তালিবানকে পুষেছে ইসলামাবাদ ! দায় এড়াতে পারে না পাকিস্তান

Taliban : তালিবানরা যে প্রতিশ্রুতিগুলি দিয়েছে সেগুলি কতটা বাস্তবায়িত হচ্ছে তা দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, ভারত - আফগানিস্তান সম্পর্ক কেমন হবে।

তালিবানকে পুষেছে ইসলামাবাদ ! দায় এড়াতে পারে না পাকিস্তান
ফাইল ছবি

ওয়াশিংটন : পঞ্জশীরের দখল নিয়েছে তালিবান। আফগান মুলুকে তালিবান সরকার এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। গোটা বিশ্বের নজর কাবুলের দিকে। চলছে চুলচেরা আলোচনা। নজর রাখছে দিল্লিও। আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে বন্ধু রাষ্ট্রগুলির সঙ্গে আলোচনা করছে ভারতের কূটনীতিকরা। ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রীংলা আজ ওয়াশিংটনে বৈঠক করেন আমেরিকার সেক্রেটারি অফ স্টেট অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের সঙ্গে। আফগানিস্তানে তালিবানের বাড়বাড়ন্তের জন্য পাকিস্তানের যে পরোক্ষ মদত রয়েছে সেই কথাও আজ বুঝিয়ে দেন শ্রীংলা। কড়া ভাষায় ইসলামাবাদকে আক্রমণ করে বলেন, “আফগানিস্তানের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান। তারা তালিবানকে পুষেছে এবং বিভিন্নভাবে সাহায্য করেছে।”

শুধু তালিবান নয়, এমন একাধিক গোষ্ঠী রয়েছে, যাদের পাকিস্তান মদত দিয়ে আসছে। সুতরাং, এক্ষেত্রে পাকিস্তানের কতটা ভূমিকা রয়েছে, তা অবশ্যই পর্যালোচনা করে দেখা উচিৎ। মত হর্ষ বর্ধন শ্রীংলার। তবে আফগানিস্তানের প্রতিটি গতিবিধির উপর ভারতের মতো আমেরিকাও সজাগ দৃষ্টি রাখছে বলেও ওয়াশিংটন থেকে সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ভারতের সভাপতিত্বে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ অগাস্ট মাসে চারটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছে। তার মধ্যে অন্যতম রয়েছে আফগানিস্তান প্রস্তাব। সোমবার আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। সেখানে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের মাটিকে জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য অথবা অন্য দেশকে ভয় দেখানোর জন্য ব্যবহার করা যাবে না।

আফগানিস্তানের সঙ্গে ভারতের কূটনৈতিক সম্পর্ক কোন দিকে এগোবে ? এই প্রসঙ্গে আজ আরও একবার দিল্লির অবস্থান স্পষ্ট করে দেন শ্রীংলা। জানিয়ে দেন, ভারত আপাতত যে ‘ধীরে চলো’ নীতি নিয়ে চলছে, তেমনভাবেই চলবে। তালিবানের গতিবিধি আগামী দিনে কেমন হয়, তা থেকেই ঠিক করা হবে দিল্লি – কাবুল সম্পর্ক পরবর্তী দিনগুলিতে কোন দিকে মোড় নেবে। এদিকে মার্কিন সেনাও কাবুলের মাটি ছেড়েছে। এখন ভারতের মতো আমেরিকাও দূর থেকেই নজর রাখছে তালিবানের উপর।

পাশাপাশি শ্রীংলা এটাও জানিয়ে দেন, ধীরে চলো নীতি মানে এমন নয় যে ভারত কিছুই করছে না। আফগানিস্তানের পরিস্থিতি এখন প্রতিমুহূর্তে পরিবর্তন হচ্ছে। এই সময়ে আফগানিস্তানে কী হচ্ছে, কীভাবে পট-পরিবর্তন হচ্ছে… প্রতিটি খুঁটিনাটির দিকে নজর রাখা দরকার। তালিবানরা যে প্রতিশ্রুতিগুলি দিয়েছে, সেগুলি আদৌ বাস্তবায়িত হচ্ছে কি না, সব দেখে তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এখনও পর্যন্ত তালিবানের সঙ্গে দিল্লির সম্পর্কে নেতিবাচক কোনও ইঙ্গিত নেই। সম্প্রতি কাতারের ভারতীয় রাষ্ট্রদূত দীপক মিত্তাল তালিবানের সঙ্গে কূটনৈতিক বৈঠক করেছেন বলেও খবর প্রকাশ্যে এসেছে। দোহায় ভারতীয় দূতাবাসে তালিবান নেতা শের মহম্মদ আব্বাস স্ট্যানিকজ়াইয়ের সঙ্গে দীপক মিত্তাল বৈঠক করেছেন বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে। সেই প্রসঙ্গে আজ শ্রীংলা জানান, তালিবানের সঙ্গে ভারতের এখনও পর্যন্ত খুব বেশি কিছু আলোচনা হয়নি। তবে যেটুকু আলোচনা হয়েছে, তাতে এখনও পর্যন্ত নেতিবাচক কিছু দেখা যায়নি। আরও পড়ুন : ‘চিন আমাদের গুরুত্বপূর্ণ পার্টনার’, আর্থিক দুর্দশা ঘোচাতে মস্কো-বেজিংয়ে আস্থা তালিবানের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla