lottery: খালি হাতে বেরিয়ে সন্ধ্যায় ১ কোটি নিয়ে বাড়ি ফিরলেন দুই অটোচালক

lottery: খালি হাতে বেরিয়ে সন্ধ্যায় ১ কোটি নিয়ে বাড়ি ফিরলেন দুই অটোচালক
দুই কোটিপতি অটোচালক। নিজস্ব চিত্র।

Canning: এক কোটি টাকা! খুশিতে একেবারে ডগমগ দুই অটোচালকের পরিবারই। ভাবতেই পারেননি এই লকডাউন, মন্দার বাজারে এমন প্রাপ্তিযোগ হবে।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: সায়নী জোয়ারদার

Jan 21, 2022 | 7:32 PM

ক্যানিং: দেড়শো টাকার লটারি কেটে ভাগ্য খুলে গেল দুই অটো চালকের। রাতারাতি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেলেন তাঁরা। ঘটনাটি ঘটেছে ক্যানিং থানার অন্তর্গত হেড়োভাঙা বাজারে। অতিমারির দুঃসময়ে ভাগ্যের পরীক্ষা করবেন বলে লটারির টিকিট কেটেছিলেন হেড়োভাঙা গ্রামের ভরত সিংহ ও বিশ্বজিত সুঁই নামে দুই অটোচালক। সেই লটারির ফল বেরোতেই দেখা যায় অর্থপ্রাপকের তালিকায় রয়েছে তাঁদের লটারির টিকিটের নম্বরও। একবারে এত টাকার মালিক হয়ে কিছুটা ঘাবড়েই যান তাঁরা। নিরাপত্তা চেয়ে থানায়ও ছোটেন তাঁরা।

হেড়োভাঙা বাজারে উজ্জল নস্করের লটারির দোকান। শত অভাব অনটনের মধ্যেও নিয়মিত ভাগ্যের পরীক্ষা করতে আসেন বহু মানুষ। যার যেমন সামর্থ্য, সেইমতো লটারির টিকিট কেনেন। তবে বরাত কি আর অত সহজে খোলে? তারপরও যান এমন নিয়মিত খরিদ্দারও কম নেই দোকানির। বৃহস্পতিবার সেই দোকানেই ১৫০ টাকার লটারির টিকিট কাটেন এলাকার দুই অটোচালক। সন্ধ্যাবেলাই জানতে পারেন তাঁদের কাটা টিকিটে কোটি টাকার বাজিমাত হয়েছে। শুনে তো আকাশ থেকে পড়ার জোগাড়। ততক্ষণে হইহই পড়ে গিয়েছে এলাকায়। লক্ষ্মীবারে চেনা দুই মুখের এমন প্রাপ্তিযোগে দারুণ খুশি দোকানি উজ্জ্বল নস্করও।

ভরত সিংহ, বিশ্বজিত সুঁইরা জানান, অটো চালিয়ে সংসার চালান। লকডাউনে আয় হু হু করে নেমেছে। বিভিন্ন জায়গায় দেনায় রয়েছে। এই অবস্থায় লটারি পাওয়া তো হাতে চাঁদ পাওয়ার সমান। বিশ্বজিৎ সুঁইয়ের বলেন, “আমার কিছু দেনা রয়েছে সেগুলি শোধ করব। বাড়িঘরের কাজেও হাত দেব এবার। বাড়িতে বাচ্চারা আছে। তাদের জন্যও কিছু করব। ইচ্ছা আছে দুঃস্থ মানুষের জন্য কিছু করারও।” তবে অটো চালানো ছাড়ার প্রশ্নই নেই জানালেন কোটিপতি বিশ্বজিৎ। আরেক কোটিপতি ভরত সিংহ বলেন, “লকডাউন গেল। আর্থিক অবস্থা একেবারে তলানিতে ঠেকেছে। দেনাও করেছি অনেক। এখন এই এক কোটি টাকা থেকে সেগুলি শোধ করব। ইচ্ছা আছে বাড়ি করার।”

এক কোটি টাকা! খুশিতে একেবারে ডগমগ দুই অটোচালকের পরিবারই। ভাবতেই পারেননি এই লকডাউন, মন্দার বাজারে এমন প্রাপ্তিযোগ হবে। তবে একইসঙ্গে আশঙ্কাও রয়েছে তাঁদের। কোটি টাকা প্রাপ্তির কথা শুনে কেউ যদি কোনও ক্ষতি করার চেষ্টা করে। ইতিমধ্যেই থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে সমস্ত বিষয়টি জানিয়ে এসেছেন।

এদিকে যাঁর কাছ থেকে লটারির টিকিট পেয়ে মালামাল হয়েছেন দুই অটোচালক সেই উজ্জ্বল নস্করেরও মুখ উজ্জ্বল। শুক্রবার সকালে দোকান মালা দিয়ে সাজিয়েছেন। রজনীগন্ধার পাশাপাশি গাঁদা ফুলের মালাও ঝুলিয়েছেন কাউন্টারের সামনে। তাঁর দোকানে এই প্রথম এমন ঘটনা ঘটল। একইসঙ্গে দু’জন খরিদ্দার এত টাকা জিতলেন। তৃপ্তির হাসি হেসে উজ্জ্বল নস্কর বলেন, “ছ’মাস হল লটারির টিকিটের ব্যবসা করছি। আমার কাছে এর আগে ২ লাখ ২৫ হাজার ছিল সব থেকে বেশি। কোটি টাকা এই প্রথমবার।”

আরও পড়ুন: Fraud Case: কল সেন্টারে হানা পুলিশের, কাপড়ে মুখ ঢেকে ভ্যানে উঠলেন ১৯ জন মহিলা! সঙ্গে দুই পুরুষ

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA