Urfi Javed: পোশাক নিয়ে হইচই! পিঠখোলা জামা পরার ‘কারণ’ জানালেন উরফি

উরফি বিতর্কে থাকতে ভালবাসেন। মাস খানেক আগে উরফির এয়ারপোর্ট লুক নিয়েও কম জলঘোলা হয়নি। বিস্তর বিতর্কের পর মুখ খুলেছিলেন উরফি। সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, যদি পাবলিসিটিরই প্রয়োজন ছিল তবে বিমানবন্দরে তিনি নগ্ন হয়ে যেতেন।

Urfi Javed: পোশাক নিয়ে হইচই! পিঠখোলা জামা পরার 'কারণ' জানালেন উরফি
পিঠখোলা জামা পরার 'কারণ' জানালেন উরফি

বিগ-বস ওটিটি থেকে বের হওয়ার পরেই রীতিমতো ট্রেন্ড করছেন উরফি জাভেদ। তাঁর পোশাক এখন নেটিজেনদের একটা বড় অংশের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু। চলছে ট্রোলিং। দিন কয়েক আগেই এক রেস্তরাঁতে পিঠখোলা এক পোশাক পরেছিলেন উরফি। কেন? উরফির মতে, এর পিছনে রয়েছে এক বিশেষ কারণ।

ইনস্টাগ্রামে নিজের ওই পোশাকে ছবি দিয়ে তিনি লিখেছেন, “আমার পিঠে অ্যাকনে রয়েছে। রয়েছে দাগও। আমি এডিট করতে পারতাম, লুকিয়েও রাখতে পারতাম। কিন্তু আমি তা করিনি। আমার এই পিঠে দাগ নিয়ে অনেক লেখালিখি হচ্ছে।” তিনি যোগ করেন, “সবার পারফেক্ট মুখ বা ত্বক হয় না। আমি আমার শরীরকে ভালবাসি… সারাজীবন ধরেই ভালবাসব।” উরফির পোস্ট বলছে, বার্তা দিতে চেয়েছেন তিনি… সমাজকে। ‘দাগ ভাল’– পিঠকাটা পোশাকে এই কথাই যেন বোঝাতে চেয়েছেন তিনি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Urfi (@urf7i)


সম্প্রতি আর এক আলোচিত ছবি পোস্ট করেছিলেন উরফি। সেখানেও একটি ব্যাকলেস পোশাক পরেন তিনি। মাথা ছিল ঢাকা। খানিক যেন হিজাবের মতো করেই ঢেকেছিলেন মাথা। তাঁর ক্যাপশনটাও ছিল অর্থবহ। লিখেছিলেন, “ওরা আমাকে ঢাকতে বলেছিল। আমি নিজের মতো করে ঢেকেছি।” সেই ছবি পোস্ট হওয়ার পরই তোলপাড় শুরু হয় নেটমহলে। নেটিজ়েনরা রিয়্যাক্ট করতে থাকেন একেক রকম ভাবে। একজন লেখেন, “তালিবানরা আপনার জন্য গর্ববোধ করবে।” একজন বলেন, “অন্য একজন স্টাইলিস্ট খোঁজা উচিত আপনার।” অন্য একজন লেখেন, “বোন এটা হালাল।” আর এক নেটিজ়েনের কমেন্ট, “আপনাকে কেউ ঢাকতে বলেনি। কারওর কিছু এসে যায় না। যা ইচ্ছে তাই করুন আপনি। তবে পর্দার প্রথাকে এভাবে অপমান করবেন না দয়া করে।” যদিও ট্রোলের জবাব তিনি দেননি।

উরফি বিতর্কে থাকতে ভালবাসেন। মাস খানেক আগে উরফির এয়ারপোর্ট লুক নিয়েও কম জলঘোলা হয়নি। বিস্তর বিতর্কের পর মুখ খুলেছিলেন উরফি। সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, যদি পাবলিসিটিরই প্রয়োজন ছিল তবে বিমানবন্দরে তিনি নগ্ন হয়ে যেতেন। বলেছিলেন, “যা ভালবাসি, যা মনকে আনন্দ দেয় তাই পরি। লোকে কী বলল বা না বলল তাতে আমার কিছু যায় আসে না। আগে হলে হয়তো মনে হত এমন জামা পরে কি ভুল কিছু করলাম, এখন এসব মনে হয় না। গায়ের চামড়া পুরু হয়ে গিয়েছে।”

উরফির সেই পোশাক বিতর্কে যুক্ত হয়েছিল জাভেদ আখতারের নামও। অনেকেই বলেছিলেন উরফি নাকি আদপে জাভেদ আখতারের নাতনি। এর প্রতিবাদ জানিয়ে আগেই মুখ খুলেছিলেন জাভেদের স্ত্রী অভিনেত্রী শাবানা আজমি। মুখ খোলেন উরফিও। বলেছিলেন, “জাভেদ আখতারের নাতনি মানে ফারহান আখতারের মেয়ে, যা আমি একেবারেই নই, যখন প্রথম শুনলাম এ রকম রটেছে ভীষণ হেসেছিলাম।”

আরও পড়ুন- Raj-Shilpa: ‘আমি কি রাজ কুন্দ্রা, ওঁর মতো দেখতে?’, সাংবাদিকদের প্রশ্নে চটলেন শিল্পা!

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla