School Reopen: ‘ঘরে বসে কেন?’, ছাত্রদের একেবারে বগলদাবা করে স্কুলে নিয়ে গেলেন শিক্ষকরা

Sonarpur: স্কুল পরিচালন কমিটির সভাপতি জানান, স্কুলে পড়ুয়াদের উপস্থিতি খুবই জরুরি। কোনও পড়ুয়াকে স্কুল ছুট হতে দেওয়া যাবে না।

School Reopen: 'ঘরে বসে কেন?', ছাত্রদের একেবারে বগলদাবা করে স্কুলে নিয়ে গেলেন শিক্ষকরা
ছাত্রদের স্কুলমুখো করতে ময়দানে নামলেন শিক্ষকরাই। নিজস্ব চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: মাঝের দীর্ঘ সময় স্কুল বন্ধ থাকায় বহু পড়ুয়ার স্কুলে যাওয়ার অভ্যাসটাই কার্যত চলে গিয়েছে। শুধু পড়াশোনা থেকে মুখ ফেরাতেই এমনটা তা নয়! পারিপার্শ্বিক আরও বহু কারণ রয়েছে। লকডাউনে পরিবারের আয়ের উৎস মুখ থুবড়ে পড়ায় বাড়ির স্কুল পড়ুয়া ছেলে কিংবা মেয়েকে সংসারের জোয়াল কাঁধে তুলে নিতে হয়েছে। ফলে কুলুঙ্গিতে তুলে রাখতে হয়েছে বইখাতা। কিন্তু স্কুলও যে নাছোড়। শিক্ষার অধিকার থেকে একজনও যেন বঞ্চিত না হয় তাই দুয়ারে পৌঁছে যাচ্ছেন বহু স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা। সোনারপুরের কালিকাপুর রামকমল বিদ্যাপীঠের শিক্ষকরাও তেমনটাই করলেন।

স্কুল খোলার পরেও স্কুলের দিকে পা বাড়াচ্ছে না বেশ কিছু পড়ুয়া। দিনের পর দিন তারা স্কুলে অনুপস্থিত। তাদের স্কুলে ফেরাতে উদ্যোগ নিলেন শিক্ষকরাই। সরাসরি হাজির হলেন স্কুলে অনুপস্থিত পড়ুয়াদের বাড়িতে। অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনা করে পড়ুয়াদের বাড়ি থেকে স্কুলেও নিয়ে গেলেন। অভিভাবক থেকে এলাকার মানুষ, স্কুলের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সকলেই।

সোনারপুরের কালিকাপুর রামকমল বিদ্যাপীঠ। গত সপ্তাহে রাজ্যের সমস্ত স্কুলের সঙ্গে এই স্কুলেও নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পঠনপাঠন শুরু হয়েছে। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ দেখছে স্কুল খুললেও বেশ কিছু পড়ুয়া স্কুলে আসছে না। স্কুলমুখো হতে অনীহার কারণ খুঁজতে মাঠে নামেন স্কুলের শিক্ষকরা।

স্কুল পরিদর্শকের তরফে স্কুলে অনুপস্থিত পড়ুয়াদের স্কুলে ফেরানোর নির্দেশ পাওয়ার পরেই বৃহস্পতিবার স্কুলের শিক্ষকরা পড়ুয়াদের বাড়িতে পৌঁছে যান। তাদের স্কুলে ফিরিয়ে আনার অভিযান শুরু করেন। স্কুল পরিচালন কমিটির সভাপতি মাধব মণ্ডল, স্কুলের প্রধান শিক্ষক পার্থপ্রতিম বৈদ্য, সহ প্রধান শিক্ষক অমিতাভ চৌধুরী-সহ আরও কয়েকজন শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী মিলে এদিন এই কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

আশেপাশের কয়েকটি গ্রামে গিয়ে স্কুলে অনুপস্থিত পড়ুয়াদের বাড়িতে হাজির হন। আচমকাই স্কুলের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক-সহ অন্যান্য শিক্ষকদের বাড়িতে দেখে চমকে যায় পড়ুয়ারা। অস্বস্তিতে পড়ে যান অভিবাবকরা। স্কুলে অনুপস্থিত হওয়ার কারণ হিসাবে কেউ বলে শরীর খারাপ। আবার কেউ বলে, করোনার টিকা না পাওয়ায় করোনার ভয় থেকে স্কুলে যাচ্ছে না।

কিন্তু স্কুল পরিচালন কমিটির সভাপতি মাধবচন্দ্র মণ্ডল এবং প্রধান শিক্ষক পার্থপ্রতিম বৈদ্য তাঁদের আশ্বস্ত করেন স্কুলে কোনও ভয়ের কারণ নেই। করোনা বিধি মেনে ক্লাস করানো হচ্ছে। এরপরই দেখা যায়, স্যরদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন স্কুলেও আসে।

স্কুল পরিচালন কমিটির সভাপতি মাধবচন্দ্র মণ্ডল জানান, স্কুলে পড়ুয়াদের উপস্থিতি খুবই জরুরি। কোনও পড়ুয়াকে স্কুল ছুট হতে দেওয়া যাবে না। প্রধান শিক্ষক পার্থপ্রতিম বৈদ্যের কথায়, স্কুল খোলার পর ক্লাস স্বাভাবিক হলেও দুর্ভাগ্যের বিষয়, বেশ কিছু পড়ুয়া স্কুলে আসছে না। তাই প্রথমে ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে স্কুলে আসার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু তাতেও খুব একটা কাজ না হওয়ায় এদিন পড়ুয়াদের বাড়িতে গিয়ে তাদের স্কুলে নিয়ে আসা হয়েছে।

আরও পড়ুন: Kolkata Municipal Election: আজই প্রার্থী তালিকা বামেদের, তৃণমূলেও নাম ঘোষণার সম্ভাবনা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla