তৈরি হচ্ছে জেলার সর্ববৃহৎ কোভিড হাসপাতাল, ক্যানিংয়ে এসে পৌঁছল ৫০ টি শয্যা, সৌজন্যে ‘গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন’

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ২৫০ টি কোভিড শয্যার মধ্যে বুধবার, 'গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন' নাম্নী একটি সংস্থার তরফে ইতিমধ্যেই ৫০ টি শয্য়া (COVID bed) এসে গিয়েছে। ওই সংস্থার তরফে ৫০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার হাসপাতালকে দেওয়া হবে বলেও জানা গিয়েছে।

তৈরি হচ্ছে জেলার সর্ববৃহৎ কোভিড হাসপাতাল, ক্যানিংয়ে এসে পৌঁছল ৫০ টি শয্যা, সৌজন্যে 'গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন'
ক্য়ানিং কোভিড হাসপাতাল, নিজস্ব চিত্র

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: তৈরি হওয়ার কথা ছিল মাতা ও শিশু সুরক্ষা কেন্দ্র (Mother And Child Care Hub)। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জেরে সেই পরিকল্পনা বাতিল করে গড়ে উঠছে কোভিড হাসপাতাল। দক্ষিণ ২৪ পরগনারসর্ববৃহৎ কোভিড হাসপাতালটি তৈরি হচ্ছে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের (Canning Subdivision Hospital) কাছেই। শেষ দফায় ম্যারাথন প্রস্তুতি চলছে হাসপাতাল চত্বরে। বুধবার বিকেলে, হাওড়ার গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন নামে এক সংস্থার দেওয়া ৫০ টি কোভিড শয্যা ইতিমধ্যেই এসে গিয়েছে হাসপাতালে। জানা গিয়েছে, ওই সংস্থার তরফে ৫০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডারও আনা হবে এই কোভিড হাসপাতালে (COVID19 Hospital)।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনার উত্তরোত্তর সংক্রমণ বৃদ্ধির জেরে গত ২২ এপ্রিল সরকারিভাবে ঘোষণা করা হয়, যে ক্যানিং মাদার অ্যান্ড চাইল্ড হাবটির বদলে তৈরি করা হবে ক্যানিং কোভিড হাসপাতাল। মোট ২৫০ টি কোভিড শয্যা নিয়ে তৈরি হচ্ছে এই হাসপাতাল। ক্য়ানিং মহকুমা-সহ জেলার অন্যান্য প্রান্তের কোভিড আক্রান্তদের এখানে এনে চিকিৎসা করা হবে। হাসপাতালের কাজও শেষের দিকে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ২৫০ টি কোভিড শয্যার মধ্যে বুধবার, ‘গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন’ নাম্নী একটি সংস্থার তরফে ইতিমধ্যেই ৫০ টি শয্য়া (COVID bed) এসে গিয়েছে। ওই সংস্থার তরফে ৫০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার হাসপাতালকে দেওয়া হবে বলেও জানা গিয়েছে। তবে বাকি ২০০ টি শয্যা ও প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের ব্যবস্থা কী হবে তা এখনও জানা যায়নি। হাসপাতালটি কবে থেকে পরিপূর্ণ ভাবে চালু হবে তারও দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। তবে দ্রুত এই হাসপাতালের পরিষেবা চালু করতে চায় প্রশাসন। পাশাপাশি,  ‘গো ধার্মিক ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন’-এর পক্ষ থেকে জানা গিয়েছে, হাসপাতাল তৈরির প্রথম পর্যায়ে তারাা ৫০ টি কোভিড শয্য়ার ব্যবস্থা করেছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে আরও কিছু শয্য়ার ব্যবস্থা করবে তারা। এমনকী, সুন্দরবনের বাসন্তী ও গোসাবার ব্লক হাসপাতালগুলিকে কোভিড শয্য়া ও অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে সাহায্য় করতেও প্রস্তুত ‘গো ধার্মিক অ্যাসোসিয়েশন’।

উল্লেখ্য, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় লাগামহীন করোনা সংক্রমণ অব্যাহত। গত ২৪ ঘণ্টা উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৯৮ জন। হাজার পেরিয়ে গিয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্য়া। এই জেলায় আক্রান্ত ১১১৫ জন। করোনার থাবায় শহর কলকাতার পাশাপাশি জেলার চিত্রও খারাপের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে। হাওড়া ও হুগলির পাশাপাশি এবার দৈনিক সংক্রমণে হাজারের গণ্ডি পার করেছে নদিয়াও। শেষ ২৪ ঘণ্টায় ওই জেলায় আক্রান্ত ১০৪০ জন। হাজার পার হাওড়া, হুগলির দৈনিক সংক্রমণও।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত হওয়ার ৩ দিনের মধ্যে অবসাদে ‘আত্মঘাতী’ বৃদ্ধ!

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla