আধিকারিকদের মদতেই রমরমিয়ে চলছে কয়লা পাচার, খবর পেতেই কঠোর ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী

সম্প্রতিই মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব চুরাইবাড়ি আন্তঃরাজ্য সীমান্ত পরিদর্শনে যান এবং সেখানে আধিকারিকদের চোরাচালান রুখতে কড়া নির্দেশ দেন।

আধিকারিকদের মদতেই রমরমিয়ে চলছে কয়লা পাচার, খবর পেতেই কঠোর ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী
ফাইল চিত্র।

আগরতলা: রাজ্য়ে কয়লা মাফিয়াদের দৌরাত্ব্য থামাতে একাধিক কঠোর পদক্ষেপ করতে চলেছে ত্রিপুরা সরকার। সম্প্রতিই রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, চোরাপথে কয়লা পাচার হয়ে যাওয়ায় প্রতি বছর রাজ্য সরকারের প্রায় ২৫ কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। এই বিপুল পরিমাণ লোকসান রুখতেই এ বার কঠোর হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ত্রিপুরায় ইটভাঁটার সংখ্যার ২৩৬। এছাড়াও ১৮ টি চা উৎপাদন কেন্দ্র রয়েছে। সব মিলিয়ে রাজ্যে বছরে ১.৬০ লক্ষ থেকে ২ লক্ষ মেট্রিক টনের বেশি কয়লা খরচ হওয়ার কথা নয়। কিন্তু উৎপাদন ও ব্যবহারের সংখ্যার মধ্যে আকাশ পাতাল ফারাক থেকে যাওয়াতেই কয়লা মাফিয়াদের প্রসঙ্গ উঠে এসেছে।

এক সরকারি আধিকারিক বলেন, “অসম-ত্রিপুরা সীমান্তে অবস্থিত চুরাইবাড়ি গেটে যাতায়াত নিয়ে কঠোর পদক্ষেপ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার। এই সিদ্ধান্তে প্রধান কারণ হল কয়লা পাচার চক্র। সরকারি আধিকারিকদের একাংশ গোটা বিষয়ে সমস্ত কিছু জেনেও কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছেন না, উল্টে চোরাচালানেই মদত দিচ্ছেন। কারণ সরকারি কর্মীদের সাহায্য ছাড়া ত্রিপুরায় প্রবেশ করার কোনও পথ নেই।” ত্রিপুরার কর বিভাগের কমিশনার ডঃ বিশাল কুমারও জানান, রাজ্যে আসা ৫০ শতাংশ কয়লাই কর ফাঁকি দিয়ে বেআইনি পদ্ধতিতে আনা হয়।

সম্প্রতিই মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব চুরাইবাড়ি আন্তঃরাজ্য সীমান্ত পরিদর্শনে যান এবং সেখানে আধিকারিকদের চোরাচালান রুখতে কড়া নির্দেশ দেন। আরও পড়ুন: CBSE 10th Results 2021: দ্রুতই ফল ঘোষণা হবে সিবিএসই-র 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla