলেছে। এই বাসের রক্ষণাবেক্ষণে খরচ কম, এবং ডিজেল বাসের তুলনায় অনেক কম চালানো যায় এই বাস। ভারতে ওলেক্ট্রা গ্রিনটেক লিমিটেড এই বাসগুলি তৈরি করে। বাসগুলিতে লি-আয়ন ফসফেট ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়।

বাসগুলিতে যাত্রী সুরক্ষার বিষয়েও বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ইইউ স্ট্যান্ডার্ড এফডিএসএস সিস্টেম, টিইউভি সার্টিফিকেশন, এডিএএস সিস্টেম (অ্যাডভান্সড ড্রাইভার অ্যাসিস্ট্যান্স সিস্টেম) এবং আইটিএস সিস্টেম রয়েছে এই বাসে। কোনওরকম সঙ্কটে পড়লে প্যানিক অ্যালার্ম সিস্টেম এবং ইমার্জেন্সি লাইটিং সিস্টেম রয়েছে বাসে।

ইভিট্রান্স সুরাট, সিলভাসা, গোয়া, হায়দরাবাদ, দেরাদুন সহ একাধিক শহরে সফলভাবে ই-বাস চালাচ্ছে। এটি ভারতের সর্ববৃহৎ বৈদ্যুতিন বাস অপারেটর। দেশের বিভিন্ন শহরে ৪০০ টিরও বেশি বাস চালায় এই সংস্থা।

আরও পড়ুন : Arunachal Pradesh: ‘অরুণাচল ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ, দেশের নেতারা যখন খুশি যেতে পারেন’, বেজিংকে কড়া বার্তা বিদেশ মন্ত্রকের

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla