Jalpaiguri: স্বামীর থেকে আলাদা বহুদিন, দরজা ঠেলে মায়ের অবস্থা দেখে এক ঝটকায় মুখ ফেরাল মেয়ে…

Jalpaiguri: জলপাইগুড়ির আশ্রমপাড়া। সেখানেই এই ঘটনা ঘটেছে। রত্না ভৌমিক সরকার নামে এক মহিলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

Jalpaiguri: স্বামীর থেকে আলাদা বহুদিন, দরজা ঠেলে মায়ের অবস্থা দেখে এক ঝটকায় মুখ ফেরাল মেয়ে...
একসঙ্গে মা মেয়ে।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: সায়নী জোয়ারদার

Jul 03, 2022 | 11:53 PM

জলপাইগুড়ি: মোবাইল নিয়ে পাশের ঘরে ব্যস্ত মেয়ে। কিছু আগেই মা এসে খোঁজ নিয়ে যান, দুপুরে মেয়ে কী খাবে। এরপর মা বেরিয়ে যান। মেয়ে ফের মগ্ন হয়ে যান মোবাইলের স্ক্রিনে। খিদে পেতেই মনে পড়ে মায়ের কথা। মাকে ডাকতে ডাকতে পাশের ঘরে যান তিনি। ঘরের দরজা ভেজানো। তা ঠেলতেই যে দৃশ্য মেয়ে দেখেন, গলা শুকিয়ে যায় তাঁর। চিৎকার করে ওঠেন। এরপরই ছুটে আসেন স্থানীয়রা, ছুটে আসেন আত্মীয়স্বজন। ৪৫ বছর বয়সী ওই মহিলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় ভাড়া বাড়ি থেকে। রবিবার দুপুরের এই ঘটনায় জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

জলপাইগুড়ির আশ্রমপাড়া। সেখানেই এই ঘটনা ঘটেছে। রত্না ভৌমিক সরকার নামে এক মহিলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের দাবি, পোস্ট অফিসে কাজ করতেন তিনি। ভাল পদেই ছিলেন। কিন্তু কোনও অভিযোগের ভিত্তিতে বর্তমানে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়। মেয়েকে নিয়ে আশ্রমপাড়ায় থাকতেন রত্নাদেবী। স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে বহুদিন। মেয়ের দাবি, মা মানসিক চাপে থাকতেন। হতাশা কাজ করত। সঙ্গে আর্থিক টানাটানি। এরইমধ্যে এই ঘটনা ঘটে বলে জানান তিনি।

রত্নাদেবীর মেয়ে অন্বেষা ভৌমিক বলেন, “জানি না মা কেন এমন করল। মা অনেকদিন ধরেই মানসিক চাপে ছিল। বাবা, মা অনেকদিনই আলাদা। মা পোস্ট অফিসে কাজ করত। তিন বছর ধরে সাসপেন্ড। সেটা নিয়ে একটা চাপ ছিল মনের মধ্যে। আজ ঘটনার কিছু আগেও আমার ঘরে এসে আমার সঙ্গে কথা বলে যায়। জানতে চেয়েছিল খাব কি খাব না। আমি আবার বললাম, তুমি যাও। আমি পরে গিয়ে খাবার গরম করে দেব। মা ওই ঘরে গেল। আমি ফোন দেখছিলাম। কিছুক্ষণ পর মাকে ডাকতে গেছি খাওয়ার জন্য। দরজা ভেজানো ছিল। ধাক্কা দিয়ে খুলতেই দেখি মা ঝুলছে। অথচ কোনও শব্দ আমার কানে আসেনি।”

এই খবরটিও পড়ুন

অন্যদিকে রত্না ভৌমিক সরকারের ভাই আশিস সরকার বলেন, “ভাগ্নি ফোন করল। এসে দেখি এই অবস্থা। কাগজে লিখে গেছে মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নন। অনেকদিন ধরেই ওর কাজের জায়গায় সাসপেনশন চলছিল। ডিপার্টমেন্টের ব্যাপার। কেন সাসপেন্ড, সেটা বলা মুশকিল। তবে পারিবারিক তো ঝামেলা কিছু নেই। মা মেয়ে থাকে। ছোট সংসার। বুঝতেই পারছি না কী হল।” স্থানীয় কাউন্সিলর দীনেশ রাউত বলেন, “তিন মাস আগেই এখানে ভাড়া এসেছিলেন। আজকে শুনলাম অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে ওই মহিলার। পুলিশ দেখছে।” ঘটনায় ডিএসপি (হেডকোয়ার্টার) সমীর পাল জানিয়েছেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর তদন্ত শুরু হয়েছে। সোমবার দেহের ময়নাতদন্ত হবে। তারপর রিপোর্ট আসার পর যদি মৃত্যুর কোনও অস্বাভাবিক কারণ পাওয়া যায় তবে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু হবে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla