পুলিশকর্মীদের ব্যাঙ্কের লোন না দেওয়া নিয়ে সংসদে বড় বয়ান নির্মলা সীতারমণের, বললেন…..

police get a personal loan: রাজ্যসভায় প্রশ্নোত্তর পর্ব চলাকালীন সীতারমণ বলেছেন, ব্যাঙ্কগুলিতে কিছু শ্রেণির গ্রাহকদের লোন না দেওয়ার নির্দেশযুক্ত কোনও 'অফিসিয়াল ঘোষিত নীতি' নেই। ব্যাঙ্ক কেওয়াইসি আর রেটিংয়ের মতো অন্য রেটিংয়ের উপর নির্ভর করে গ্রাহক নির্বাচন করে।

পুলিশকর্মীদের ব্যাঙ্কের লোন না দেওয়া নিয়ে সংসদে বড় বয়ান নির্মলা সীতারমণের, বললেন.....
ফাইল চিত্র
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Shubhendu Debnath

Nov 30, 2021 | 9:59 PM

নয়া দিল্লি: প্রায়শই পুলিশ আর মিডিয়া সেক্টরে কাজ করা ব্যক্তিদের লোন দেওয়ার আগে ব্যাঙ্ক কিছুটা সংকোচ করে। এই বিষয় নিয়ে সংসদে আজ একটি প্রশ্ন করা হয়। এই ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ মঙ্গলবার রাজ্যসভায় বলেছেন, কেন্দ্র ব্যাঙ্কগুলিকে পুলিশকর্মীদের মতো সংবেদনশীল গ্রাহকদের লোন না দেওয়ার জন্য কোনও বিশেষ নির্দেশ জারি করেনি। অর্থমন্ত্রী উচ্চ সদনে প্রশ্নোত্তর পর্ব চলাকালীন করা প্রশ্নের জবাবে এই মন্তব্য করেছেন।

রাজ্যসভায় প্রশ্নোত্তর পর্ব চলাকালীন সীতারমণ বলেছেন, ব্যাঙ্কগুলিতে কিছু শ্রেণির গ্রাহকদের লোন না দেওয়ার নির্দেশযুক্ত কোনও ‘অফিসিয়াল ঘোষিত নীতি’ নেই। ব্যাঙ্ক কেওয়াইসি আর রেটিংয়ের মতো অন্য রেটিংয়ের উপর নির্ভর করে গ্রাহক নির্বাচন করে। আমার মনে হয় না যে ব্যাঙ্কগুলিকে কোনও বিশেষ নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে, ব্যাঙ্ক কেওয়াইসি উপর নির্ভর করে এক নিশ্চিত স্তরের বিবেকের প্রয়োগ করে।

জানুন কিসের উপর নির্ভর করে ব্যাঙ্ক লোন দেয়

বিশেষজ্ঞদের মতে, হোম আর কার লোনের নিয়ম প্রায় একই রকম। অন্যদিকে পার্সোনাল লোনের নিয়ম কিছুটা আলাদা। যদি সহজ ভাষায় বলা হয়, কেউ হোম লোন নিতে চাইলে তাকে নিজের মাসিক রোজগারের হিসেব ব্যাঙ্ককে দিতে হবে।

সবার আগে ব্যাঙ্ককে এটা জানাতে হবে যে আপনার রোজগার কত। এর জন্য আপনাকে নিজের স্যালারি স্লিপ, আইটিআর আর ব্যাঙ্ক স্টেটমেন্ট দিতে হবে। এই সমস্ত নথী দেওয়ার পর ব্যাঙ্ক আপনার আয় হিবেস করে যে প্রতি মাসে আপনার আয় কত হয়। এতে আপনার অন্য সোর্স থেকে হওয়া আয়ও যোগ করা হয়।

আপনার প্রত্যেক মাসে রোজগারের হিসেবে আপনার রিপেমেন্ট ক্যাপাসিটি ঠিক করা হয় আর তার হিসেবে আপনাকে লোন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর সঙ্গেই বেশ কিছু অন্যান্য কারণও আপনাকে দেয় হোম লোনের অর্থ ঠিক করতে কাজে লাগে, এর মধ্যে আপনার বয়স, অর্থিক পরিস্থিতি, ক্রেডিট হিস্ট্রি, ক্রেডিট স্কোর আর ন্য আর্থিক দায়ও শামিল রয়েছে।

যদি আপনার বয়স ২৫-৩০ বছর হয় তো সেই হিসেবে আপনার হোম লোনের অর্থ বাড়তে পারে। এর কারণ এটাই যে যদি আপনি বেশি সময় পর্যন্ত কাজ করেন আর আপনার বেতন আগামী দিনে বাড়বে। যদি আপনার উপর অন্য কোনও দেনা না থাকে তো আপনাকে লোন দেওয়া ব্যাঙ্ক অনেক বেশি টাকা ঋণ দিতে পারে।

যদি আপনি ঋণ নিয়ে তা সঠিক সময়ে শোধ দেন আর কোনও ডিফল্ট না করে থাকেন তো আপনি সহজ শর্তে হোম লোন পেতে পারেন। যদি আপনি বিবাহিত হন আর আপনার সঙ্গীও যদি রোজগার করেন তাও ব্যাঙ্ক আপনাকে সহজেই আরও বড় অর্থ লোন হিসেবে দিতে পারে।

আরও পড়ুন: Unemployment Figures: সংসদে বেকারত্বের পরিসংখ্যান জানাল কেন্দ্র, বাংলা পরিস্থিতি কী?

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla