ভারতের অধিনায়ক হবেন ভেবেছিলেন যুবি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের দু'বছর পর তিনি জানালেন, ২০০৭ সালের টি-২০ বিশ্বকাপের (T-20 World Cup) আগে তিনি ভেবেছিলেন ভারতকে (India) নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে তাঁর হাতে। কিন্তু তা হয়নি।

ভারতের অধিনায়ক হবেন ভেবেছিলেন যুবি
ফাইল চিত্র

নয়াদিল্লি: যুবরাজ সিং (Yuvraj Singh)। ভারতীয় ক্রিকেটে (Cricket) এক উজ্জ্বল নাম। তাঁর নামের পাশে রয়েছে বহু ম্যাচ জেতানো ইনিংস। একসময় দেশের মাঠে হোক বা বিদেশের মাঠে দাপিয়ে বেড়াতেন ভারতের এই অলরাউন্ডার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের দু’বছর পর তিনি জানালেন, ২০০৭ সালের টি-২০ বিশ্বকাপের (T-20 World Cup) আগে তিনি ভেবেছিলেন ভারতকে (India) নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে তাঁর হাতে। কিন্তু তা হয়নি। বরং সেই সময় আর এক তরুণ উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান মহেন্দ্র সিং ধোনির (MS Dhoni) ওপর ভরসা রেখেছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। সেই ভরসার মানও রেখেছিলেন মাহি।

২০০৭ সালে রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে হেরেছিল ভারত। তার পরই টিম ইন্ডিয়ার দু’টি বিদেশ সফর ছিল। সেইসময় টি-২০ বিশ্বকাপ ছিল তাতেই অধিনায়ক হওয়ার আশা ছিল যুবির। সম্প্রতি গৌরব কাপূরের ‘২২ ইয়ার্নস’ পডকাস্টে যুবরাজ সিং বলেন, “মূলত ভারত ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে হেরেছিল, তাই না? আমার মনে আছে সেইসময় ভারতীয় ক্রিকেট এক কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল। তারপর আমাদের দক্ষিণ আফ্রিকা ও আয়ারল্যান্ড সফর ছিল। ঠিক তারপরই ছিল টি-২০ বিশ্বকাপ। সিনিয়র ক্রিকেটাররা বিশ্রাম চাইছিলেন। ২০ ওভারের বিশ্বকাপকেও সেভাবে গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছিল না। যার ফলে ওই টুর্নামেন্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পাব আমি বলে আশা করেছিলাম। কিন্তু সেইসময় ধোনির নাম ঘোষণা করা হয়।”

অধিনায়ক হতে না পারায় হতাশ হয়েছিলেন যুবি। তবে টিমের জন্য নিজের সেরাটা উজাড় করে দিতে পিছপা হননি তিনি। তবে ধোনির জন্য অধিনায়কত্ব হাত ছাড়া হলেও তাঁর সঙ্গে সম্পর্কে চিড় ধরেনি বলে এসেছেন যুবি। তাঁর কথায়, “রাহুল, সৌরভ কিংবা ধোনি যেই ক্যাপ্টেন হোক না কেন তাঁকে সমর্থন করাটাই সঠিক কাজ ছিল। সেটাই করেছি। যাই হোক না কেন, একজন টিম-ম্যান হওয়াটাই আসল।”

টি-২০ বিশ্বকাপে প্রথমবার ইতিহাস গড়েছিল টিম ইন্ডিয়ার তরুণ ক্রিকেটাররা। যুবি বলেছেন, “২০০৭ সালের বিশ্বকাপে আমরা এমন একটা দল ছিলাম, যেখানে তরুণ ক্রিকেটাররা ছিল। আমাদের সঙ্গে কোনও বড় নামকরা কোচ ছিল না এবং আন্তর্জাতিক স্তরের অভিজ্ঞতা থাকা কোচও ছিলেন না। লালচাঁদ রাজপুত ছিলেন আমাদের কোচ এবং আমাদের বোলিং কোচ ছিলেন ভেঙ্কটেশ প্রসাদ। দক্ষিণ আফ্রিকাতে তরুণ নেতা নিয়ে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। আমাদের কাছে সেরকম কোনও স্ট্র্যাটেজিও ছিল না। টি-২০-র আলাদা কৌশলও জানা ছিল না। কারণ ওটাই প্রথম টি-২০ টুর্নামেন্ট ছিল। তাই আমরা সকলে যেভাবে খেলতে জানি সেরকম খেলাই চালিয়ে গিয়েছিলাম।”

দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০০৭ সালের কুড়ি-বিশের বিশ্বকাপে ৬টি ম্য়াচে ১৪৮ রান করেছিলেন যুবরাজ সিং। সেই সফরেই ইংল্যান্ডের তারকা বোলার স্টুয়ার্ট ব্রডের এক ওভারে ছয় ছক্কার রেকর্ডও গড়েন যুবি।

আরও পড়ুন: European Super League: সুপার লিগ যোগ, ৬ ক্লাবকে বড় শাস্তি