টুইট ১, নিশানা ২, সমর্থকদের শান্ত থাকার অনুরোধে লুকিয়ে শীর্ষ নেতৃত্বের জন্য বার্তাও!

BS Yediyurappa's Message to BJP: দক্ষিণ ভারতে একমাত্র বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা বর্তমানে দলের অন্দরেই চাপে রয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন একাধিক বিধায়ক।

  • Updated On - 6:43 am, Thu, 22 July 21 Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী
টুইট ১, নিশানা ২, সমর্থকদের শান্ত থাকার অনুরোধে লুকিয়ে শীর্ষ নেতৃত্বের জন্য বার্তাও!
ফাইল চিত্র।

বেঙ্গালুরু: মুখ্যমন্ত্রী পদে আদৌই থাকবেন কিনা, কিংবা থাকলেও কতদিন, তা নিয়ে যেখানে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে, সেখানেই কেন্দ্রকে ফের একবার দলের প্রতি নিজের আনুগত্যের কথা মনে করিয়ে দিলেন ইয়েদুরাপ্পা। কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে তিনি থাকবেন কিনা, তা নিয়ে জল্পনা চলছিল অনেকদিন ধরেই। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ সেই জল্পনা আরও বাড়িয়ে দেয়।

দক্ষিণ ভারতে একমাত্র বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা বর্তমানে দলের অন্দরেই চাপে রয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন একাধিক বিধায়ক। এই পরিস্থিতিতেই গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করতে যান ইয়েদুরাপ্পা। সঙ্গে ছিলেন তাঁর ছেলেও। মুখ্যমন্ত্রীর দফতর সূত্রে রাজ্যের উন্নয়ন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে বলে দাবি করা হলেও ইয়েদুরাপ্পার ছেলের উপস্থিতি অন্য ইঙ্গিতই দেয়। বৈঠকের পরদিনই সূত্র মারফত খবর মেলে, বয়সজনিত কারণ দর্শিয়ে তিনি নাকি মুখ্যমন্ত্রী পদ ছাড়তে চেয়েছেন। যদিও এই দাবি অস্বীকার করেন ইয়েদুরাপ্পা।

একদিকে যেখানে তিনি প্রাক্তন কংগ্রেস মন্ত্রী ও ধর্মীয় গুরুদের কাছ থেকে সমর্থন জোগাড় করছেন, সেই সময়ই তাঁর গতকালের টুইট বেশ ইঙ্গিতবাহী বলেই মনে করা হচ্ছে। বুধবার তিনি টুইটে লেখেন, “বিজেপির একনিষ্ঠ কর্মী হতে পারার সুবিধা পেয়েছি আমি। আমার কাছে এটি গর্বের বিষয় যে নীতি ও সুব্যবহার বজায় রেখেই দলের সেবা করে গিয়েছি। আমি সকলের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি তারা যেন দলের নীতি মেনে চলে এবং কোনও ধরনের আন্দোলন বা অব্যবস্থার সৃষ্টি না করেন, যা দলের কাছে লজ্জাজনক ও অবমাননাকর হয়ে দাঁড়াবে।”

এক টুইটেই একদিকে যেমন নিজের সমর্থকদের শান্ত থাকতে বলে দলের অন্দরেই বিরোধী বিধায়কদের কাছে নিজের ক্ষমতা জাহির করলেন, একইসঙ্গে শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে নিজের ক্ষমতা ওদীর্ঘদিন দলের সঙ্গে একনিষ্ঠভাবে যুক্ত থাকার কথাও মনে করিয়ে দিলেন ইয়েদুরাপ্পা, এমনটাই মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। শোনা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে তাঁকে যদি সরানো হয়, তবে অন্য কোনও রাজ্যের রাজ্যপাল হিসাবে পাঠানো হবে তাঁকে।  আরও পড়ুন: পবিত্র ইদে ভারত-পাক সেনার মিষ্টি বিলি 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla