Na Bollei Noy: ভোট রঙ্গে মশগুল বঙ্গ রাজনীতিতে গরুর কদর এখন অপরিসীম, যে কথা ‘না বললেই নয়’

কোন দিকে এগোচ্ছে গরুপাচারের তদন্ত? গরু নিয়ে এত হইচই-এর মধ্যে কেমন বহাল তবিয়তে চলছে বীরভূমের গরুর হাট?

Na Bollei Noy: ভোট রঙ্গে মশগুল বঙ্গ রাজনীতিতে গরুর কদর এখন অপরিসীম, যে কথা ‘না বললেই নয়’
'না বললেই নয়' দেখুন TV9 বাংলায়
TV9 Bangla Digital

| Edited By: অংশুমান গোস্বামী

Aug 13, 2022 | 4:59 PM

কলকাতা: গরুর নাম শুনলেই শক লাগছে, চুল খাড়া হয়ে যাচ্ছে অনেকের। অথচ ভারতের অর্থনীতিতে গরুর ভূমিকা কম নয়। এখন বোঝা যাচ্ছে, ব্যক্তিগত আখের গোছাতে, মানে টু পাইস আয় করতেও গরুর ভূমিকা বিরাট। গরুর পাচারের তদন্তে নাম জড়ানোয় কেষ্ট-বিষ্টু লোকজন যখন গ্রেফতার হয়েছেন। তখন গরুকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। কলি কালের কেষ্ট-র বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি নাকি আস্ত গরুই সীমান্তের ওপারে পাচারে সহযোগিতা করেন। অভিযোগ, গরু, কয়লা এই সব পাচারের টাকায় ফুলেফেঁপে উঠেছে তাঁর তহবিল। এই সমস্তটাই এখনও অভিযোগ, প্রমাণ সাপেক্ষ বিষয়। শেষ পর্যন্ত অনুব্রত মণ্ডল বেনিফিট অফ ডাউট পেয়ে যাবেন কি না নির্ভর করছে তদন্তকারীদের ওপর। কোন দিকে এগোচ্ছে গরুপাচারের তদন্ত? গরু নিয়ে এত হইচই-এর মধ্যে কেমন বহাল তবিয়তে চলছে বীরভূমের গরুর হাট? শুনলে বুঝবেন, গরুর লেজ ধরে ভোট বৈতরণী পার হওয়ার চেষ্টা কেন চলছে। আসলে, গরু হোক বা কয়লা, ভোটই তো শেষ কথা। কাজেই ভোট রঙ্গে মশগুল বঙ্গ রাজনীতিতে গরুর কদর এখন অপরিসীম।

কানামাছি ভোঁ ভোঁ করতে করতে, শেষমেশ অনুব্রত মণ্ডলকে তো ছুঁয়েই ফেলেছে সিবিআই। এবার? গরু পাচারের তদন্তে শেষ পর্যন্ত কী বেরোয় তার জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া গতি নেই। কিন্তু, অনুব্রত এবং CBI এর মাঝে আচমকা এসে পড়েছেন আরও কয়েকজন। এ তো গরিবের ঘোড়া রোগ! এমন হাইপ্রোফাইল মামলায় যেচে কি কেউ জড়িয়ে পড়ে? বোলপুর মহকুমা হাসপাতালের চিকিত্‍সক চন্দ্রনাথ অধিকারী এবং ওই হাসপাতালের সুপার কিন্তু, কাহিনিতে আবার টুইস্ট এনেছেন। কার নির্দেশে অনুব্রতর বাড়িতে বোলপুর হাসপাতালের ডাক্তারবাবু গিয়েছিলেন? বোলপুর হাসপাতালের সুপারের দাবি, বীরভূমের জেলা সভাধিপতি তথা সিউড়ির বিধায়ক অনুব্রত ঘনিষ্ঠ বিকাশ রায়চৌধুরীর কথায়। চিকিত্‍সক চন্দ্রনাথ অধিকারীও সেই একই কথা বলছেন। কী বলছেন বীরভূমের জেলা সভাধিপতি?

রাজ্যে ঝড় তুলে দিয়েছে কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলো। তৃণমূলের মহাসচিবের পর দোর্দন্ডপ্রতাপ কেষ্ট মণ্ডলকেও গ্রেফতার করেছে বাড়ি থেকে। কেষ্টকে তো আবার খুঁজেপেতে বার করতেও হয়েছে।  পার্থ-অনুব্রত গ্রেফতার হতেই বিরোধীরা মনে করছে, হাতে চাঁদ পেয়েছে। সত্যিই কি তাই? দলমত নির্বিশেষে নেতাদের কি আর ভরসা করছে জনতা? এই সব কথা আজ হবে।

টিভি নাইন বাংলায় দেখবেন, না বললেই নয়। রাত ৮.৫৭।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla