‘নেভিগেশন এরর’, নাসার পাঠানো মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity- র ষষ্ঠ উড়ানে গন্ডগোল

প্রথম পাঁচটি উড়ান সফলভাবেই সম্পন্ন করেছিল এই হেলিকপ্টার। কিন্তু গোলযোগ দেখা দিয়েছে ষষ্ঠ উড়ানের ক্ষেত্রে।

'নেভিগেশন এরর', নাসার পাঠানো মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity- র ষষ্ঠ উড়ানে গন্ডগোল
ছবি প্রতীকী

মঙ্গলগ্রহের বুকে জল এবং প্রাণের সন্ধান চালাচ্ছে নাসার রোভার পারসিভের‍্যান্স। আপাতত লালগ্রহের পৃষ্ঠদেশে পর্যবেক্ষণ চালাচ্ছে নাসার পাঠানো মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity। প্রথম পাঁচটি উড়ান সফলভাবেই সম্পন্ন করেছিল এই হেলিকপ্টার। কিন্তু গোলযোগ দেখা দিয়েছে ষষ্ঠ উড়ানের ক্ষেত্রে। নাসার পাঠানো এই ছোট্ট হেলিকপ্টার Ingenuity- এর মধ্যে ‘নেভিগেশন টাইমিং এরর’ দেখা দিয়েছিল। আর তার ফলে Ingenuity- র ষষ্ঠ উড়ান খুব একটা সাবলীল হয়নি।

তবে মঙ্গলগ্রহে পৌঁছনোর পর থেকে এই প্রথমবার এরকম সমস্যা দেখা দিয়েছে Ingenuity- তে। যদিও এর আগে মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity- র প্রথম উড়ানের কয়েক মুহূর্ত আগে তা বাতিল করে দেওয়া হয়ে। পরে অন্য দিন নির্ধারণ করে Ingenuity- র প্রথম উড়ান সম্পন্ন হয়েছিল। সেক্ষেত্রে উড়ানের কোনও সমস্যা দেখা দেয়নি। আর যে কারণে উড়ান পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল, বৈজ্ঞানিকরা গবেষণা করে জানান যে, সেই ত্রুটি খুব মারাত্মক কিছু ছিল না। অঘটন যাতে না ঘটে সেই জন্যই অতিরিক্ত সতর্ক করে বারবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখে নিয়েছিলেন বৈজ্ঞানিকরা।

মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity- র ষষ্ঠ উড়ানের সময় সমস্যা দেখা দেওয়ার ফলে প্রায় এক মিনিট এক মিনিট ধরে গোলযোগ ছিল। সেই সময় ৩৩ ফুট (১০ মিটার)ট  উঁচু দিয়ে উড়ছিল Ingenuity। উড়ানের সময় Ingenuity নিজের মধ্যে থাকা ক্যামেরায় মঙ্গলগ্রহের পৃষ্ঠদেশের বেশ কিছু ছবিও তুলেছিল। তবে নেভিগেশন সিস্টেমে ত্রুটি থাকায় সেইসব ছবি রেজিস্টার হয়নি। নেভিগেশন সিস্টেমে গন্ডগোল দেখা দেওয়ায় একটি নির্দিষ্ট সময়ের ফুটেজ এবং লোকেশন কিছুই রেজিস্টার হয়নি।

আরও পড়ুন- মহাকাশ থেকে রাতের অন্ধকারে উজ্জ্বল ইস্তানবুল, ছবি শেয়ার নাসার

এখানেই শেষ নয়। ল্যান্ডিংয়ের ক্ষেত্রেও সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে মার্স হেলিকপ্টার Ingenuity। প্রায় ২০ ডিগ্রি বাঁক নিয়ে অবতরণ হয়েছে এই হেলিকপ্টারের। কারণ power consumption- এর সমস্যা দেখা দিয়েছিল। এমনটাই জানিয়েছেন, মার্স হেলিকপ্টারের চিফ পাইলট হাভার্ড গ্রিপ। তবে শেষ পর্যন্ত ইন-বিল্ড সিস্টেমের সহায়তায় সফলভাবেই অবতরণ করতে পেরেছে মার্স হেলিকপ্টার। যেখানে অবতরণ হওয়ার কথা ছিল তার থেকে ১৬ ফুট (৫ মিটার) দূরে ল্যান্ড করেছে হেলিকপ্টার Ingenuity।