শিক্ষা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিশেষ জোর, মন্ত্রিসভার বৈঠকে সময়জ্ঞানের পাঠ দিলেন নমো

PM Modi Cabinet Meeting: বৈঠকে মন্ত্রিসভার ১৫ জন মন্ত্রী নানা বিষয়ে নিজেদের মতামত পেশ করেছেন। উল্টোদিকে, কীভাবে সময়ের সঠিক ব্যবহার করা যায়, তা নিয়েও মন্ত্রীদের পাঠ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শিক্ষা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিশেষ জোর, মন্ত্রিসভার বৈঠকে সময়জ্ঞানের পাঠ দিলেন নমো
ফাইল চিত্র।

নয়া দিল্লি: বিভিন্ন মন্ত্রকের কাজের গতিপ্রকৃতি ও আগামিদিনের পরিকল্পনা জানতেই সমস্ত মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠক (Cabinet Meeting) করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতি ভবনে এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে এই বৈঠক। মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণের (Cabinet Expansion) পর দ্বিতীয়বার সকল মন্ত্রীর মুখোমুখি হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সূত্রের খবর, মন্ত্রীদের কাছ থেকে কাজের খতিয়ান ও আগামিদিনের পরিকল্পনা জানতেই প্রধানমন্ত্রী এই বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন। এর আগে জুলাই মাসে মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণের পর নতুন মন্ত্রী ও পরে সকল মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

রাষ্ট্রপতি ভবনে এই বৈঠক হলেও উপস্থিত ছিলেন না রাষ্ট্রপতি নিজেই। জানা গিয়েছে, করোনাকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একসঙ্গে এতজন মন্ত্রীর বসার মতো জায়গা করা সম্ভব ছিল না প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে। সেই কারণেই রাষ্ট্রপতি ভবনকে বেছে নেওয়া হয় বৈঠকের জায়গা হিসাবে।

দুপুর ৩টে ৪৫ মিনিট থেকে শুরু হয়ে রাত ৯টা অবধি চলে এই বৈঠক।  প্রায় পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে দুই ধাপে মন্ত্রিসভার বৈঠক হয়। সূত্রের খবর, মঙ্গলবারের বৈঠকে তিনটি মন্ত্রককে তাদের কাজের খতিয়ান ও আগামিদিনের পরিকল্পনী নিয়ে একটি উপস্থাপনা পেশ করতে বলা হয়েছিল। শিক্ষা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান ও মনসুখ মাণ্ডব্য সেই উপস্থাপনা প্রধানমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরেন।

দেশে কীভাবে দ্রুতগতিতে টিকাকরণ চলছে এবং আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দেশের সকল প্রাপ্তবয়স্কদের টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা যাবে কিনা, লক্ষ্যপূরণে কী কী সহায়তার প্রয়োজন এই সংক্রান্ত যাবতীয়. বিষয় নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিস্তারিত খতিয়ান দেন।

জানা গিয়েছে, বৈঠকে মন্ত্রিসভার ১৫ জন মন্ত্রী নানা বিষয়ে নিজেদের মতামত পেশ করেছেন। উল্টোদিকে, কীভাবে সময়ের সঠিক ব্যবহার করা যায়, তা নিয়েও মন্ত্রীদের পাঠ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মন্ত্রীদের দক্ষতা বৃদ্ধির উপরও বিশেষ জোর দেন প্রধানমন্ত্রী।

বর্তমান পরিস্থিতিতে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দুটি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। করোনা সংক্রমণের জেরে বিগত দেড় বছরে স্বাস্থ্যব্যবস্থায় যেমন প্রভাব পড়েছে, তেমনই আবার স্বাস্থ্য পরিকাঠামো উন্নয়নেও বিপুল পরিমাণ অর্থের খরচ করা হয়েছে। অন্যদিকে, সংক্রমণ এড়াতে ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে বন্ধ রয়েছে স্কুল-কলেজ। অনলাইন নির্ভর শিক্ষাব্যবস্থার কারণেও ছাত্রছাত্রীদের উপর কী প্রভাব পড়েছে, তা জানার উপরই জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। দীর্ঘদিন পর ভার্চুয়াল বৈঠক ছেড়ে সামনা সামনি বৈঠক করায় এ দিনের বৈঠক শেষে নৈশভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছিল বলেও দাবি সূত্রের।

এর আগে অগস্ট মাসেও মন্ত্রীদের কর্মদক্ষতা বাড়ানো থেকে শুরু করে একাধিক নতুন প্রকল্পের চিন্তাভাবনা, সমস্ত কিছু নিয়েই তিনদিনের ম্যারাথন বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগামী ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের আগেই যাতে সাধারণ মানুষের মন থেকে মোদী সরকার নিয়ে যাবতীয় ক্ষোভ দূর হয়, সেই লক্ষ্যে তিন দিনের ম্যারাথন বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন: বিশ্বের দ্বিতীয় উচ্চতম ‘স্ট্যাচু অব ইকুয়্যালিটি’ উদ্বোধনের আমন্ত্রণ পেলেন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla