Dudhkumar Mondal : ‘আমাকে ভালবাসলে চুপচাপ বসে যান’, বিজেপি কর্মীদের বার্তা ‘বেসুরো’ দুধকুমারের

Dudhkumar Mondal : দুধকুমার মণ্ডল বলেন, " ময়ূরেশ্বর ২ এলাকায় দলকে দাঁড় করিয়েছিলাম। এখন সেখানে দল তলানিতে এসে ঠেকেছে। তবুও তাদের মনে হয় না, দলটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাকে প্রয়োজন।"

Dudhkumar Mondal : 'আমাকে ভালবাসলে চুপচাপ বসে যান', বিজেপি কর্মীদের বার্তা 'বেসুরো' দুধকুমারের
দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সরব হলেন দুধকুমার মণ্ডল
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Sanjoy Paikar

Jun 19, 2022 | 2:36 PM

বীরভূম : তিনি বীরভূমের দাপুটে বিজেপি নেতা। বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য। সোশ্যাল মিডিয়ায় দু’মাসের বেশি ‘নীরব’ থাকার পর আজ সকালে একটি পোস্ট করেছেন। আর তাঁর সেই পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে শোরগোল। প্রশ্ন উঠছে, এবার কি ‘বেসুরো’ হলেন দুধকুমার মণ্ডল (Dudhkumar Mondal)? যদিও তিনি জানিয়ে দিলেন, বিজেপি ছাড়ার কোনও প্রশ্নই নেই।

দুধকুমারের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বলছে, আজকের আগে শেষ পোস্ট করেছিলেন গত ১১ এপ্রিল। একটি ভিডিয়ো বার্তা পোস্ট করেছিলেন তিনি। গত ১৩ এপ্রিল সিউড়িতে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর একটি পদযাত্রা ও প্রতিবাদ সভা ছিল। সেই সভায় উপস্থিত থাকার জন্য দলের কর্মী সমর্থকদের আবেদন জানিয়েছিলেন। ওই পোস্টের পর আজ সকালে পোস্ট করলেন। আর সেই পোস্ট ঘিরেই শুরু হয়েছে শোরগোল।

পোস্টে কী লিখেছেন দুধকুমার মণ্ডল?

তিনি লিখেছেন, ‘জেলা থেকে ব্লক কমিটি আমার সঙ্গে আলোচনা না করে কমিটি গঠন করেছে। তাই ভারতীয় জনতা পার্টির সমর্থক এবং কার্যকর্তাগণ আমাকে যাঁরা ভালবাসেন, তাঁরা চুপচাপ বসে যান।’

বিজেপির বিভিন্ন কমিটি ঘোষণার পর থেকে একাধিক জেলায় বিজেপি কর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নন্দীগ্রামে গণ ইস্তফার হুঁশিয়ারি দেন গেরুয়া শিবিরের কর্মীরা। উত্তর ২৪ পরগনার বারাসত সাংগঠনিক জেলা কমিটির একাধিক সদস্য পদত্যাগ করেন। এবার এই নিয়ে সরব হলেন দুধকুমার।

এর আগে বঙ্গ বিজেপির একাধিক নেতাকে দলের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে দেখা গিয়েছে। ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং তৃণমূলে ফেরার আগে সরব হয়েছিলেন। এরপর পদ্ম ছেড়ে ঘাসফুলে যোগ দেন। এবার কি দলবদল করতে পারেন দুধকুমার মণ্ডল ? ফেসবুক পোস্টের পর এই নিয়ে তাঁর বক্তব্য জানতে চাইলে দুধকুমার বলেন, “বিজেপি করি। বিজেপি-ই করব। মিটিংয়ে না গেলেও বিজেপিতে থাকা যায়। অন্য দলে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত এখানে আছি।”

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্ট তিনিই করেছেন জানিয়ে বিজেপির এই দাপুটে নেতা বলেন, “জেলায় এখন যেভাবে রাজনীতি চলছে, সেটা সমর্থন করতে পারছি না। আজ দলটা একটা কোম্পানিতে পরিণত হয়ে যাচ্ছে। রাজ্য সভাপতি জেলা সভাপতির নাম ঘোষণা করছেন। জেলা সভাপতি ব্লক সভাপতিদের নাম ঘোষণা করে দিচ্ছেন। আর ব্লক সভাপতি নিজের মতো কমিটি গঠন করছেন।” বিজেপি নেতৃত্বকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, ” ময়ূরেশ্বর ২ এলাকায় দলকে দাঁড় করিয়েছিলাম। এখন সেখানে দল তলানিতে এসে ঠেকেছে। তবুও তাদের মনে হয় না, দলটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাকে প্রয়োজন। আমার মুখ ব্যবহার করে বলা হচ্ছে, দুধকুমার আমাদের সঙ্গে রয়েছেন। কিন্তু, সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আমার সঙ্গে আলোচনা করা হয় না।” একাধিকবার এই নিয়ে তিনি নেতৃত্বকে জানিয়েছেন। কিন্তু, তাঁর কথায় কর্ণপাত করা হয়নি বলে অভিযোগ বিজেপির এই দাপুটে নেতার।

BJP

বিজেপি ছাড়ছেন না বলে জানিয়ে দিলেন দুধকুমার মণ্ডল

বিজেপির বীরভূম সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি দীপক দাস বলেন, “উনি কেন এমন বললেন জানি না। তবে মণ্ডল স্তর থেকে জেলা স্তর পর্যন্ত কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত রাজ্য কমিটির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।” দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, “কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই। কোনও ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। দুধকুমারদার সঙ্গে কথা বলব।”

দুধকুমার মণ্ডলের পোস্টের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, “কোনও নেতাকে ভালবেসে কেউ বিজেপি করেন না। বিজেপির নীতি আদর্শকে ভালবেসে দল করে।” দুধকুমারের বিরুদ্ধে কোনও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না, এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, দলের নিয়ম মেনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই খবরটিও পড়ুন

বিজেপির অভ্যন্তরীণ বিষয় জানিয়ে মন্তব্য করব না বলেও গেরুয়া শিবিরকে কটাক্ষ করলেন তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি মলয় মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “ওদের দলীয় ব্যাপার। যা কিছু সিদ্ধান্ত নিতে পারে। দলটা তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ছে। কোনও সংগঠন নেই। এখনও নিজের ঘর সামলাতে পারল না। তাহলে কী করে পঞ্চায়েতে বিজেপি আমাদের সঙ্গে লড়াই করবে।”

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla