Chit Fund Ban: আর্থিক প্রতারণা রুখতে বড় পদক্ষেপ, রাজ্যে এবার থেকে নিষিদ্ধ হবে সমস্ত চিট ফান্ড সংস্থা

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Updated on: Oct 21, 2022 | 9:05 AM

Manohar Lal Khattar: ধন পরিসঞ্চারন যোজনা আইন ২০২২ নামে একটি খসড়া প্রস্তাবনা পেশ করা হয়, যেখানে রাজ্যে সমস্ত চিট ফান্ড ও আর্থিক সংস্থাকে নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করার কথা বলা হয়।

Chit Fund Ban: আর্থিক প্রতারণা রুখতে বড় পদক্ষেপ, রাজ্যে এবার থেকে নিষিদ্ধ হবে সমস্ত চিট ফান্ড সংস্থা
বিবৃতি অনুযায়ী, ব্য়াঙ্কের মোট ২৫ টি বহুল ব্যবহৃত পরিষেবার ক্ষেত্রে ফি কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ব্যাঙ্কের যেকোনও শাখায় টাকা জমা দেওয়া বা টাকা তোলা, অন্য কোনও গেটওয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট, ডিম্যান্ড ড্রাফ্ট, আইএমপিএস, এনইএফটি, আরটিজিএস, চেক বুক, এসএমএস অ্যালার্ট, টাকা তোলার জন্য এটিএমে টাকা না থাকা, আন্তর্জাতিক এটিএম পরিষেবা ব্যবহার সহ একাধিক পরিষেবার ক্ষেত্রে ছাড় দিয়েছে এই ব্যাঙ্ক।

সোনিপত: যেখানেই উড়াইবে ছাই, সেখানে মিলিলেও মিলতে পারে অমূল্য রতন।  হ্যাঁ, এই প্রবাদ বাক্যই এখন সত্যি হয়ে যাচ্ছে। তবে অমূল্য রতন নয়, চারিদিকেই মিলছে দুর্নীতির খোঁজ। ইতি-উতি গজিয়ে ওঠা চিট ফান্ড ও অন্যান্য আর্থিক লেনদেনকারী সংস্থার প্রতারণা চক্র থেকে সাধারণ মানুষকে সুরক্ষিত রাখতেই বড় সিদ্ধান্ত নিল হরিয়ানা সরকার। প্রতারণা চক্র রুখতে চিট ফান্ড ও অন্যান্য আর্থিক লেনদেনকারী সংস্থাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল। নতুন আইন আনা হচ্ছে এই নির্দেশিকা কার্যকর করতে, এমনটাই জানা গিয়েছে। সরকারি সূত্রে খবর, এই আইন কার্যকর হলে রাজ্যে আর চিট ফান্ড বা অন্যান্য আর্থিক সংস্থা, তাদের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা আর কোনও আর্থিক অনুদান বা বিনিয়োগ পাবেন না।

জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টরের অধীনে বুধবার রাজ্য সরকারের ক্যাবিনেট বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ধন পরিসঞ্চারন যোজনা আইন ২০২২ নামে একটি খসড়া প্রস্তাবনা পেশ করা হয়, যেখানে রাজ্যে সমস্ত চিট ফান্ড ও আর্থিক সংস্থাকে নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করার কথা বলা হয়। বৈঠকে উপস্থিত সকল সদস্যরাই এই প্রস্তাবে সম্মতি জানান। মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর জানিয়েছেন, গেজেট নোটিফিকেশন প্রকাশ হলেই এই নিয়ম কার্যকর হবে। রাজ্যের পুলিশ বিভাগকেও এই বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। শীঘ্রই কেন্দ্র সরকার, সরকারি প্রতিষ্ঠান ও রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়াকেও এই নতুন নিয়ম সম্পর্কে জানানো হবে এবং পুলিশ বিভাগ সেই নির্দেশ মেনোই কাজ করবে।

ক্যাবিনেট বৈঠক শেষে বিবৃতি জারি করে জানানো হয়েছে, মানি সার্কুলেশন স্কিম (ব্যানিং) রুল ২০২২-র নিয়ম অনুসারে কোনও ব্যক্তি, সংস্থা বা ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান কোনও ধরনের আর্থিক লেনদেন প্রকল্পের প্রচার, তাতে অংশ নেওয়া বা  পরিচালন করতে পারবে না। একজন নোডাল অফিসারকে নিয়োগ করা হবে আর্থিক লেনদেন প্রকল্প সংক্রান্ত বিষয় ও মামলার উপরে নজর রাখতে। যদি কোনও ব্যক্তি বা সংস্থা ধন পরিসঞ্চারণ যোজনা (নিষিদ্ধকরণ) আইন ১৯৭৮-র অধীনে অভিযুক্ত হিসাবে প্রমাণিত হন, তবে তাদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla