সবচেয়ে কম টিকাকরণ! স্টালিনের পাল্টা অভিযোগ, বিজেপি শাসিত রাজ্যে বেশি টিকা পাঠাচ্ছে কেন্দ্র

মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন কেন্দ্রীয় সরকারকেই দোষারোপ করে বলেন যে, কেন্দ্র বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতেই বেশি পরিমাণে টিকা পাঠাচ্ছে।

সবচেয়ে কম টিকাকরণ! স্টালিনের পাল্টা অভিযোগ, বিজেপি শাসিত রাজ্যে বেশি টিকা পাঠাচ্ছে কেন্দ্র
ফাইল চিত্র।

চেন্নাই: অত্যাধুনিক স্বাস্থ্য পরিকাঠামো থাকা সত্ত্বেও টিকাকরণের দৌড়ে পিছনের সারিতেই আটকে রয়েছে তামিলনাড়ু। সাত কোটি জনসংখ্যার রাজ্যে এখনও অবধি মাত্র নয় শতাংশই করোনা টিকার প্রথম ডোজ় পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

টিকাকরণে একদিকে যেমন পশ্চিমবঙ্গ, কেরলের মতো রাজ্য দারুণ ফল করেছে, ঠিক সেখানেই খারাপ ফল উত্তর প্রদেশ, তামিলনাড়ুর মতো বড় ও বিপুল জনসংখ্যার রাজ্যগুলিতে। দেশে টিকাকরণের তালিকায় সবথেকে নীচে অবস্থান করা পাঁচটি রাজ্য হল উত্তর প্রদেশ, তামিলনাড়ু, অসম, বিহার ও ঝাড়খণ্ড।

প্রায় সমপরিমাণ জনসংখ্যার গুজরাটে যেখানে ২০.৫ শতাংশ মানুষ করোনা টিকার প্রথম ডোজ় পেয়েছেন, সেখানে তামিলনাড়ুতে প্রথম ডোজ় পেয়েছেন কেবলমাত্র ৯ শতাংশ। অত্যাধুনিক স্বাস্থ্য পরিকাঠামো থাকা সত্ত্বেও টিকাকরণে পিছিয়ে থাকার বিষয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে করোনা টিকা নিয়ে ভ্রান্ত ধারণাকেই দোষারোপ করা হয়েছে। একইসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের ঘাড়েও কম টিকা পাঠানোর দোষ চাপানো হয়েছে। যদিও স্বাস্থ্য অধিকর্তারা এই দাবি করতে পারেননি যে টিকা নিতে মানুষের লম্বা লাইন থাকলেও পর্যাপ্ত পরিমাণ টিকা মজুত নেই।

এই বিষয়ে তামিলনাড়ুর স্বাস্থ্য সচিব জে রাধাকৃষ্ণান বলেন, “আগে টিকাকরণ নিয়ে মানুষের মধ্যে কিছুটা দ্বিধাবোধ থাকলেও বর্তমানে সেই সমস্যা দূর হয়েছে। সুতরাং রাজ্য সরকারকে দোষারোপ না করে ভ্যাকসিনের সরবরাহ নিয়ে প্রশ্ন করা উচিত। কেন্দ্রীয় সরকার মে থেকে জুন মাসের মধ্যে দ্বিগুণ পরিমাণ টিকা পাঠাবে।”

এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিনও কেন্দ্রীয় সরকারকেই দোষারোপ করে বলেন যে, কেন্দ্র বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতেই বেশি পরিমাণে টিকা পাঠাচ্ছে।

আরও পড়ুন: ফের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, সিলিন্ডার বিস্ফোরণে পুড়ে গেল পরপর ২০টি বাড়ি