প্রেগন্যান্সিতে ব্যাক পেইন দূর করতে এই ঘরোয়া টোটকা কাজে লাগান

প্রেগন্যান্সি অবস্থায় পিঠে ও কোমরে যন্ত্রণা একটি স্বাভাবিক ও চেনা ঘটনা। বিশেষ করে পাঁচ থেকে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন এই সমস্যার সম্মুখীন হন প্রায় সব মহিলারাই। কোমরের নীচ থেকে এই ব্যথা শুরু হয়, তারপর তা পায়ের থাই পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে।

1/8
৫০ থেকে ৭০ শতাংশ প্রেগন্যান্ট মহিলা এই যন্ত্রণাকে সহ্য করেন। কী কী কারণে এই ব্যাথা হয়, তা হল- প্রেগন্যান্ট অবস্থায় পেলভিস ও লাম্বার স্পাইনে প্রচুর চাপ পড়ে, অনিদ্রা, ইউটেরাস ক্রমাগত বৃদ্ধির কারণে কোমরে যন্ত্রণা হতে থাকে।
৫০ থেকে ৭০ শতাংশ প্রেগন্যান্ট মহিলা এই যন্ত্রণাকে সহ্য করেন। কী কী কারণে এই ব্যাথা হয়, তা হল- প্রেগন্যান্ট অবস্থায় পেলভিস ও লাম্বার স্পাইনে প্রচুর চাপ পড়ে, অনিদ্রা, ইউটেরাস ক্রমাগত বৃদ্ধির কারণে কোমরে যন্ত্রণা হতে থাকে।
2/8
রাতের পর রাত অনিদ্রা ও যন্ত্রণাদায়ক দিন কাটানোর কারণে কোমরের ও পিঠের যন্ত্রণা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে।
রাতের পর রাত অনিদ্রা ও যন্ত্রণাদায়ক দিন কাটানোর কারণে কোমরের ও পিঠের যন্ত্রণা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে।
3/8
স্বাভাবিকের তুলনা প্রেগন্যান্ট অবস্থায় ১০-১৫ কেজি ওজন বৃদ্ধি হয় মহিলাদের। মাসের পর মাস ও ডেলিভারির আগে পর্যন্ত ওজন বাড়তে থাকায় মেরুদণ্ডের উপর চাপ তৈরি হয়, কোমরে ও পিঠে আস্বাভাবিক ব্যথা শুরু হয়। এছাড়া রয়েছে হরমোনের মাত্রারিক্ত পরিবর্তন, অত্যাধিক মানসিক চাপের কারণে যন্ত্রণা বৃদ্ধি পায়।
স্বাভাবিকের তুলনা প্রেগন্যান্ট অবস্থায় ১০-১৫ কেজি ওজন বৃদ্ধি হয় মহিলাদের। মাসের পর মাস ও ডেলিভারির আগে পর্যন্ত ওজন বাড়তে থাকায় মেরুদণ্ডের উপর চাপ তৈরি হয়, কোমরে ও পিঠে আস্বাভাবিক ব্যথা শুরু হয়। এছাড়া রয়েছে হরমোনের মাত্রারিক্ত পরিবর্তন, অত্যাধিক মানসিক চাপের কারণে যন্ত্রণা বৃদ্ধি পায়।
4/8
প্রেগন্যান্ট অবস্থায় দেহের ফ্লেক্সিবিলিটি বজায় রাখতে ও ব্যাক পেইন রুখতে কিছু  সহজ এক্সারসাইজ করতে পারেন। প্রেনাটাল যোগা ট্রাই করতে পারেন।
প্রেগন্যান্ট অবস্থায় দেহের ফ্লেক্সিবিলিটি বজায় রাখতে ও ব্যাক পেইন রুখতে কিছু সহজ এক্সারসাইজ করতে পারেন। প্রেনাটাল যোগা ট্রাই করতে পারেন।
5/8
মেরুদণ্ড থেকে চাপ কমাতে ও রিল্যাক্স থাকতে ঘরের মধ্যে অল্পবিস্তর সেফ এক্সারসাইজ করতেই পারেন। সুইমিং, ওয়াকিং, স্টেশনারি সাইক্লিং করা যেতে পারে। তবে এক্সারসাইজ চালু করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ অত্যন্ত জরুরি।
মেরুদণ্ড থেকে চাপ কমাতে ও রিল্যাক্স থাকতে ঘরের মধ্যে অল্পবিস্তর সেফ এক্সারসাইজ করতেই পারেন। সুইমিং, ওয়াকিং, স্টেশনারি সাইক্লিং করা যেতে পারে। তবে এক্সারসাইজ চালু করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ অত্যন্ত জরুরি।
6/8
পিঠে ও কোমরের যন্ত্রণা বাড়তে থাকলে ঠান্ডা-গরম কমপ্রেস করতে পারেন। চটপট আরাম পাবেন এতে। দিনে ২০-৩০ মিনিট এই ঘরোয়া পদ্ধতি কোল্ড কমপ্রেস করুন।  কিছুদিন পর ওই একই জায়গায় গরম কমপ্রেস করুন। প্রেগন্যান্ট অবস্থায় এই পদ্ধতি যেন তলপেটে বা সামনের কোনও অংশে প্রয়োগ করবেন না।
পিঠে ও কোমরের যন্ত্রণা বাড়তে থাকলে ঠান্ডা-গরম কমপ্রেস করতে পারেন। চটপট আরাম পাবেন এতে। দিনে ২০-৩০ মিনিট এই ঘরোয়া পদ্ধতি কোল্ড কমপ্রেস করুন। কিছুদিন পর ওই একই জায়গায় গরম কমপ্রেস করুন। প্রেগন্যান্ট অবস্থায় এই পদ্ধতি যেন তলপেটে বা সামনের কোনও অংশে প্রয়োগ করবেন না।
7/8
এই সময় দেহের গঠনের প্রতিও নজর দেওয়া প্রয়োজন। সঠিক দেহের গঠন কোমর ও পিঠের ব্যাথা থেকে রেহাই দিতে পারে। এই সময় সোজা হয়ে বসা, খুব ভাল হয় যদি পিঠে নরম বালিশ দিয়ে বসতে পারেন। তাহলে কিছুটা আরাম পাবেন।
এই সময় দেহের গঠনের প্রতিও নজর দেওয়া প্রয়োজন। সঠিক দেহের গঠন কোমর ও পিঠের ব্যাথা থেকে রেহাই দিতে পারে। এই সময় সোজা হয়ে বসা, খুব ভাল হয় যদি পিঠে নরম বালিশ দিয়ে বসতে পারেন। তাহলে কিছুটা আরাম পাবেন।
8/8
অনলাইনে বা ফার্মেসিতে খোঁজ করলেই পাবেন মেটারনিটি বেল্ট। কতকটা আন্ডারগারমেন্টের মতো ব্যবহার করা যায়। পেলভিককে সুরক্ষিত রেখে কোমরের চাপকে অনেকটা স্বস্তি দেয় এই বেল্ট।
অনলাইনে বা ফার্মেসিতে খোঁজ করলেই পাবেন মেটারনিটি বেল্ট। কতকটা আন্ডারগারমেন্টের মতো ব্যবহার করা যায়। পেলভিককে সুরক্ষিত রেখে কোমরের চাপকে অনেকটা স্বস্তি দেয় এই বেল্ট।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla