মোদী পাঠালেন, কিন্তু আপনার অ্যাকাউন্টে কিসান নিধির টাকা কি এল? দেখে নিন কী ভাবে জানবেন…

PM Kisan Samman Nidhi: কী ভাবে জানবেন আপনার আবেদন গৃহীত হয়েছে কি না অথবা টাকা অ্যাকাউন্টে এসে পৌঁছেছে কি না?

মোদী পাঠালেন, কিন্তু আপনার অ্যাকাউন্টে কিসান নিধির টাকা কি এল? দেখে নিন কী ভাবে জানবেন...
অলংকরণ-অভীক দেবনাথ

কলকাতা: গোটা দেশের চাষিদের নবম কিস্তি, ও বাংলার চাষিদের কিসান সম্মান নিধির দ্বিতীয় কিস্তির টাকা সোমবারই সোজা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সূত্রের খবর, গোটা দেশের প্রায় ৯.৭৫ কোটি কৃষকের অ্যাকাউন্টে এই টাকা পৌঁছে গিয়েছে। যার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের উপভোক্তার সংখ্যা ২৬ লক্ষের কিছু বেশি। যদিও এই প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার জন্য বাংলা থেকে মোট ৬৮ লক্ষের কিছু বেশি চাষি নাম নথিভুক্ত করিয়েছিলেন। কিন্তু তথ্য যাচাইয়ের গেরোয় ও কেন্দ্র-রাজ্যের রাজনৈতিক তরজার ফাঁসে বঞ্চিত থেকেছেন রাজ্যের প্রায় ৪২ লক্ষ কৃষক।

২০১৮ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে গোটা দেশে এই প্রকল্পের সূচনা করেছিল নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। এই প্রকল্পের মাধ্যমে ২ হেক্টরের বেশি জমি রয়েছে এবং আয়কর দেন না এমন কৃষকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি অর্থ সহায়তা করে কেন্দ্র। গোটা বছরে মোট তিনটি কিস্তির মাধ্যমে ৬ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়। এই টাকা দেওয়ার ক্ষেত্রে রাজ্যের কোনও ভূমিকা থাকে না। তবে যে চাষিরা এই সুবিধা পাওয়ার জন্য কেন্দ্রের পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করাচ্ছেন, তাঁদের তথ্য যাচাই করে কৃষি মন্ত্রকে পাঠাতে হয় রাজ্য সরকারকে। তারপরই এই টাকা মেলে। ঠিক যেভাবে গত মে মাসে প্রথম কিস্তিতে ৭ লক্ষ এবং অগস্ট মাসে দ্বিতীয় কিস্তিতে ২৬ লক্ষ বাংলার চাষিরা এই সুবিধা পেয়েছেন।

রাজ্যের পক্ষ থেকে যদিও ৪১ লক্ষের কিছু বেশি কৃষকের তথ্য যাচাই করে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হয়েছে। তবে এর মধ্যে প্রায় ৯ লক্ষ ৭০ হাজারের বেশি নাম তথ্যে গরমিল থাকার কারণে বাতিল করা হয়েছে। যদিও আশা করা হচ্ছে, পরবর্তী কিস্তিতে বাংলার আরও বেশি চাষি এই সুবিধা পাবেন।

কী ভাবে জানবেন আপনার আবেদন গৃহীত হয়েছে কি না অথবা টাকা অ্যাকাউন্টে এসে পৌঁছেছে কি না?

কৃষকদের সুবিধার্থে www.pmkisan.gov.in পোর্টালের সূচনা আগেই করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। সেই ওয়েবসাইটেই যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে। ওয়েবসাইটের ডান দিকেই রয়েছে Farmers Corner নামক ক্ষেত্র। সেখানে সবার প্রথমে নাম নথিভুক্ত করার বিকল্প পাওয়া যাবে। এরপর রয়েছে আধার কার্ড নম্বর বদলের বিকল্প। ৩ নম্বরেই দেখা যাবে Beneficiary Status। সেখানে ক্লিক করলেই সামনে ৩ ধরনের বিকল্প দেখা যাবে। প্রথম আধার, দ্বিতীয় অ্যাকাউন্ট নম্বর, তৃতীয় মোবাইল নম্বর। তিনটির মধ্যে যে কোনও একটি দিয়ে ক্লিক করলেই সেই কৃষকের যাবতীয় তথ্য বেরিয়ে আসবে। নথিভুক্ত নাম আদৌ গ্রাহ্য হয়েছে কি না, যদি তা হয়ে থাকে তবে অ্যাকাউন্টে টাকা এসেছে কি না, এই সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য সেখানেই দেখতে পাবেন অন্নদাতারা। আরও পড়ুন: পিএম কিসান নিধি: বাংলার প্রায় ৪২ লক্ষ চাষি ‘বঞ্চিত’ কার দোষে? শুরু কেন্দ্র-রাজ্য তরজা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla