পণের দাবিতে বধূকে ‘আত্মহত্যার প্ররোচনা’! হাজতে স্বামী-শ্বশুর

Baranagar: চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি বরাহনগরে পাঠবাড়ি লেনের বাসিন্দা তাপস কয়ালের মেয়ে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে বিয়ে হয় অর্পণ কুণ্ডুর।

পণের দাবিতে বধূকে 'আত্মহত্যার প্ররোচনা'! হাজতে স্বামী-শ্বশুর
নিজস্ব চিত্র

কলকাতা: পণের দাবিতে বরানগরে স্ত্রীকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ। গ্রেফতার স্বামী ও শ্বশুর। ঘটনাটি ঘটেছে বরাহনগরের প্রাণকৃষ্ণ সাহা লেনে। মৃতের নাম প্রিয়াঙ্কা কুণ্ডু।

পুলিশ সূত্রে খবর, চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি বরাহনগরে পাঠবাড়ি লেনের বাসিন্দা তাপস কয়ালের মেয়ে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে বিয়ে হয় অর্পণ কুণ্ডুর। অর্পণ বরানগরের প্রাণকৃষ্ণ সাহা লেনের বাসিন্দা। তাপসের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে তাঁর মেয়ের সঙ্গে অত্যাচার করতেন শ্বশুড়বাড়ির সদস্যরা।

তাঁর আরও অভিযোগ, মেয়ের স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি সকলেই তাঁর মেয়ের ওপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার চালাতেন। বাড়িতে একাধিকবার সে কথা জানিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা। একাধিকবার দু’বার বসে কথা বলে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছে। কিন্তু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। তা সহ্য না করতে পেরে সোমবার তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করেন।

এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই বরাহনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামী অর্পণ কুন্ডু ও শ্বশুর তাপস কুণ্ডুকে গ্রেফতার করেছে বরাহনগর থানার পুলিশ। ধৃতদের ব্যারাকপুর আদালতে পেশ করা হবে। আরও পড়ুন: মালদায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’, সালিশি সভায় এক ঘরে করে রাখার ‘নিদান’

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla