Blood Sugar: কমছে ইনসুলিনের প্রতিরোধ ক্ষমতা, বাড়ছে সুগার! এই সব ভেষজতেই ভরসা রাখতে বলছেন চিকিৎসক

High Blood Sugar: সুগার অজান্তেই শরীরের অনেক ক্ষতি করে দেয়। তাই নিয়ম করে সুগার পরীক্ষা করা খুবই জরুরি...

Jul 06, 2022 | 7:04 AM
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Reshmi Pramanik

Jul 06, 2022 | 7:04 AM

ডায়াবেটিসের সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। ৮-৮০ সকলেই এই ডায়াবেটিসের শিকার। একেবারে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে টাইপ ১ ডায়াবেটিস দেখা গেলেও প্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যাই কিন্তু সবচাইতে বেশি। শরীরে ইনসুলিন প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে কিংবা ইনসুলিনের ঘাটতি হলে সেখান থেকেই কিন্তু ডায়াবেটিসের সূত্রপাত হয়। অগ্ন্যাশয় থেকে তৈরি হয় ইনসুলিন হরমোন। কোনও কারণে এই হরমোন উৎপাদনে বাধা পেলে সেখান থেকেই মূল সমস্যা আসে।

ডায়াবেটিসের সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। ৮-৮০ সকলেই এই ডায়াবেটিসের শিকার। একেবারে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে টাইপ ১ ডায়াবেটিস দেখা গেলেও প্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যাই কিন্তু সবচাইতে বেশি। শরীরে ইনসুলিন প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে কিংবা ইনসুলিনের ঘাটতি হলে সেখান থেকেই কিন্তু ডায়াবেটিসের সূত্রপাত হয়। অগ্ন্যাশয় থেকে তৈরি হয় ইনসুলিন হরমোন। কোনও কারণে এই হরমোন উৎপাদনে বাধা পেলে সেখান থেকেই মূল সমস্যা আসে।

1 / 6
দিনের পর গিন রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়তে থাকলে একাধিক অঙ্গ কাজ করা বন্ধ করে দেয়। শরীরের অজান্তেই হয়ে যায় অনেককানি ক্ষতি। বিভিন্ন হরমোন ঘটিত রোগে কিন্তু এই ইনসুলিন রেজিসট্যান্স পাওয়ার একেবারেই কমে যায়। ইনসুলিনের অভাব হলে সেখান থেকে চোখের সমস্যা, হার্টের সমস্যা, কিডনির রোগের মত একাধিক জটিল সমস্যার সৃষ্টি হয়।

দিনের পর গিন রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়তে থাকলে একাধিক অঙ্গ কাজ করা বন্ধ করে দেয়। শরীরের অজান্তেই হয়ে যায় অনেককানি ক্ষতি। বিভিন্ন হরমোন ঘটিত রোগে কিন্তু এই ইনসুলিন রেজিসট্যান্স পাওয়ার একেবারেই কমে যায়। ইনসুলিনের অভাব হলে সেখান থেকে চোখের সমস্যা, হার্টের সমস্যা, কিডনির রোগের মত একাধিক জটিল সমস্যার সৃষ্টি হয়।

2 / 6
ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে নিয়মিত রক্তপরীক্ষা এবং রোজকার জীবনযাপনে পরিবর্তন আনতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে ওষুধ খেতে হবে। পাশাপাশি রাখতে পারেন এই কয়েকটি ভেষজ। রোজ গিলয়ের জুস খেলে রক্তশর্করা নিয়ন্ত্রণে থাকে। পাশাপাশি হাঁপানি, সর্দি, অ্যানিমিয়া, জন্ডিস-সহ একাধিক রোগ প্রতিরোধ করা যায়। এর মধ্যে অ্যান্টি-হাইপারগ্লাইসেমিক গুণ থাকে অনেকটাই বেশি।

ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে নিয়মিত রক্তপরীক্ষা এবং রোজকার জীবনযাপনে পরিবর্তন আনতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে ওষুধ খেতে হবে। পাশাপাশি রাখতে পারেন এই কয়েকটি ভেষজ। রোজ গিলয়ের জুস খেলে রক্তশর্করা নিয়ন্ত্রণে থাকে। পাশাপাশি হাঁপানি, সর্দি, অ্যানিমিয়া, জন্ডিস-সহ একাধিক রোগ প্রতিরোধ করা যায়। এর মধ্যে অ্যান্টি-হাইপারগ্লাইসেমিক গুণ থাকে অনেকটাই বেশি।

3 / 6
আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় সুগার রুখতে আমলার জুস আর হলুদ একসঙ্গে মিশিয়ে খেতে বলা হয়। রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে দারুণ কাজ করে এই মিশ্রণ।

আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় সুগার রুখতে আমলার জুস আর হলুদ একসঙ্গে মিশিয়ে খেতে বলা হয়। রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে দারুণ কাজ করে এই মিশ্রণ।

4 / 6
গোলমরিচের গুঁড়ো, পিপলি গাছের গুঁড়ো আর আদা গুঁড়ো মিশিয়ে একটি পাউডার বানানো হয়। এই পাউডার রোজ খেলে মেটাবলিজম ঠিক থাকে। হজম ভাল হয়। সঙ্গে অন্যান্য একাধিক সমস্যাও দূর হয়ে যায়। ওজন ঝরানো তখন আরও সহজ।

গোলমরিচের গুঁড়ো, পিপলি গাছের গুঁড়ো আর আদা গুঁড়ো মিশিয়ে একটি পাউডার বানানো হয়। এই পাউডার রোজ খেলে মেটাবলিজম ঠিক থাকে। হজম ভাল হয়। সঙ্গে অন্যান্য একাধিক সমস্যাও দূর হয়ে যায়। ওজন ঝরানো তখন আরও সহজ।

5 / 6
সুগারের আরও একটি দারুণ ওষুধ হল নিম। রোজ নিয়ম করে নিমপাতা খেলে সুগার থাকে নিয়ন্ত্রণে। কাঁচা পাতা চিবিয়ে খেতে পারলে সবথেকে ভাল। নইলে নিম পাতা আর করলা একসঙ্গে ভেজে ভাতের সঙ্গেও খেতে পারেন।

সুগারের আরও একটি দারুণ ওষুধ হল নিম। রোজ নিয়ম করে নিমপাতা খেলে সুগার থাকে নিয়ন্ত্রণে। কাঁচা পাতা চিবিয়ে খেতে পারলে সবথেকে ভাল। নইলে নিম পাতা আর করলা একসঙ্গে ভেজে ভাতের সঙ্গেও খেতে পারেন।

6 / 6

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla