কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ে বিশেষ জোর, ত্রিপুরায় করোনা নিয়ন্ত্রণে আর কী কী সুপারিশ দিল কেন্দ্রীয় দল?

Central Team on Tripura's COVID-19 Situation: পশ্চিম ত্রিপুরার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জানান, বৈঠকে কেন্দ্রীয় দল জেলা আধিকারিকদের কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ের উপর বিশেষ জোর দিতে বলেছেন।

কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ে বিশেষ জোর, ত্রিপুরায় করোনা নিয়ন্ত্রণে আর কী কী সুপারিশ দিল কেন্দ্রীয় দল?
ফাইল চিত্র।

আগরতলা: টিকাকরণে এগিয়ে থাকলেও রাজ্যে নিয়ন্ত্রণে আসছে না করোনা সংক্রমণ (COVID-19)। পরিস্থিতি সরোজমিনে খতিয়ে দেখতে সোমবারই ত্রিপুরায় পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় দল (Central Team)। প্রথমদিনের সফর সেরেই আক্রান্তদের চিহ্নিতকরণের জন্য কনট্যাক্ট ট্রেসিং(Contact Tracing)-র উপর জোর দেওয়ার সুপারিশ করল কেন্দ্রীয় দল।

সম্প্রতি ফের একবার কেরল, অরুণাচল প্রদেশ, ত্রিপুরা, ওড়িশা, ছত্তীসগঢ় ও মণিপুরে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। সেখানে করোনা মোকাবিলায় কী কী পদক্ষেপ করা হচ্ছে, তা পরিদর্শন করতে কেন্দ্রীয় জনস্বাস্থ্য আধিকারিকদের দলকে এই ছয় রাজ্যে পাঠানো হয়েছে বলে জানায় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। সোমবারই ত্রিপুরায় ডঃ আর এন সিংয়ের নেতৃত্বে দুই সদস্যের একটি কেন্দ্রীয় দল পৌঁছয়। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে কোভিড ওয়ার রুম, টিকাকরণ কেন্দ্র ও করোনা পরীক্ষা কেন্দ্রগুলি ঘুরে দেখেন। পাশাপাশি পশ্চিম ত্রিপুরার জেলাশাসক দেবপ্রিয় বর্ধন, মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডঃ দেবাশীষ দাস ও স্বাস্থ্য বিভাগের আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করেন।

পশ্চিম ত্রিপুরার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জানান, বৈঠকে কেন্দ্রীয় দল জেলা আধিকারিকদের কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ের উপর বিশেষ জোর দিতে বলেছেন। যদি প্রথম দু-একদিনের মধ্যেই কনট্যাক্ট ট্রেসিং করা সম্ভব হয়, তবে সংক্রমণের মাত্রা অনেকটাই কম হবে। পাশাপাশি টিকাকরণ যে গতিতে চলছে, তা আরও বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ত্রিপুরায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬১ জন, মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। বর্তমানে রাজ্যে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ৯৪৭। রাজ্যে সংক্রমণের হার ৫ শতাংশের বেশি, সুস্থতার হার ৯৩ শতাংশ।

আরও পড়ুন: জন্মদিনে নমোর শুভেচ্ছাবার্তায় আপ্লুত দলাই লামা, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই ভারত সফর? 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla