আদৌ কী শ্রমিকরা পাবে সরকারি সহায়তা? প্রকাশিত নয়া তথ্য উঠছে প্রশ্ন

Labour ministry, Migrant Labourers, শ্রমিকদের সাহায্য করার যে উদ্দেশ্য নিয়ে সরকার এই পোর্টাল চালু করেছিল, সেটা সফল হতে এখনও অনেক সময় লাগবে। ৩ কোটি নথিভুক্ত মানুষের ৫৫ শতাংশের যদি এখনও ব্যাঙ্কের সঙ্গে আধার কার্ড লিঙ্ক করা না থাকে, তবে বুঝতে হবে যে আধার পরিষেবা এখনও সবার কাছে সঠিকভাবে পৌঁছয়নি

আদৌ কী শ্রমিকরা পাবে সরকারি সহায়তা? প্রকাশিত নয়া তথ্য উঠছে প্রশ্ন
পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা শ্রমিকদের ৯১.৫ শতাংশের আয় ১০ হাজার টাকার কম ছবি- প্রতীকী চিত্র

নয়া দিল্লি: অসংগঠিত ক্ষেত্রে শ্রমিকদের (Unorganized labour) জন্য ই-শ্রম (E Shram portal) নামের একটি পোর্টাল চালু করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। অগস্ট মাস থেকে চালু হওয়ার পর থেকে সেই পোর্টালে ইতিমধ্যেই ৩ কোটি মানুষ নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেছেন। শ্রম বিভাগ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৮ অক্টোবর পর্যন্ত ওই পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা ৩ কোটি মানুষের মধ্যেই ৫১.১৬ শতাংশ পুরুষ ও ৪৮.৮৪ শতাংশ মহিলা। কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমান, দেশের মোট ৩৮ কোটি মানুষ অসংগঠিত ক্ষেত্রে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন।

২৬ অগস্ট, পরিযায়ী শ্রমিক (migrant labour), শ্রমিকের দক্ষতা, বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের পারদর্শিতা, তাদের পরিবার, ঠিকানা, সহ একাধিক কারণে শ্রম মন্ত্রকের (Labour Ministrty) তরফে ই-শ্রম পোর্টাল চালু করা হয়েছিল। করোনা মহামারীর (Corona Pandemic) সময় পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার নানা ছবি সামনে আসার পরেই শিউরে উঠেছিল দেশ। তাই শ্রমিকদের বিষয়ে যাবতীয় তথ্য এক জায়গায় সংগ্রহ করেও রাখাও ছিল এই পোর্টাল চালুর অন্যতম কারণ।

কিন্তু সব থেকে অবাক করার মতো বিষয় এই পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা ৩ কোটি শ্রমিকদের মধ্যেই ৫৫.৭৭ শতাংশ মানুষের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের (Bank Account) সঙ্গে আধার কার্ড (Aadhar Card) লিঙ্ক করা নেই। বিভিন্ন সরকারি অনুদান পাওয়ার ক্ষেত্রে ব্যাঙ্কের মাধ্যমেই যাবতীয় লেনদেন করে সরকার। উপভোক্তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা পড়ে অনুদানের টাকা। এবং সব ক্ষেত্রেই আধার কার্ড বাধ্যতামূলক। নথিভুক্ত ওই তিন কোটি মানুষের মধ্যেই ৬৬.৪৯ শতাংশ মানুষ ওই পোর্টালে নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য জমা দিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনুচ্ছিক শ্রম মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, সবে মাত্র এই পোর্টাল চালু হয়েছে। মানুষের মধ্যে এখনো সচেতনতা তৈরি হয়নি। এই পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করার সুযোগ সুবিধা বুঝতে পারার সঙ্গে সঙ্গেই তারা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট আধার কার্ড লিঙ্ক করবেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে এই ঘটনা বুঝিয়ে দিল শ্রমিকদের সাহায্য করার যে উদ্দেশ্য নিয়ে সরকার এই পোর্টাল চালু করেছিল, সেটা সফল হতে এখনও অনেক সময় লাগবে। ৩ কোটি নথিভুক্ত মানুষের ৫৫ শতাংশের যদি এখনও ব্যাঙ্কের সঙ্গে আধার কার্ড লিঙ্ক করা না থাকে, তবে বুঝতে হবে যে আধার পরিষেবা এখনও সবার কাছে সঠিকভাবে পৌঁছয়নি। ব্যাঙ্কের সঙ্গে আধার কার্ড লিঙ্ক করা না থাকলে এই পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করে রাখা অর্থহীন বলেই মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই পোর্টালে অসংগঠিত শ্রমিকদের উন্নয়নে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলোর নানা প্রকল্পের বিস্তারিত বিবরণ দেওয়া আছে। অনলাইনে আবেদন করার মাধ্যমে তারা প্রকল্পগুলির সুবিধা নিতে পারবে। জানা গিয়েছে পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা শ্রমিকদের ৯১.৫ শতাংশের আয় ১০ হাজার টাকার কম।

 

আরও পড়ুন Whatsapp Features: ভয়েস রেকর্ডিং মাঝপথে ‘পজ’ করার নতুন ফিচার আসছে হোয়াটসঅ্যাপে

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla