Sukanta Majumder : ‘কন্যাশ্রী নিয়ে গলা ফাটান মুখ্যমন্ত্রী, তাও সুরক্ষিত নন রাজ্যের মহিলারা’

Sukanta Majumder slams Mamata Banerjee: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের কন্যাশ্রী প্রকল্পেরও তুলোধনা করেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি। তাঁর বক্তব্য, "কন্যাশ্রী প্রকল্প নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী গলা ফাটান। কিন্তু তা সত্ত্বেও মেয়েরা সুরক্ষিত নন।"

Sukanta Majumder : 'কন্যাশ্রী নিয়ে গলা ফাটান মুখ্যমন্ত্রী, তাও সুরক্ষিত নন রাজ্যের মহিলারা'
মমতাকে আচার্য করার ভাবনা প্রসঙ্গে সুকান্ত (ফাইল ছবি)

নয়া দিল্লি ও কলকাতা: সোমবার সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শুরুর দিনেই রাজ্য়সভার অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে ১২ জনকে। তাঁদের মধ্য রাজ্যের দুই মহিলা সাংসদ রয়েছেন। দুজনের রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের সাংসদ। এই নিয়ে আজ তৃণমূল শিবিরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন তুলে দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (West Bengal BJP President Sukanta Majumder)। বললেন, ” এটা খুবই লজ্জার বিষয় যে ১২ জন সাংসদ রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড হয়েছেন, তাঁদের মধ্যে দুই জন বাংলার মহিলা সাংসদ।”

বঙ্গ বিজেপির সভাপতি আরও বলেন, “ফালাকাটায় কলেজ ছাত্রীর উপরে হামলা হয়েছে। রাজ্যে মহিলারা সুরক্ষিত নন। বাংলার মহিলাদের সুরক্ষার দায়িত্ব রাজ্য সরকারের। অধিকাংশ জেলায় ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট ধুঁকছে। তাই বিচার পাওয়া যাচ্ছে না।” একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের কন্যাশ্রী প্রকল্পেরও তুলোধনা করেন। তাঁর বক্তব্য, “কন্যাশ্রী প্রকল্প নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী গলা ফাটান। কিন্তু তা সত্ত্বেও মেয়েরা সুরক্ষিত নন।”

এর পাশাপাশি রাজ্যে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার পরিস্থিতি যে এখনও অব্যাহত, সেই কথাও আজ সাংবাদিক বৈঠকে আরও একবার তুলে ধরেন সুকান্ত মজুমদার। বললেন, ” রাজ্যে এখনও বিজেপি নেতাদের উপরে তৃণমূল কংগ্রেসের হিংসা অব্যাহত।”

সম্প্রতি জাতীয় রাজনীতিতে কংগ্রেস এবং তৃণমূলের মধ্যে ফাটল আরও চওড়া হতে দেখা গিয়েছে। সরাসরি কেউ কিছু না বললেও, ঠারেঠোরে নিজেদের অবস্থান বুঝিয়ে দিতে কোনও খামতি রাখছে না কোনও শিবিরই। আজ এই প্রসঙ্গে সুকান্ত মজুমদারকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এটা তাদের নিজেদের সমস্যা। ওদের মধ্যে মতবিরোধ থাকতেই পারে, কিন্তু ওদের প্রত্যেকের গোপন অভিসন্ধি একই।

আজ দিল্লির সাংবাদিক বৈঠকে সুকান্ত মজুমদার বাংলার একাধিক ইস্যু তুলে ধরেন। কেন এক জন বাঙালি সাংসদকে সরিয়ে সেই জায়গায় এক জন অহমিয়াকে রাজ্যসভায় পাঠানো হল, তা নিয়ে আজ ফের একবার প্রশ্ন তুলেছেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি। তাঁর বক্তব্য, কেন বাঙালি বঞ্চিত হচ্ছে? গোয়ার লোকেদের কেন (বাংলা থেকে) রাজ্যসভায় পাঠানোর জন্য? বঙ্গ বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের দাবি, তৃণমূলের বহিরাগত তত্ব কেবলই রাজনৈতিক ছিল।

উল্লেখ্য রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্ত চলছে পুরোদমে। অভিযোগের ভিত্তিতে জেলায় জেলায় গিয়ে তদন্ত শুরু করেছে সিবিআই। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। পাশাপাশি ধড়পাকড়ও চলছে।  এ বার, গাঙনাপুরে বিজেপি কর্মী উত্তম ঘোষকে পিটিয়ে খুনের ঘটনায় প্রায় সাত মাস পরে ভোলানাথ বিশ্বাস নামে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

সিবিআই সূত্রে খবর, ভোলানাথ বিশ্বাস ওরফে ভোলা নামের ওই অভিযুক্তকে সোমবার গাঙনাপুর থেকেই গ্রেফতার করেন সিবিআই কর্তারা। ভোলানাথ ছাড়াও গাঙনাপুর থানা বেশ কয়েকজন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন: Chidambaram slam center: বিতর্ক ছাড়াই কৃষি আইন প্রত্যাহার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ কংগ্রেস নেতা চিদম্বরমের

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla