ত্রিপুরায় শহিদ দিবস পালনে বাধা, আটক ৮৬ তৃণমূল কর্মী, প্রতিবাদে সরব মমতা-অভিষেক

86 TMC Workers Held by Tripura Police: শহিদ দিবসের অনুষ্ঠানের শুরুতেই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ও ত্রিপুরার তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলার ঘটনার সমালোচনা করেন।

ত্রিপুরায় শহিদ দিবস পালনে বাধা, আটক ৮৬ তৃণমূল কর্মী, প্রতিবাদে সরব মমতা-অভিষেক
ত্রিপুরায় আটক তৃণমূল কর্মীরা।

আগরতলা: প্রতিবেশী রাজ্যে শহিদ দিবস পালনে বাধা। ত্রিপুরায় শহীদ দিবসের অনুষ্ঠানে বাধা দিল পুলিশ, আটক করা হয়েছে ৮৬ জন তৃণমূল কর্মীকে। ২১ জুলাইয়ের ভাষণের শুরুতেই এই ঘটনার সমালোচনা করলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিবাদ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

এ দিন সকালেই ত্রিপুরার উনাকোটিতে তৃণমূল কর্মীরা দলীয় পতাকা উত্তোলন করতে যায়। পতাকা উত্তোলনের পরই আটক করা হয় ৮৬ জন তৃণমূল কর্মীদের। পুলিশের দাবি, ওই জেলায় ১৪৪ ধারা জারি ছিল। কিন্তু সেই নিয়ম ভেঙেই জমায়েত করেন তৃণমূল কর্মীরা। এরপরই ত্রিপুরার রাজ্য সভাপতি আশীষ লাল সিং সহ মোট ৮৪ জন তৃণমূল কর্মীদের আটক করা হয়।

তৃণমূল কর্মীদের দাবি, তাঁরা কোনও নিয়ম ভঙ্গ করেননি। বিজেপির অঙ্গুলি হেলনেই তাঁদের আটক করা হয়েছে। এই কারণে তাঁরা বাসে বসেই বিক্ষোভ দেখান। বিজেপি বিরোধী স্লোগান দেন। এ দিকে, অশান্তির খবর পেয়েই টুইট করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায় টুইট করে লেখেন, “বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা করছি। ভয় দেখিয়ে আমাদের দমানো যাবে না। এই শহিদ দিবসে আরও একবার মনে করিয়ে দিই, লড়াইয়ের ময়দানে অত্যাচারী শক্তির বিরুদ্ধে তৃণমূল এক ইঞ্চি জমিও ছাড়বে না। যা হবে, দেখা যাবে।”

শহিদ দিবসের অনুষ্ঠানের শুরুতেই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ও ত্রিপুরার তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলার ঘটনার সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, “ত্রিপুরায় আমাদের শহিদ দিবসের অনুষ্ঠান করতে দেওয়া হয়নি। বিজেপি কেবল স্বৈরতন্ত্রে বিশ্বাস করে। তারা অন্য দলকে কোনও অনুষ্ঠানটুকুও করতে দেয় না। এই আপনাদের গণতন্ত্র?”

উল্লেখ্য, ত্রিপুরায় আগে থেকেই শহিদ দিবসের অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচারের পরিকল্পনা ছিল। রাজধানী আগরতলার পাশাপাশি ধর্মনগর, উদয়পুরের মতো একাধিক জেলায় জায়ান্ট স্ক্রিন বসিয়ে অনুষ্ঠান সম্প্রচার করার কথা থাকলেও গতকালই জায়ান্ট স্ক্রিন অ্যাসোসিয়েশনের তরফে জানানো হয়, জেলাশাসকের লিখিত অনুমতি না থাকলে জায়ান্ট স্ক্রিন সরবরাহ করা হবে না। রাত অবধি অনুমতি নিয়ে জটিলতা জারি থাকায় প্রোজেক্টর ও পর্দার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান রাজ্য সভাপতি আশীষ লাল সিং।  আরও পড়ুন: জাতীয় কানভ্যাসে ২১ জুলাই: মমতা ভাষণ শুনতে হাজির চিদাম্বরম-শরদ পাওয়ার, বাকি রাজ্যে চিত্র কেমন? 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla